Scores

বাংলাদেশী বোলার ও ওপেনিং জুটির প্রশংসায় মাসাকাদজা

প্রথম ইনিংস শেষে লড়াকু সংগ্রহের পর জয়ের আশাই দেখছিল জিম্বাবুয়ে দল। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না তাদের। ৩৫ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটে জয় তুলে নেয় টাইগাররা।

'বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের পার্থক্য ঘরোয়া ক্রিকেট'

বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর আড়াইটায় চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টাইগারদের বিপক্ষে সিরিজ বাচাঁনোর লড়াইয়ে নামে জিম্বাবুয়ে। অন্যদিকে এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জয়ে লক্ষ্যে ছুটতে শুরু করে মাশরাফিবাহিনী।

Also Read - সফলতার 'রহস্য' জানালেন সাইফউদ্দিন


সন্ধ্যার পরে শিশিরের উপস্থিতির কথা ভেবেই টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৪৬ রান তোলে জিম্বাবুয়ে। পরপর না হলেও সাময়িক বিরতিতে একের পর এক উইকেট পতনে বড় কোন জুটি গড়তে ব্যর্থ হয় জিম্বাবুয়ে। ফলে শেষ পর্যন্ত বড় স্কোরের সম্ভাবনা জাগিয়েও লক্ষ্যে পৌছাতে পারেনি তারা। এজন্য ম্যাচের পুরো কৃতিত্বই বোলারদের দিয়েছেন মাশরাফি।

পরে ২৪৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ওপেনিং জুটিতেই ১৪৮ রান খাতায় তোলে ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস। পরে আবারও রানশূণ্যভাবে রাব্বি সাজঘরে ফিরলে হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম। ৯০ রান করে ইমরুল ফিরলে মিথুনের সঙ্গ নিয়েই জয় হাতে ইনিংস শেষ করেন মুশফিক।

অসাধারণভাবে শুরু করার পরও এমন হার যে অপ্রত্যাশিত ছিল জিম্বাবুয়ের কাছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। দলটির অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজাও বললেন একই কথা। ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের বোলার ও ওপেনারদের প্রশংসা করে তিনি বলেন,

“আমরা যেভাবে সূচনা করেছিলাম, সেখান থেকে সামনে এগিয়ে যেতে পারি নি। শেষের দিকে আমাদের চেপে ধরার জন্য বাংলাদেশের বোলারদের কৃতিত্ব দিতেই হবে। আমরা ভালো অবস্থায় ছিলাম কিন্তু সেটা ধরে রাখতে পারি নি। এই পর্যায়ের ক্রিকেটে আপনাদের সুযোগ নিতে হবে।  তাদের ওপেনাররা আমাদের ম্যাচ থেকে ছিটকে দিয়েছে। আরও একটা ম্যাচ আছে, দেখা যাক শেষটা কেমন হয়!”

শুক্রবার সফরের শেষ ওডিআই খেলতে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মাঠে নামবে জিম্বাবুয়ে ও বাংলাদেশ। ইতিমধ্যেই এক ম্যাচ হাতে থাকতে ওডিআই সিরিজ জিতে নিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। এখন শেষ ম্যাচ জিতে হোয়াইটওয়াশ আটকানোর পাশাপাশি টি-টোয়েন্টি এবং টেস্ট সিরিজ জেতার মাধ্যমেই নিজেদের সম্মান ফিরিয়ে আনার জন্যই লড়বে মাসাকাদজার দল।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

মুস্তাফিজ-কায়েসের দলে না থাকার কারণ

বৃষ্টির কল্যাণে রক্ষা পেল বাংলাদেশ ‘এ’ দল

কায়েসের পর আফিফের ব্যাটে লড়ছে বাংলাদেশ

আক্ষেপ নিয়ে ফিরলেন ইমরুল

বিজয়-নাইমের ব্যাটে বাংলাদেশের প্রতিরোধ