Scores

বিদায়বেলায় মাশরাফিকে নিয়ে সতীর্থদের কথামালা

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা ইতি টানলেন জয় দিয়েই। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে সফল এই অধিনায়কের বিদায় বেলায় ছলছল ছিলো রিয়াদ-তামিমদের চোখ। তার অবদান, তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও শুভকামনা জানিয়েছেন সতীর্থরা।

বিদায়বেলায় মাশরাফিকে নিয়ে সতীর্থদের কথামালা

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ১২৩ রানের জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। সেই সাথে ৩-০ ব্যবধানের জয়ে সিরিজ জয় করেছে। মাশরাফি প্রথম বাংলাদেশি অধিনায়ক হিসাবে ওয়ানডে ক্রিকেটে ৫০টি জয়ের রেকর্ড স্পর্শ করেছেন। দলকে বটবৃক্ষের মতো ছায়া দিয়ে থাকা এই মানুষটার বিদায় বেলায় চোখ ভেজা দেখা যায় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের।

Also Read - লিটন-তামিমের ধারে-কাছে নেই কেউ






ম্যাচ শেষে রিয়াদ বলেন, আমি নিশ্চিত নই; আসলে উনি আমার ভাই, আমার বন্ধু, সবসময় সমর্থন দিয়েছেন। আমার মতে, বাংলাদেশের একজন সেরা অধিনায়ক তিনি। তিনি দলটির পিতার মতো ছিলেন। আমাদের মাঝে খুব ভালোভাবেই বিশ্বাস, একতা তৈরি করে দিয়েছে। দুর্দান্ত এই অধিনায়ককেই সব কৃতিত্ব দিতে হবে।’

মাশরাফির অধিনায়কত্ব যে বাংলাদেশকে বিশ্ব ক্রিকেটে একটি শ্রদ্ধার পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছেন সেটাই স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন তামিম ইকবাল, ‘মাশরাফি ভাই অসাধারণ। ২০১৪ সালে উনি দায়িত্ব নেয়ার পরে আজ ২০১৯ সালে দেখুন আমরা কোথায় আছি। উনি আমাদের এমন একটা পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছেন, যেখানে সারাবিশ্বে আমাদের সিরিয়াসলি নেয়, শ্রদ্ধা করে।এখানে এমন মানুষ ছিল যারা আমাকে দল থেকে বাদ দিতে চেয়েছিল কিন্তু উনি আমার পাশে ছিলেন।’






মাশরাফির অধিনায়কত্বের শেষ ম্যাচে একাদশে ছিলেন না মুশফিকুর রহিম। এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের চাওয়া একজন পেসার হিসাবে আরও অন্তত দুই বছর খেলবেন বিদায়ী অধিনায়ক, ‘শুধু একজন খেলোয়াড় না, একজন মানুষ হিসাবেও উনি দারুণ। একজন খেলোয়াড় হিসাবে হলেও তার খেলাটা চালিয়ে যাওয়া উচিত। তিনি যেভাবে বোলিং করে যাচ্ছেন, তাতে এখনো কমপক্ষে দুই বছর খেলার ক্ষমতা তার আছে। আমি তার শুভকামনা করি।’

দলের তরুণ ক্রিকেটার লিটন দাস অভিষেকের থেকেই অধিনায়ক হিসাবে পেয়েছেন মাশরাফিকে। মাশরাফি সিনিয়র হলেও দলের সবার সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ, খুনসুটি, মজায় দলের ড্রেসিংরুমকে মাতিয়ে রাখেন সে কথা আবারো শোনা গেল এই লিটনের মুখে।

‘উনার মর্যাদা আমার কাছে অনেক ওপরে। আমার যখন অভিষেক হয় তারপর থেকে উনার অধীনেই আমি খেলেছি। এই জিনিসটা আমার কাছে অনেক বড় পাওয়া। উনি সবসময় আমাদেরকে সমর্থন করেছেন, এখনো করছেন। এরকম অধিনায়ককে সবসময়ই মিস করব। উনি যে সিনিয়র সেটা বোঝা যায় না। আমরা সবাই বন্ধুর মতো থাকি। ড্রেসিংরুমেও অনেক মজা হয়,’ বলেন লিটন।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

অবসরের পর এসি সারাইয়ের কাজ করছেন রে প্রাইস

পর্ব ৩ : আ’ত্মহত্যায় চিরবিদায় নেওয়া ক্রিকেটাররা

ক্রিকেটভক্তদের আবারও দুঃসংবাদ দিল ভারত

নাসিরের শটে দাঁত ভাঙে মেথের, রান নিতে চাননি রিয়াদ

মনে পড়ে টাইবু, হোন্ডো ও মাতসিকেনেরিদের কথা?