বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগ নিয়ে কেপটাউন টেস্টের ‘৪’ বোলারের বিবৃতি

0
418

দুই বছরের বেশি সময় পার হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বল বিকৃতির ঘটনার। তবে বল বিকৃতি করা ব্যানক্রফটের একটি মন্তব্য ফের একবার আলোচনায় এসেছে ইস্যুটি। এবার এই ইস্যু নিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ওই টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার চার বোলার প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, নাথান লায়ন ও জশ হ্যাজলউড।

বল বিকৃতির ঘটনা ফের অস্বীকার করলেন কেপটাউন টেস্টের চার বোলার। ছবিঃ এএফপি

ক’দিন আগেই ইংলিশ দৈনিক ‘দ্য গার্ডিয়ানকে’ দেওয়া এক সাক্ষাতকারে ব্যানক্রফট জানিয়েছিলেন বল বিকৃতির ঘটনাটি তাঁরা তিনজন (স্মিথ, ওয়ার্নার, ব্যানক্রফট) বাদে বাকিরাও জানতেন। বিশেষ করে বোলাররাও জানতেন কি না সেই প্রশ্নের জবাবে ব্যানক্রফট বলেন, “দেখুন, আমার মনে হয় হ্যাঁ, জানত। আমার ধারণা, এটা তো সম্ভবত স্ব-ব্যাখ্যামূলক।”

Advertisment

ব্যানক্রফটের এই মন্তব্য ক্রিকেট বিশ্বে ফের আলোচনায় এসেছে ইস্যুটি। ব্যানক্রফটের বল বিকৃতির ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানান ওই টেস্টের একাদশে থাকা চার পেসার। তখন দাবি করেন এই ব্যাপারে তাঁরা কিছুই জানতেন না।

এদিকে ব্যানক্রফটের মন্তব্যের পর অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক মাইকেল কার্ল্ক, উইকেটকিপার অ্যাডাম গিলক্রিস্টও পেসারদের সমলোচনা করেছেন। সাবেক ক্রিকেটারদের সমলোচনা মেনে নিতে না পেরে মঙ্গলবার এই ইস্যুতে বিবৃতি দেন চার পেসার- হ্যাজলউড, কামিন্স, স্টার্ক ও লায়ন। সেবারের মতো এবারও নিজেদের পক্ষে সাফাই গাইলেন তাঁরা।

কেপটাউন টেস্টের বল বিকৃতি নিয়ে ‘চার’ বোলারের বিবৃতি –

১) আমরা আমাদের সততা নিয়ে গর্ববোধ করি। এটি খুবই হতাশার ব্যাপার যে বিগত কয়েকদিন ধরেই কিছু সাংবাদিক এবং সাবেক ক্রিকেটাররা আমাদের আত্মনিবেদন নিয়ে প্রশ্ন তুলছে। আমরা ইতোমধ্যে এই ইস্যুতে অনেকবারই প্রশ্নের জবাব দিয়েছি। তবে আমাদের মনে হয়েছে বিষয়টি নিয়ে আবারো খোলামেলাভাবে আলোচনা করা উচিত।

২) সিরিশ কাগজের বস্তটি বিদেশি হওয়ায় বড় স্ক্রিনে দেখার আগ পর্যন্ত বল বিকৃতির ঘটনা আমরা বুঝতেই পারিনি।

৩) যারা এতদিন বলে আসছেন বল বিকৃতি হয়েছে কি না বোলার হিসেবে সেটা আগেই টের পাওয়া উচিত ছিল…  ওই টেস্টে অন-ফিল্ড আম্পায়ার হিসেবে মাঠে দায়িত্বে ছিলেন দুই অভিজ্ঞ এবং সম্মানীয় আম্পায়ার নাইজেল লং এবং রিচার্ড ইলিংওয়ার্থ । বিষয়টি তাঁদের নজরে আসার পরও বল পরিবর্তন করা হয়নি কারণ তাঁদের চোখে বলে কোন প্রকার ঘষামাজার চিহ্ন চোখে পড়েনি।

৪) নিউল্যান্ডসে সেদিন যেটা হয়েছে সেটি ছিল চরম ভুল এবং এমন ঘটনা মোটেও কাম্য নয়।

৫) আমরা সকলেই মূল্যবান শিক্ষা পেয়েছি এবং আমরা ভাবতে চাই যে আমরা যেভাবে খেলি এবং খেলাটাকে শ্রদ্ধা করি আশা করছি মানুষ সেটিকে নতুনভাবে দেখতে পাবে। সেই সাথে মানুষ এবং খেলোয়াড় হিসেবে উন্নতিতে আমাদের প্রতিশ্রুতি অব্যাহত থাকবে।

৬) আমরা শ্রদ্ধার সাথে জানাতে চাই- গুজব গুলোর ইতি যেন এবার এখানেই টানা হয়।

৭) এই ইস্যুটি এখন অনেক পুরনো হয়ে গিয়েছে এবং এসব ভুলে সামনে এগিয়ে যাওয়ার সময় এসেছে।

এদিকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) ব্যানক্রফটের কাছে নতুন করে অনুসন্ধানের জন্য তথ্য চাইলেও খেলোয়াড়ের এক কাছের সূত্র নিশ্চিত করেছে এই ইস্যু নিয়ে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে মীমাংসা করে ফেলেছে ব্যানক্রফট এবং বলেছেন বোর্ডকে নতুন করে তথ্য দেওয়ার মতো তাঁর কাছে কিছু নেই।