বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জার্সি নিয়ে বিসিবির নতুন পরিকল্পনা

0
3563

ক্রিকেট দলগুলো সাধারণত তাদের পতাকার রঙের সাথে মিল রেখে তাদের জার্সি তৈরি করে থাকে। বাংলাদেশ দলের জার্সি মানেই লাল-সবুজের সংমিশ্রণ। জার্সির নকশা যাই হোক না কেন রং সবসময় লাল-সবুজই থাকে। এই বছর ইংল্যান্ডে আসন্ন বিশ্বকাপে নতুন জার্সিতে মাঠে নামবে মাশরাফি-তামিমরা।

ফের বাংলাদেশ দলের স্পন্সর রবি

অন্যান্য ক্রিকেট দলগুলো সাধারণত সারাবছর একই প্যাটার্ন বজায় রেখে জার্সি তৈরি করে থাকে। তাদের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচের জন্যও আলাদা জার্সি করা হয় এখন। কিন্তু বাংলাদেশ দলের ক্ষেত্রে এখানেই ভিন্নতা। প্রতিটি সিরিজে বদলে যায় বাংলাদেশ দলের জার্সি। শুধু লাল-সবুজ রং রেখে একেকটি সিরিজে নতুন নতুন নকশার জার্সি পরে মাঠে নামে বাংলাদেশ। তবে এবার সেই প্রথা থেকে বের হয়ে আসতে চাচ্ছে বাংলাদেশ। প্রতিটি সিরিজেই নতুন নতুন নকশার জার্সি না নিয়ে একটি নির্দিষ্ট প্যাটার্নের এবং ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলার জন্য আলাদা জার্সি তৈরির ভাবনা ক্রিকেট বোর্ডের।

Advertisment

ভারত, অস্ট্রেলিয়ার মতো দলগুলো বছরের শুরুতেই প্রকাশ করে কোন নকশার জার্সিতে বছর কাটাবে তারা। বাংলাদেশ দলের জার্সি সম্পর্কে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন বলেন, “আমাদের কালার (রং) কম্বিনেশন কিন্তু একই থাকে। এটাই স্বাভাবিক লাল-সবুজ রঙের মিশেলে আমাদের জার্সি হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের দলের স্পন্সরে কিছু পরিবর্তন এসেছে। ইউনিসেফও আমাদের লোগোর ক্যাটাগরিতে এসেছে। যার কারণে আমাদের নতুন জার্সি করতে হচ্ছে।”

বাকি দলগুলো ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি আলাদা জার্সি ব্যবহার করলেও বাংলাদেশে ক্ষেত্রে সেটা না হওয়ার কারণ সম্পর্কে বাংলাদেশ দলের জার্সি প্রস্তুতকারক বলেন, “এ ধরনের কিছু করা হয় না আমাদের। কিন্তু এটা নিয়ে আমরা কাজ করছি। পরবর্তী সিরিজগুলোতেই হয়তো আপনারা দেখতে পাবেন। এই ধারাটা কিন্তু চালু হয়েছে মূলত গত দুই বছর ধরে। আমাদের বোর্ডও এই ব্যাপারে চিন্তা ভাবনা করছে।”

ফেব্রুয়ারি মাসে নিউজিল্যান্ড সফরে যাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আগামী ১৩ ই ফেব্রুয়ারি শুরু হতে যাওয়া সিরিজেও গত সিরিজের থেকে কিছুটা ভিন্ন হবে বাংলাদেশ দলের জার্সি। বছরের শুরুতেই যদি একটি নির্দিষ্ট নকশা ব্যবহারের পরিকল্পনা নেয়া হয় তাহলে বছর ভেদে জার্সির নির্দিষ্ট একটি ব্র‍্যান্ডিং সম্ভব।