Scores

বিশ্বকাপের টিকিট পেল আফগানিস্তান

যে দল জিতবে সেই দলই পাবে বিশ্বকাপের টিকিট। ২০১৯ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের আয়ারল্যান্ড বনাম আফগানিস্তান ম্যাচের সমীকরণ ছিল এমন। দুই দলের জন্যই জয় ছিল অপরিহার্য। এ ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন ভাঙার যন্ত্রণায় পুড়িয়ে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে আফগানিস্তান।

ছবি : আইসিসি

হারারেতে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে আয়ারল্যান্ড। শুরু থেকে দুই ওপেনার উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড এবং পল স্টার্লিং খেলছিলেন দেখেশুনে। মন্থর গতিতে রান তুলছিলেন দুজন। আফগান বোলাররা উইকেট সিকার করতে না পারলেও আইরিশদের রানের গতি রেখেছিল নিয়ন্ত্রণে।

উদ্বোধনী জুটিতে পোর্টারফিল্ড এবং স্টার্লিং ৯২ বলে ৫৩ রানের জুটি গড়েন। তাদের জুটি ভাঙেন আফগান স্পিনার মোহাম্মদ নবী। মোহাম্মদ নবীর বলে ডাউন দ্যা উইকেটে এসে মিড-উইকেটের দিকে খেলতে গিয়ে ত্রিশ গজ বৃত্তের ভেতরে থাকা রহমত শাহ’র হাতে ক্যাচ তুলে দেন পোর্টারফিল্ড। ২ চারে ৪৫ বলে ২০ রান করেন তিনি। এরপর স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ১০৫ রানের ইনিংস খেলা অ্যান্ডি ব্যালবিরনিকে সাথে নিয়ে ২২ রান যোগ করেন স্টার্লিং।

Also Read - বিতর্কিত আম্পায়ারিং প্রসঙ্গে আইসিসির দ্বারস্থ বিসিবি


পোর্টারফিল্ডের বিদায়ের পর আরো মন্থর হয়ে যায় আয়ারল্যান্ডের ব্যাটিং। স্পিনার শরাফউদিন আশরাফ এবং রাশিদ খান চেপে ধরেন আয়ারল্যান্ডকে। তাদের জুটি ভাঙেন রাশিদ খান। ৩৪ বলে ১১ রানের এক ধীর গতির ইনিংস খেলে রাশিদের বলে উইকেটরক্ষকের  হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন ব্যালবিরনি।

তৃতীয় উইকেটের জুটিতে পল স্টার্লিং এবং নেইল ও’ব্রায়ান গড়েন ৪৪ রানের জুটি। অর্ধশতক পূর্ণ করেন স্টার্লিং। ৫৫ রানের ইনিংস খেলে দলীয় ১২১ রানের মাথায় রান আউট হন স্টার্লিং। তার ইনিংসে ছিল তিনটি চার। এ জুটি ভাঙার পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি নেইল ও’ব্রায়ান। ৪১ বলে ৩৬ রানের ইনিংস খেলে দৌলত জাদরানের বলে আউট হন নেইল ও’ব্রায়ান। ৪ চার ও ১ ছক্কা ছিল তার ইনিংসে।

স্টার্লিং ও নেইল ও’ব্রায়ানের বিদায়ের পর রানের গতি আবারো কমে যায় আয়ারল্যান্ডের। ৩০ বলে ১৫ রান করে রাশিদ খানের বলে আউট হন সিমি সিং। এরপর হাল ধরেন কেভিন ও’ব্রায়ান। গ্যারি উইলসনকে সাথে নিয়ে যোগ করেন ৪৫ রান। ৩ চার ও ১ ছক্কায় ৩৭ বলে ৪১ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলে রাশিদ খানের বলে বোল্ড হন কেভিন। গ্যারি উইলসন ও অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন করেন ১১ রান করে।

আয়ারল্যান্ডের ৭ উইকেটে ২০৯ রানের জবাব দিতে নেমে শুরুটা দারুণ হয় আফগানিস্তানের। দলকে জয়ের ভিত গড়ে দেন দুই ওপেনার। মোহাম্মদ শাহজাদ এবং গুলদাবিন নাইব যেন বেঁধে দিয়ে যান সুর। রানের চাকা ছিল সচল, দৃঢ় ওপেনিং জুটি। আফগানিস্তান হাঁটছিল সঠিক পথ ধরেই।

ওপেনিং জুটিতে ৮৬ রান করে আফগানিস্তান। ৫০ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলেন শাহজাদ। তাকে ফিরিয়ে দিয়ে উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন সিমি সিং। রহমত শাহকে নিয়ে আরো ২৭ রান যোগ করেন গুলদাবিন নাইব। ২৩ বলে ১২ রান করে ফিরে যান রহমত শাহ। তাকে দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন সিমি সিং। এরপর বেশিক্ষণ টিকেননি নাইব। ৯১ বলে ৪৫ রান করে র‍্যাঙ্কিনের বলে ম্যাকব্রাইনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান নাইব।

১১৭ রানে তিন উইকেট হারানোর পর মোহাম্মদ নবীকে সাথে নিয়ে এগিয়ে যান সামিউল্লাহ শেনওয়ারি। এ জুটি দীর্ঘ হতে দেননি সিমি সিং। ২৪ বলে ১২ রান করে সিমির তৃতীয় শিকার হন মোহাম্মদ নবী। সামিউল্লাহ শেনওয়ারি এবং আসগর স্টানিকজাই পঞ্চম উইকেটে ৩৬ রান যোগ করে লড়াই চালিয়ে যান। শেনওয়ারি ছিলেন মন্থর। ৬৩ বলে ২২ রান করে ম্যাকার্থির বলে ক্যাচ দেন উইলসনের হাতে।

শেষ চার ওভারে আফগানিস্তানের প্রয়োজন ছিল ২০ রান। দারুণ বোলিং করেন র‍্যাঙ্কিন। মাত্র চার রান দেন তিনি। পরের ওভারের  প্রথম চার বলে মাত্র ২ রান দিয়ে টিম মুরটাগ আইরিশদের আশা বাঁচিয়ে রাখেন। তবে পঞ্চম বলে মিড উইকেটের ওপর দিয়ে বিশাল ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ নিজেদের অনুকূলে নিয়ে আসেন আফগান ব্যাটসম্যান নাজিবুল্লাহ জাদরান। ৪৯ তম ওভারে র‍্যাঙ্কিন ৬ রান দিলে শেষ ওভারে বিশ্বকাপ থেকে মাত্র এক রান দূরে ছিল আফগানিস্তান।

ম্যাকার্থির ইয়োর্কার স্টানিকজাইয়ের ইনসাইড এজ হয়ে বাউন্ডারি পার হলে জয়সূচক রান পায় আফগানিস্তান। মেতে উঠে উল্লাসে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ আয়ারল্যান্ড ২০৯/৭, ৫০ ওভার
স্টার্লিং ৫৬৫, কেভিন ও’ব্রায়ান ৪১, নেইল ও’ব্রায়ান ৩৬
রাশিদ ৩/৪০, দৌলত ২/৫৪, নবী ১/৪৮

আফগানিস্তান ২১৩/৫, ৪৯.১ ওভার
শাহজাদ ৫৪, নাইব ৪৫, স্টানিকজাই ৩৯*,
সিমি সিং ৩/৩০, র‍্যাঙ্কিন ১/৪১, ম্যাকার্থি ১/৫৭


আরো পড়ুনঃ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি নিয়ে আইসিসির সঙ্গে দ্বন্দ্ব ভারতের 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

সুপার সিক্সে আফগানদের কাছে উড়ে গেলো উইন্ডিজ

দুই ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ আফগানিস্তানের শাহজাদ

পিএসএলের জন্য বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দলে নেই ব্রাভো-নারিনরা