Scores

বাংলাদেশের লক্ষ্য ২০ উইকেট নেওয়া

নিউজিল্যান্ডে মাটিতে নিউজিল্যান্ডের সাথে আগেও কোনো ম্যাচ জিততে পারেনি বাংলাদেশ। মূলত কিউইদের গতি এবং নিখুঁত লাইন-লেন্থ এর কাছেই পরাস্থ হয় বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। এবারের সিরিজে প্রাপ্তি বলতে মোহাম্মদ মিঠুনের দুটি অর্ধশতক ও শেষ ম্যাচে সাব্বির রহমানের সেঞ্চুরি, বলার মত আর কোন প্রাপ্তি নেই বাংলাদেশের খাতায় নেই।

বাংলাদেশের লক্ষ্য ২০ উইকেট

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে পুরোপুরি ব্যর্থ বাংলাদেশ দল। একটি ম্যাচেও কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়তে পারেনি বাংলাদেশে দল। ওপেনিং ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল-লিটন দাস থেকে শুরু করে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা সম্পূর্ন রুপে পরাস্থ হয়েছে নিউজিল্যান্ডের বোলারদের কাছে। যার ফলে কিউইদের কাছে হোয়াইটওয়াশ হতে হয় মাশরাফি বাহিনীকে।

Also Read - ১০০ বলের ক্রিকেটের নিয়ম ঘোষণা


তবে শুধু ব্যাটিংই নয়, বাংলাদেশের বোলারদের জন্য নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে বোলিংটাও কঠিন। এমনটাই মনে করেন টেস্ট দলের সদস্য আবু জায়েদ রাহি। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এবার বাংলাদেশকে পড়তে হবে আরও কঠিন চ্যালেঞ্জে। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের কিউইদের সামনে বল হাতে বেশ কঠিন পরিস্থিতে পড়তে যাচ্ছেন বোলাররা। তবে রাহির নজর কিউইদের ২০ উইকেটের দিকেই।

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রথম টেস্টে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। তার আগে লিংকনে শনিবার ২৩ ফেব্রুয়ারি নিউজিল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে একটি দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল। প্রস্তুতি ম্যাচ হলেও কোন ভাবেই হালকা ভাবে নিচ্ছে না স্টিভ রোডসের শিষ্যরা, নিজেদেরকে ঝাঁলিয়ে নিতে প্রস্তুতি ম্যাচকেই বেঁছে নিয়েছে বাংলাদেশ দল।

পেসার আবু জায়েদ রাহি জানান, নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিয়ে বোলিং করাটা কঠিন।

‘এখানকার বাতাসটা ভারি। তাই বোলিং করতে কষ্ট হয়। ঠিক জায়গায় বল করা যাচ্ছে না। এদিক সেদিক হচ্ছে। তাই প্রস্তুতি ম্যাচে এই বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করবো আমরা। আর টেস্ট ক্রিকেটে আর্লি ব্রেক থ্রু টা খুবই জরুরি। নিউজিল্যান্ডকে হারাতে হলে ২০টা উইকেট নিতে হবে। তাই চেষ্টা করবো প্রথমেই দ্রুত উইকেট তুলে নিয়ে চাপে ফেলতে।’

টেস্ট জয় কিংবা ড্র করতে হলেও মূল দায়িত্ব নিতে হবে ব্যাটসম্যানদের। লড়াই করতে একটি টেস্টের ১৫টি সেশন। তবে সেই কাজটি যে খুব একটা সহজ হবেনা বাংলাদেশের জন্য তা ওয়ানডেতে সিরিজের পারম্যান্সই বলে দেয়।

ইতিমধ্যে টেস্টের জন্য অনুশীলন শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। প্রথমে টেস্ট দলে না রাখা হলেও পরবর্তীতে সাকিবকে না পাওয়ায় সৌম্য সরকারকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। তাই ওয়ানডে সিরিজ শেষে মাশরাফি, শফিউল ও সাইফউদ্দিন দেশে ফিরলেও থেকে যান সৌম্য।
ওয়ানডে সিরিজে ব্যর্থতার পর টেস্টে ঘুরে দারানো এখন বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য, রোডসের শিষ্যরা সেই লক্ষ্য কতটা পুরন করতে পারে সেটা দেখার জন্য ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

প্রস্তুতি ম্যাচে দ্যুতি ছড়ালেন রিয়াদ, রাহী, মোসাদ্দেক

রাহীর অগ্নিঝরা বোলিং, বিপর্যয়ে মুশফিকরা

রাহী-মেহেদির বোলিং তোপে ১২২ রানে অলআউট আফগানিস্তান

ব্যাটিংয়ে উইন্ডিজ, রাহীর অভিষেক

বিশ্বকাপ দলে যুক্ত হচ্ছেন তাসকিন, কপাল পুড়ছে রাহীর!