Score

বিশ্বকাপের দল গঠনের প্রক্রিয়া চলছে!

এশিয়া কাপের সফল ট্যুর শেষ করে রাতে (২৯ সেপ্টেম্বর) ফিরেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা তৈরী করলেও শেষ বলে হেরে গেছে টাইগাররা। এদিকে পুরো এশিয়া কাপ জুড়েই একাদশ নিয়ে অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছিল বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট। দেশে ফিরে এই বিষয়ে কথা বলেছেন টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজা। 

 

 

Also Read - বাবা হলেন ইমরুল কায়েস

পুরো টুর্নামেন্টে টাইগারদের মাথা ব্যথার কারণ ছিল ওপেনিং জুটি। তামিম না থাকায় শুরুতে যেন রানই পাচ্ছিলো না বাংলাদেশ। লিটন-শান্ত জুটিতে হতাশা ছাড়া কিছু আসে নি। তাই ফাইনালে লিটনের সঙ্গী করে পাঠানো হয় মেহেদি হাসান মিরাজকে। ওপেনিং জুটিতে আসে ১২০ রান। তবে মিডিল অর্ডার আর লোয়ার অর্ডারের ব্যর্থতায় এমন বড় সূচনা ভালো স্কোরে রূপ নেয় নি।

এ নিয়ে কিছুটা হতাশ মাশরাফি। কখনো শিরোপা না জেতার চাপ নিতে পারছেন না ক্রিকেটাররা, এমনটি ভাবনা অধিনায়কের মনে। মাশরাফি বলেন, “আমার কাছে মনে হয়, একবার পারলে জিনিসটা সহজ হতো। কারণ, শুরুটা যেভাবে হয়েছিল, মনে হয়নি কেউ নার্ভাস। কিন্তু মিডিল অর্ডারে ব্যাটিং দেখে মনে হয়েছে কিছুটা নার্ভাস অনুভব করছে। চাপে শট খেলেছিল। সেই সময় শট না খেলে দাঁড়িয়ে থাকলে হয়তো ২৬০-২৭০ রান সহজে হয়ে যেত।মানসিকভাবে সেই সময় ক্রিকেটাররা নার্ভাস ছিলেন। এই জায়গাটা পার করার জন্য একটা টুর্নামেন্টে জেতা জরুরী। সামনে আরও বড় বড় টুর্নামেন্ট জেতা সম্ভব। “

টুর্নামেন্টে ছিলেন না ফর্মের তুঙ্গে থাকা তামিম ইকবাল। প্রথম ম্যাচেই ইনজুরিতে পড়েন তামিম। এদিকে হাতের ইনজুরি নিয়ে টুর্নামেন্ট খেললেও শেষের দুই ম্যাচে ছিলেন না সাকিব।  এই দুই ক্রিকেটার থাকলে কি শিরোপা জয়ের স্বাদ পেত বাংলাদেশ? এমন প্রশ্নে মাশরাফির উত্তর,”বলা খুব কঠিন। এর আগে (সাকিব-তামিম) ওরা থাকার পরও জিততে পারিনি (এশিয়া কাপ)। ওরা না থাকার পরও এবার যেভাবে লড়েছি, এটা অনেক বড় ব্যাপার। সামনে ওরা যোগ হলে চিত্রটা অন্য রকম হতে পারে।”

এদিকে এশিয়া কাপ থেকে টাইগারদের বিশ্বকাপের দল গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিন্তু নিউজিল্যান্ড সফর থেকে তা পুরোদমে শুরু হবে। এই বিষয়ে মাশরাফি বলেন, “বিশ্বকাপের এখনও ৮-১০ মাস বাকি। এর আগে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ আছে। কে থাকবে আর কে থাকবে না, এখনি বলা কঠিন। তবে একটা প্রক্রিয়া চলছে। নিউজিল্যান্ড সিরিজ থেকেই পুরোদমে তা শুরু হবে। একটা নির্ধারিত দল গঠন করা অনেক জরুরী।”

[আরও পড়ুনঃ “৪০% জরিমানা খেয়েছি, আর খাবার ইচ্ছে নেই”]

Related Articles

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি