বল হাতে বাংলাদেশকে খেলায় ফেরালেন আরিফুল

0
2238

বাংলাদেশ ‘এ’ দলের দেওয়া লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে ১৩ রানে দুই ওপেনার সাদিরা সামারাবাবিক্রমা ও উপুল থারাঙ্গার উইকেট হারিয়ে চাপে পড়লেও লাহিরু থিরিমান্নে আর শেনান জয়াসুরিয়ার তৃতীয় উইকেট জুটিতে চাপ কাটিয়ে লড়াইয়ে ফিরে আসে সফরকারী শ্রীলঙ্কা।

আরিফুল হক
আরিফুল হক। ছবিঃ বিডিক্রিকটাইম

দু’জনে মিলে যখন দলকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যাচ্ছিল এমতাবস্থায় ইনিংসের ১৫তম ওভারে বদলি ফিল্ডার হিসেবে ফিল্ডিং করতে আসা আফিফ হোসেনের দূর্দান্ত এক থ্রুতে রান-আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন ১৩ রান করা সামারাবিক্রমা। আর এতে বিচ্ছিন্ন হয় দুজনের মধ্যকার ৫২ রানের জুটির।

Advertisment

ক্রিজে বেশ কিছুক্ষণ থিতু হয়ে স্বাগতিক বোলারদের বিপক্ষে দক্ষতার সাথে লড়াই চালানো থিরিমান্নে ফেরেন এর কিছুক্ষণ পর’ই। ব্যাট হাতে ঝড় তুলে দলকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যাওয়ার পর বল হাতে আক্রমণে এসে থিরিমান্নের গুরুত্বপূর্ণ উইকেট তুলে নেন আরিফুল হক। আর এতে দলীয় ৭২ রানে চতুর্থ উইকেটের পতন ঘটে সফরকারীদের।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২৪ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১০০ রান। জয়ের জন্য সফরকারীদের ১৫৬ বলে প্রয়োজন আরও ১৮১ রান, হাতে অবশিষ্ট আছে ৬ উইকেট।

এর আগে সফরকারী অধিনায়কের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে প্রথমে ব্যাট করে মিজানুর রহমান ও ফজলে রাব্বির অর্ধশতকের পর আরিফুল হকের ২২ বলের ঝড়ো ৪৭ রানের ইনিংসে চড়ে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৭ উইকেটে ২৮০ রানের পুঁজি পায় স্বাগতিক বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৭ রান আসে ওপেনার ফজলে মাহমুদের ব্যাট থেকে। শুরু থেকে সতর্কতার সাথে খেলা এই ব্যাটসম্যান ৬৭ রান করতে খেলেন ১০৭ বল। তার পাশাপাশি অর্ধশতকের দেখা পেয়েছেন প্রথমবারের মতো ‘এ’ দলের হয়ে খেলার ডাক পাওয়া আরেক ব্যাটসম্যান ফজলে মাহমুদ রাব্বিও। রান আউটের ফাঁদে পড়ার আগে সমান ২ চার ও ২ ছয়ে ৬৩ বল খেলে রাব্বি করেন গুরুত্বপূর্ণ ৫৯ রান।

লঙ্কান বোলারদের মধ্যে মাদুশাঙ্কা, জয়াসুরিয়া, পেরেরা, পুষ্পাকুমারা ও শানাকা প্রত্যেকেই লাভ করেন একটি করে উইকেট। বাকি দুটি উইকেটের পতন ঘটে রান-আউটে।

স্কোরকার্ড-
বাংলাদেশ ‘এ’ দলঃ ২৮০/৭ (৫০ ওভার)
সৌম্য ২৪ (৩৪), মিজানুর ৬৭ (১০৭), জাকির ১৮(২৬), ফজলে ৫৯(৬৩), মিঠুন ৪৪(৪৪), আরিফুল ৪৭ (২২), আল-আমিন ৮(৩)*, সানজামুল ১(০) এবং নাইম হাসান ১(১)*।


আরও পড়ুনঃ মাশরাফির স্বপ্ন বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল