Scores

বিশেষ এক ‘শর্তেই’ নাসিরের অবিশ্বাস্য ফর্ম

ধন্যবাদ জানালেন নাসির
গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের হয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ (ডিপিএল)-এর চলতি মৌসুমে অবিশ্বাস্য ফর্মে আছেন অলরাউন্ডার নাসির হোসেন। সাত ম্যাচ খেলে দুই সেঞ্চুরি আর তিন ফিফটিসহ করেছেন ৪৭৭ রান। এর ছয় ইনিংসেই অপরাজিত থাকায় গড় ৪৭৭।

এবারের প্রিমিয়ার লিগে নিজের চমক জাগানো ব্যাটিংয়ের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে এক বিশেষ ‘শর্তের’ কথা জানালেন নাসির, যার ফলে তার ব্যাটিং-এ এই অসাধারণ পরিবর্তন। কি সেই শর্ত?

‘গাজী ট্যাংকের সঙ্গে চুক্তি করার সময় আমি কোচ সালাউদ্দিন স্যারকে বলেছিলাম, স্যার, গাজীতে খেলতে পারি এক শর্তে। আমাকে চার নম্বরে ব্যাট করতে দিতে হবে। নইলে আমি খেলব না। স্যার তাতে রাজি হলেন।’

Also Read - 'আফ্রিদির বয়স বেড়েছে, বুদ্ধি বাড়েনি'


অর্থাৎ চার নম্বরে ব্যাটিং করার ফলেই ব্যাট হাতে রানের বন্যা বইয়ে দেবার সুযোগ পেয়েছেন তিনি, এমনটাই বিশ্বাস করেন নাসির। অরহচ বাংলাদেশ জাতীয় দলে সাত-আটে ব্যাট করে ‘ফিনিশার’ নাম কুড়িয়েছেন। কিন্তু সেই শিহরণ জাগানো ব্যাটিং ছেড়ে হঠাৎ কেন চারে চলে আসতে চাইলেন নাসির?

‘এর আগে পাঁচ-ছয়ে ব্যাটিং করে প্রিমিয়ার লিগের অনেক ম্যাচে ব্যাটিংই পাইনি। অনেক ম্যাচে সাত-আটেও খেলেছি। আমি নামার আগেই দল জিতে যায় বা খেলা শেষ হয়ে যায়। আর ওই জায়গায় নেমে বড় ইনিংস খেলার সুযোগও থাকে না। সে জন্যই এবার আগে থেকে ঠিক করেছি চারে খেলব,’ বলেন নাসির।

তিনি আরও জানান, , ‘গতবার আমার রানের গড় ছিল ৭৫-এর মতো। চার-পাঁচ ম্যাচে অপরাজিত ছিলাম। তিন-চারটিতে ব্যাটিং করারই সুযোগ পাইনি। এক শ মারতে পারিনি, ৯৭ ছিল সর্বোচ্চ ইনিংস। অথচ চারে নেমে এবার দুটো সেঞ্চুরি করেছি, কয়েকটা ফিফটি করেছি।’

অবশ্য এই মৌসুমে এত এত প্রাপ্তির পরও কিছু অপ্রাপ্তি থেকেই যাচ্ছে নাসিরের। যেমন লিগে অন্তত ৯০০ রান করার লক্ষ্যমাত্রা ছুঁতে না পারা, কিংবা লিগের সর্বোচ্চ রানসংগ্রাহক হতে না পারা। এতে অবশ্য নাসিরের নিজের কোন দায় নেই। মাঝে ইংল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড সফরে যাওয়ায় খেলতে পারেননি লিগের সব ম্যাচ, আর সেজন্যই অন্যদের তুলনায় কিছুটা পিছিয়ে পড়তে হয়েছে তাকে।

 

– জান্নাতুল নাইম পিয়াল, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম ডট কম

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

জহুরুলের ব্যাটে চড়ে মোহামেডানকে হারাল আবাহনী

নাফীসদের হারিয়ে মোহামেডানের বড় জয়

রেকর্ড গড়ে আবাহনীর জয়

ফরহাদ রেজার ঝড়ে বিধ্বস্ত খেলাঘর

‘মাশরাফি ভাইয়ের উইকেটটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল’