Scores

বিকেএসপির ছাত্রদের নিয়ে সাকিব-মুশফিকের পরামর্শ

দেশের বেশিরভাগ ক্রিকেটারদের বেড়ে ওঠা বিকেএসপিতে। খেলাধুলার আঁতুড়ঘর বিকেএসপি দেশের একমাত্র খেলাধুলার শিক্ষাকেন্দ্র। খেলাধুলায় সারাদেশের মেধাবীদের শাণিত করার কাজ করে আসা বিকেএসপির সামনের পথচলার জন্য অনলাইনের এক সেশনে পরামর্শ দিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির দুই প্রাক্তন শিক্ষার্থী সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম।

সাকিব-মুশফিক জুটির নতুন রেকর্ড

সামনের দিনগুলোতে বিকেএসপির তরুণ ক্রিকেটারদের কী ধরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে তা নিয়ে ধারণা প্রদানের পরামর্শ দেন সাকিব।

Also Read - জাতীয় দলে বাংলাদেশি কোচ চান আথার


নিজের ছোটবেলা থেকে একটি গল্প বলেন সাকিব। সাকিব বলেন, “আমি একটা গল্প বলতে চাই ছোট্ট করে। জানিনা স্যার (বিকেএসপির একজন কোচকে) আপনার মনে আছে কিনা। আমরা বাসে করে হয়তো একটা সাইটসিইংয়ে যাচ্ছিলাম। পেছনে বসেছিলাম। আপনি আমাকে পাশে বসানোর পর একটা কথা বলেছিলেন। আপনি বলেছিলেন, ‘আজকের পর থেকে বাসা থেকে আর টাকা নিতে পারবে না।” এরপর থেকে আজ পর্যন্ত বাসা থেকে টাকা নিতে হয় নাই।” 

“আমি জানিনা আপনার মনে আছে কী না। আপনি আমাকে বলেছিলেন, ‘তুমি কিন্তু চাইলেই রাস্তার টংয়ের দোকানে চা খেতে পারবে না। চাইলেই যে কেউ তোমার সার্কেলের হতে পারবে না।’ এটা কাউকে ছোট করা বা বড় করা না। শুধু আমার ভবিষ্যত কি হতে পারে সেটা সম্পর্কে যদি একটা জ্ঞান দেওয়া যায়, তাহলে এটা অনেক বেশি পরিণত করে বড় করতে সাহায্য করেন।”

সাকিব মনে করেন ক্রিকেটারদের কীভাবে জীবনযাপন করতে হয় কিংবা কী ধরণের পরিস্থিতির মধ্যে যেতে হয় সেগুলো সম্পর্কে কম জানার কারণেই জাতীয় দলে অনেক তরুণ ক্রিকেটার থিতু হতে পারেন না।

সাকিব বলেন, “আমাদের জাতীয় দলেও এমন অনেক হয়। আসে-যায়, আসে-যায়। এর কারণগুলো মনে হয় আমার এটাই। তারা জানেনা কোন সার্কেলে থাকতে হবে, কোন পরিবেশ তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।  এ জিনিসগুলো বোঝানো একজন কচের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিকেএসপিতে এগুলোর দরকার হয় না কিন্তু ওরা যখন বাইরে আসে তখন দরকার হয়।’ 

“স্বাভাবিকভাবেই আপনি যদি সমুদ্রের মাঝে পড়ে যান, আপনি জানেন না আপনি কি করবেন।  আপনি যদি জানেন আপনি সমুদ্রের মাঝখানে পর্ব তাহলে আপনি আগে থেকে প্রস্তুতি নিয়ে রাখবেন। পরিকল্পনাগুলো থাকবে,” যোগ করেন সাকিব।

নিজের অভিজ্ঞতা থেকে মুশফিক বলেন, “আমার ক্ষেত্রে জাতীয় দলে ঢোকার পর তিন-চার বছর লেগেছে খাপ খাইয়ে নিতে। সাকিব সেই প্রথম থেকেই মাশাল্লাহ ভালো খেলেছে। আমার ভিশনটা যদি আরেকটু ঐরকম থাকত তাহলে প্রথম থেকে মানিয়ে নেয়ার ক্ষমতা বেশি থাকত।” 

এছাড়া কোচদের সাথে তরুণ খেলোয়াড়দের বিশ্বাসের সম্পর্কটা থাকা উচিত বলে মনে করেন মুশফিক। তিনি বলেন, “আমরা অনেক সময় হয়তো কোচরা যা বলেছে অধিকাংশ সময় ওটাই করেছি। তখন হয়তো বুঝতাম না। এরপর যখন বুঝতে পেরেছি, এটা আমার জন্য উপযুক্ত, ওটা আমার জন্য না। তখন বলার মতো সাহস হয় নাই।

“এমন একটা সম্পর্ক হওয়া উচিত ছিল। অবশ্যই ওরা ভয় পাবে কিন্তু এতটুকু যেন থাকে সে যাতে স্যারের সাথে সব শেয়ার করতে পারে,” বলেন মুশফিক।

বিকেএসপি কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিমও মনে করেন ক্রিকেটারদের কিছু বলার আছে কিনা বা ক্রিকেটাররা কি মনে করেন সেটাও জানা দরকার।

এছাড়া ঐ অনলাইন সেশনে উপস্থিত ছিলেন বিকেএসপির কোচ আসাদুল তুলতল ও ইমরুল হাসানসহ অনেকেই।

করোনাভাইরাসের কারণে আপাতত ঘরেই আছেন বিকেএসপির ক্রিকেটাররা। তবে নিয়মিত তাদের বাড়ির কাজ দিচ্ছেন কোচরা। আয়োজন করা হচ্ছে অনলাইন সেশনের। ছাত্ররা তাদের কাজের ভিডিও করে পাঠাচ্ছেন কোচদের কাছে।


বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।


 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

বিপিএলের পারিশ্রমিক ঠিকমত পরিশোধ না করার অভিযোগ ফিকার

সাব্বির একটু রগচটা, তবে অনেক আবেগপ্রবণ : অর্পা

বিয়ে ক্রিকেটে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে না : শান্ত

শ্রীলঙ্কাতে টি-টোয়েন্টিও খেলতে চায় বাংলাদেশ

দেশে ফিরেছেন তামিম