বাবর-রিজওয়ানের বিশ্বরেকর্ডে পাকিস্তানের ১০ উইকেটের ঐতিহাসিক জয়

বিশ্বরেকর্ড গড়ে পাকিস্তানকে ঐতিহাসিক এক জয় এনে দিয়েছেন বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান।

বাবর-রিজওয়ানের বিশ্বরেকর্ডে পাকিস্তানের ১০ উইকেটের ঐতিহাসিক জয়

বিডিক্রিকটাইম স্টাফ
বিডিক্রিকটাইম রিপোর্ট

প্রকাশিত হয়েছে -

আপডেট হয়েছে -

গত কয়েকদিন ধরে মোহাম্মদ রিজওয়ান ও বাবর আজমের স্ট্রাইক রেট নিয়ে বেশ সমালোচনা হচ্ছিল। তবে সমালোচকদের মুখে ঝামা ঘষে দিয়ে পাকিস্তানকে আজীবন মনে রাখার মতো এক জয় এনে দিয়েছেন দুজনে। করাচিতে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে জিততে হলে ২০০ রানের পাহাড় টপকাতে হতো পাকিস্তানকে। কিন্তু রিজওয়ান ও বাবর এমনভাবে ব্যাট করেছেন, মনে হয়েছে ইংল্যান্ড আরও কিছু রান বেশি করলেও যেন তা তাড়া করতে বেগ পেতে হতো না পাকিস্তানকে। বাবরের সেঞ্চুরি ও রিজওয়ানের সেঞ্চুরি ঘেঁষা দুই অপরাজিত ইনিংসে ভর করে পাকিস্তান পেয়েছে বিশ্বরেকর্ড গড়া এক ঐতিহাসিক জয়।

করাচিতে সাত ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ১০ উইকেটে হারিয়েছে পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচে হেরে যাওয়ার পর এই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর চাপ ছিল পাকিস্তানের ওপর। তবে সেই চাপকে বিন্দুমাত্র পাত্তা দেয়নি বাবর-রিজওয়ানের উদ্বোধনী জুটি। নিজেদের রেকর্ড তো বটেই, বাবর ও রিজওয়ান গড়েছেন রান তাড়ার বিশ্বরেকর্ডও। পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম দল হিসেবে ২০০ রান তাড়া করেছে কোনো উইকেট না হারিয়ে। এছাড়া রান তাড়া করার ক্ষেত্রে উদ্বোধনী জুটিতে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির সবচেয়ে বড় উদ্বোধনী জুটি গড়েছেন দুজনে।  
হাই স্কোরিং উইকেটে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ড, যদিও আগের ম্যাচে জয় ধরা দিয়েছিল রান তাড়া করতে নেমে। নির্ধারিত ২০ ওভারে  উইকেট হারিয়ে ১৯৯ রান সংগ্রহ করে সফরকারী দল। দলের পক্ষে দারুণ এক অর্ধশতক হাঁকান মঈন আলী। ২৩ বলের মোকাবেলায় ৪টি করে চার-ছক্কা হাঁকিয়ে ৫৫ রান করে অপরাজিত থাকেন, শেষ দুই বলে হাঁকান ছক্কা।
এছাড়া ২২ বলে ৪৩ রান করেন ৭টি চার হাঁকানো বেন ডাকেট। অন্যান্যদের মধ্যে হ্যারি ব্রুক ১৯ বলে ৩১, ফিল সল্ট ২৭ বলে ৩০ অ্যালেক্স হেলস ২১ বলে ২৬ রান করেন। পাকিস্তানের পক্ষে হারিস রউফ শাহনেওয়াজ দহানি দুটি করে উইকেট শিকার করেন।
জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে পাকিস্তানের দুই ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান বাবর আজম মোক্ষম জবাব দিয়েছেন সমালোচকদের। কোনো উইকেট না হারিয়ে ১৯.৩ ওভারে দলের ১০ উইকেটের জয় নিশ্চিত করেন তারা। ৬৬ বলের মোকাবেলায় ১১০ রানে অপরাজিত বাবর হাঁকান ১১টি চার ও ৫টি ছক্কা। রিজওয়ান ৫১ বলে ৫টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৮৮ রান করে অপরাজিত থাকেন। ইংল্যান্ডের বোলাররা আপ্রাণ চেষ্টা করেও পাকিস্তানের কোনো উইকেটের পতন ঘটাতে পারেননি।
বাংলাদেশের ক্রিকেটসহ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ধরনের খবর সবার আগে পেতে এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রাইব করুন BDCricTime Videos চ্যানেলটি। বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

সম্পর্কিত খবর