বিশ্বকাপের পর মাঠে গড়াবে টি-টেন লিগ

ক্রিকেটের আধুনিকায়নের ফল হিসেবে টি-টোয়েন্টির পর এসেছে টি-টেন ক্রিকেট। দশ ওভারের ইনিংসের এই খেলায় ধুমধাড়াক্কা চার-ছক্কায় মেতে ওঠেন ক্রিকেটাররা। টি-টেন ক্রিকেটকে জনপ্রিয় করে তোলার পেছনে বড় অবদান আবু ধাবি টি-টেন লিগের।

নাসিরের দলের লজ্জাজনক হার
বিগত আসরে পুনে ওয়ারিয়র্সকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন নাসির হোসেন। ফাইল ছবি

আবু ধাবি টি-টেন লিগের নতুন সংস্করণ মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর। নভেম্বরে শুরু হয়ে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে শেষ হবে টুর্নামেন্টটি, নিশ্চিত করেছে আবু ধাবি টি-টেন লিগ কর্তৃপক্ষ।

Advertisment

টি-টোয়েন্টি লিগের জনপ্রিয়তার পর টি-টেন লিগ আয়োজন করে চমক দেখিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিত্বকারী দল নিয়ে ক্রিকেট বিশ্বে অর্জন করেছে জনপ্রিয়তা। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশি মালিকানাধীন একটি দলও অংশ নেয় বাংলা টাইগার্স নামে।

এর আগে টি-টেন লিগের চারটি আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে। পঞ্চম সংস্করণ শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর, আগামী ১৯ নভেম্বর। আসরের পর্দা নামবে ৪ ডিসেম্বর। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৫০তম জাতীয় দিবস উদযাপনের জন্য এবার টুর্নামেন্টের ব্যাপ্তি একটু বাড়ানো হয়েছে। আগের দুই আসর অল্প সময়ের মধ্যে সম্পন্ন হয়েছিল।

মূলত আন্তর্জাতিক তারকাদের অংশগ্রহণের জন্য বিশ্বকাপের পরপরই সূচি নির্ধারণ করা হয়েছে। এ সময় দলগুলোর আন্তর্জাতিক ব্যস্ততা কম থাকবে। তাই বিশ্বের জনপ্রিয় ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণের সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে ভারতের নাজুক করোনা পরিস্থিতির কারণে বিশ্বকাপ আয়োজন শঙ্কায় পড়েছে। সেক্ষেত্রে বিকল্প ভেন্যু হিসেবে ভাবা হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের কথা। বিশ্বকাপ ভারতে না হলে আরব আমিরাত বিশ্বকাপের পর কোয়ারেন্টিনের ঝামেলা ছাড়াই টি-টেন লিগে পাবে বিদেশি তারকাদের।

টি-টেন লিগের চতুর্থ আসর মাঠে গড়ায় গত জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে। সেই আসরে অংশ নিয়েছিলেন এক ঝাঁক বাংলাদেশি ক্রিকেটার। আফিফ হোসেন ধ্রুব,, সোহাগ গাজী, মনির হোসেন ও মুক্তার আলীর সাথে ছিলেন দুই তারকা নাসির হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, যারা আসরে অধিনায়কের ভূমিকাও পালন করেছেন।