বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে হতবাক হাথুরুসিংহে

0
2074

ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভালো করবে বাংলাদেশ, এমনটিই প্রত্যাশা ছিল ক্রিকেটঅঙ্গনে। কিন্তু সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের দলের সাথে পাত্তাই পেলো না স্বাগতিকরা। ত্রিদেশীয় সিরিজ হারের পর টেস্ট সিরিজেও হেরেছে বাংলাদেশ। তবে ঢাকা টেস্টের পরাজয়টা ছিল লজ্জাজনক। ২১৫ রানে হেরেছেন মুশফিক-রিয়াদরা। টাইগারদের এমন পারফরম্যান্সে হতবাক চন্ডিকা হাথুরুসিংহ নিজেও।

 

Advertisment

ঢাকা টেস্টের দুই ইনিংসেই ব্যর্থ বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ইনিংসে ১১০ রানে অলআউট হবার পর দ্বিতীয় ইনিংসে অলআউট হয়েছে ১২৩ রানে। তরুণদের পাশাপাশি ব্যর্থ অভিজ্ঞ ক্রিকেটারাও। মুশফিকুর রহিম দুই ইনিংস মিলে করেছেন ২৬ রান, অন্যদিকে সাকিবের পরিবর্তে অধিনায়ক থাকা রিয়াদ করেছেন ২৩ রান। এই প্রসঙ্গে হাথুরুসিংহে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখে অবাক হয়েছে। তবে এর থেকে ভালো করার ক্ষমতা আছে ওদের।’

হাথুরুসিংহে মনে করেন কৌশল ও পরিকল্পনায় পিছিয়ে ছিল বাংলাদেশ,  ‘আপনাকে সব সময়ই ভালোভাবে তৈরি হতে হবে। দলের শক্তিমত্তা আপনাকে বুঝতে হবে। নিজের শক্তি বুঝেই পরিকল্পনা ও কৌশল সাজতে হবে। আপনি যদি ভালোভাবে তৈরি থাকেন ও নিজের শক্তি অনুযায়ী ভালো পরিকল্পনা থাকে, বলছি না সব জায়গায় সফল হতে পারবেন। তবে সব জায়গায় ভীষণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ দল হতে পারবে।’

বাংলাদেশের সর্বশেষ কোচ ছিলেন হাথুরুসিংহে। এরপর টাইগারদের দায়িত্ব ছেড়ে যোগ দিয়েছেন শ্রীলঙ্কায়।  আর প্রথম সফরেই সাফল্যের ঝুড়ি ভারী। টাইগারদের সব কিছু জানা হাথুরুসিংহেই কি ব্যবধান করে দিয়েছেন? এমন প্রশ্নে হাথুরুর জবাব ছিল, ‘আমি বলও করি না, ব্যাটও করি না। শুধু বুঝিয়ে দেই।’

এদিকে মিরপুরের উইকেট নিয়ে অনেক আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। অনেকেই দায়ী করছেন কিউরেটর গামিনী ডি সিলভাকে। তবে কিউরেটরকে দোষ নিতে নারাজ হাথুরুসিংহে, ‘গত ছয় মাসে এখানে অনেক খেলা হয়েছে। এই সময়ে একজনের পক্ষে ভিন্ন উইকেট তৈরি করা কঠিনই। আপনি যদি ত্রিদেশীয় সিরিজে দেখেন প্রায় প্রতি ম্যাচেই উইকেট ভেঙেছে। আমরা শুরুটা ভালো করেছি। একটা টেস্টের উইকেট তৈরিতে আপনাকে অন্তত ছয় মাস সময় দিতে হবে।’

[আরও পড়ুনঃ জানতেন নান্নু, তারপরেও স্কোয়াডে সাকিব!]