বাংলাদেশ থেকে সত্যিই কঠিন লড়াই আশা করেছিলাম : আর্থার

0
1109

প্রথম দুই ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ। লঙ্কানদের প্রধান কোচ মিকি আর্থার জানান, বাংলাদেশ থেকে এমন পারফরম্যান্স প্রত্যাশিতই ছিল।

Advertisment

অভিজ্ঞ বাংলাদেশের সামনে অনভিজ্ঞ লঙ্কানরা এখনও দাঁড়াতেই পারেনি। প্রথম ওয়ানডেতে যা একটু সুযোগ তৈরি করেছিল হাসারাঙ্গা সেটিও হারতে হয়েছে লঙ্কানদের। ঘরের মাঠে বাংলাদেশ ডমিনেট করছে সেই ২০১৫ থেকেই। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ পরাজয় বাদে বাকি সবকটিতেই সিরিজ জিতেছে টাইগাররা।

বাংলাদেশের আসার পূর্বে নিশ্চয়ই রেকর্ড নিয়ে ঘাটাঘাটি করেছে লঙ্কানরা। তাতে অন্তত বোঝার কথা ঘরের মাঠে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স এমনই। বৃহস্পতিবার মিডিয়ার সঙ্গে আলাপকালে সেটিই জানালেন শ্রীলঙ্কা দলের প্রধান কোচ মিকি আর্থার। এর পেছনে মুশফিক, সাকিব, তামিম, মাহমুদউল্লাহর মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের প্রয়োজনীয়তাও তুলে ধরলেন তিনি।

“হ্যাঁ (পারফরম্যান্স প্রত্যাশিত)। আপনি যদি বাংলাদেশ দলের দিকে তাকান সাকিব, তামিম, মুশফিক- তিন জনেরই ২০০ এর বেশি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। মাহমুদউল্লাহও প্রায় কাছাকাছি ম্যাচ খেলেছে পাশাপাশি মুস্তাফিজ, মিরাজের কথা বলতেই হয়। বর্তমানে ঘরের মাঠে তাঁরা খুবই ভালো দল। যেটা বললাম, আমরা বাংলাদেশ থেকে কঠিন লড়াই আশা করেছিলাম এবং তাঁরা সেটি দিতে পেরেছে।”

একদিকে বাংলাদেশের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ক্রিকেটার থাকলেও লঙ্কান দলে নেই বলার মতো কোন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। ২০২৩ বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে অভিজ্ঞদের ছাটাই করে তারুণ্যনির্ভর দল নিয়ে বাংলাদেশে এসেছে লঙ্কানদের। যার প্রভাব কি না মাঠেই দেখছেন লঙ্কান কোচ মিকি আর্থার।

“আমরা এই দল নিয়েই সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। কাউকেই একবারে ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয়নি। তাঁরা যেকোন সময়ে দলে ফিরতে পারে (পারফর্ম করে)। কিন্তু হ্যাঁ, মিডল অর্ডারে অভিজ্ঞতার অভাব আছে কিছুটা। তবে দলে কুশল পেরেরা, কুশল মেন্ডিস, ধনঞ্জয়ার মতো বেশ কিছু সিনিয়র ক্রিকেটারও রয়েছেন। যাদের কি না অনেক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আশা করছি তাঁদের অভিজ্ঞতা মাঠে প্রদর্শন করবে।”