Scores

‘বাংলাদেশকে নিষিদ্ধ করা উচিত ছিল’

জয় দিয়েই নিদাহাস ট্রফির মিশন শুরু করেছিল স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। টুর্নামেন্টে হট ফেভারিট হয়েও নিজ দেশেই শেষ পর্যন্ত দর্শক হয়ে থাকতে হলো শ্রীলঙ্কাকে। নিজের দেশে দর্শক বানানোর পেছনে বড় অবদান রয়েছে বাংলাদেশের। কেননা গ্রুপ পর্বের দুইটি ম্যাচই যে বাংলাদেশের কাছে হেরেছে শ্রীলঙ্কা।

কী হয়েছিল তখন?

প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার দেওয়া ২১৫ রান তাড়া করতে নেমে মুশফিকের ঝড়ো অপরাজিত ৭২ রানের ইনিংস যেন জয়ের আশা শেষ হয় শ্রীলঙ্কার সাথে ম্যাচ শেষে মুশফিকের ‘নাগিন ড্যান্স’ যেন আরও জ্বালা বাড়িয়ে দেয় শ্রীলঙ্কার। বাংলাদেশ ওশ্রীলঙ্কার মধ্যকার অলিখিত সেমিফাইনালে হয়েছে নানা নাটকে। ২০তম ওভারের পরপর প্রথম দুই বল বাউন্স দেওয়ায় ‘নো’ কল দেন লেগ আম্পায়ার।

Also Read - কষ্টটা মনে রেখেই এগিয়ে যেতে চায় বাংলাদেশ


অবশ্য পরে মূল আম্পায়ারের সঙ্গে আলোচনা করে সেটি বাতিল করা হয়। আম্পায়ারের এমন সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব ও ক্রিজে থাকা ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ। রিজার্ভ আম্পায়ারের কাছে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করার কারণ জানতে হওয়া হলে দিতে পারেননি কোন সঠিক উত্তর।

যার কারণে দুই ব্যাটসম্যানকে মাঠ ছাড়তে বলেন সাকিব। সেই সাথে ম্যাচ শেষে ড্রেসিং রুমের দরজার গ্লাস ভাঙার অভিযোগ উঠে সাকিবের নামে। তবে প্রমাণ মেলেনি কোন। এতেই ক্রিকেট বিশ্ব মেতে উঠেন সাকিবের সমলোচনায়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সাকিবের সমলোচনায় ব্যস্ত থাকেন ভারতীয় ও শ্রীলঙ্কানরা। সমর্থকদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন ভারতের স্পিনার হরভজন সিংও। ভারতের এক টিভি চ্যানেল ‘ইন্ডিয়া টুডে’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানান বাংলাদেশের এমন আচরনে ক্ষুব্ধ এই স্পিনার।

‘অবশ্যই, তারা যেটি করেছে সেটি করা উচিত হয়নি। তারা তো কোন জিনিস ভাঙতে পারেনা। মাঠে একজন আম্পায়ের ভুল থাকতেই পারে, সেটিই স্বাভাবিক। তাই বলে, আপনি আপনার দলের ক্রিকেটারদের মাঠ ছাড়ার জন্য বলতে পারেননা। এমন উদযাপনের পর সত্যিই আপনি দরজার গ্লাস ভাঙতে পারেন না।’

ম্যাচ চলাকালীন দুই ব্যাটসম্যানকে মাঠ ছাড়ার ইঙ্গিত দেওয়ার কারণে পরবর্তীতে ম্যাচ ফি’র ২৫ শতাংশ জরিমানা এবং এক ডিমেরিট পয়েন্ট দেওয়া হয় সাকিবকে। ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রডের এমন সিদ্ধান্তে অবাক হরভজন। তার মতে শাস্তির পরিমাণ কম হয়ে গিয়েছে সাকিবের। সেই সাথে বাংলাদেশ দলকে নিষিদ্ধ করা উচিত ছিল বলে মনে করেন তিনি।

‘ক্রিস ব্রডের উচিত ছিল ওই ঘটনা ভালো করে পর্যালোচনা করা। আমি অবাক তাকে মাত্র ম্যাচ ফি’র ২৫ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে। আমার মতে ম্যাচ রেফারির উচিত ছিল কয়েক ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা। শুধু তাকেই নয় পুরো দলকেই নিষিদ্ধ করা উচিত ছিল।’

নিজেও অবশ্য ক্রিকেট মাঠে বেশ কিছু ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তবে সেগুলোর সাথে এটার তুলনা করতে নারাজ ভারতের স্পিনার হরভজন সিং। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে বাংলাদেশের জন্য লজ্জার বললেন তিনি। সেই সাথে এই ঘটনার পর ক্রিকেটে অনেক ভক্তও হারিয়েছে বাংলাদেশ দাবি হরভজনের।

আরও পড়ুনঃ সাকিবকে হেয় করল ভারতীয় টিভি চ্যানেল

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

রুবেল হোসেনের সমস্যা কোথায়?

নিদাহাস ট্রফি থেকে ৪৮২ শতাংশ লাভ!

অসুস্থ রুবেল, দোয়া চাইলেন সবার কাছে

যেখান থেকে শুরু ‘নাগিন ড্যান্স’ উদযাপনের

‘খারাপ করছি দেখেই বেশি চোখে পড়ছে’