Scores

বিশ্বকাপে বিশেষ নজর থাকবে সাকিব-রাসেলদের ওপর

দলে একজন অলরাউন্ডার থাকা মানে একাদশে একজন বোলার বা ব্যাটসম্যান পাওয়ার বাড়তি সুবিধা। বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরে ব্যাটে-বলে কাদের ওপর বিশেষ নজর থাকবে তা দেখে নেয়া যাক একনজরে।

আন্দ্রে রাসেল: এবারের বিশ্বকাপের আসর জুড়েই সবার নজর থাকবে এই উইন্ডিজ অলরাউন্ডারের ওপর। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) ব্যাট হাতে প্রতি ম্যাচেই ঝড় তুলছেন। বিশ্বকাপে যে দলের জন্য রাসেল কতটা গুরুত্ব তা বোঝাতেই দেশটির সাবেক ক্রিকেটার লারা বলেছিলেন, ‘একাদশ সাজানো হোক রাসেল ও বাকি যেকোনো ১০ জনকে নিয়ে’

Also Read - আইরিশ শিবিরে সাকিবের আঘাত


সাকিব আল হাসান: বরাবরের মতোই বাংলাদেশ দলের বড় আস্থার প্রতীক হিসেবেই এবারের বিশ্বকাপেও খেলবেন সাকিব। ইনিংসের শুরুতে কিংবা ডেথ ওভারে বোলিং করা ক্ষমতা নিয়ে বুদ্ধিদীপ্ত বোলিংয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারদর্শী তিনি। টপ-মিডল অর্ডারে ব্যাটিংয়েও বড় ভরসা সাকিব। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ও রানের মালিক সাকিবের ওপর তাই বাড়তি নজর থাকবে।

সাকিব আল হাসান

রশিদ খান: এই আফগান ক্রিকেটার খুব দ্রুতই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। লেগ স্পিনে ব্যাটসম্যানদের ঘায়েল করার মন্ত্রটা ভালোই জানেন। ব্যাট হাতেও শেষের দিকে ঝড় তোলার ক্ষমতা রাখেন রশিদ।

 

গ্লেন ম্যাক্সওয়েল: অজি তারকা ম্যাক্সওয়েল ব্যাট হাতেই বেশি উজ্জ্বল। তবে বল হাতেও অফ স্পিনে গুরুত্ব সময়ে এনে দেন ব্রেক থ্রু। দ্রুতগতিতে রান তুলতে পারা ম্যাক্সওয়েল অস্ট্রেলিয়ার সফলতার অন্যতম চাবিকাঠি হিসেবে ভূমিকা রাখবেন দ্বাদশ বিশ্বকাপে।

বেন স্টোকস: ঘরের মাঠের খেলায় স্টোকসের প্রতি বাড়তি চাওয়া থাকবে ইংলিশ সমর্থকদের। এই পেস বোলিং অলরাউন্ডারের আইপিএল মৌসুমটা খুব একটা ভালো কাটেনি। তবে স্বাগতিকদের এক্স-ফ্যাক্টর হতে পারেন তিনি।

হার্দিক পান্ডিয়া: ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) ঝড়ো ইনিংস খেলে আলোচনায় এসেছেন পান্ডিয়া। ভারতের এই পেস বোলিং অলরাউন্ডারের রয়েছে দ্রুত রান তোলা ও প্রয়োজনীয় মুহূর্তে ব্রেক-থ্রু এনে দেয়ার সামর্থ্য।

 

হার্দিক পান্ডিয়া

জেসন হোল্ডার: উইন্ডিজ দলের অধিনায়ক হোল্ডার ব্যাটে-বলে সমান তালে লড়ে যেতে পারেন দলের জন্য। সম্প্রতি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট দ্বি-শতক হাঁকানো এই ক্যারিবিয়ান আত্মবিশ্বাসী বিশ্বকাপেও দলের জয়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে।

থিসারা পেরেরা: লঙ্কান পেস বোলিং অলরাউন্ডার পেরেরা দলের অন্যতম ভরসা। দ্রুত টপ অর্ডারের উইকেট হারানোর পরে পেরেরা একাই দলকে টেনে তোলার উদাহরণ আছে। বল হাতেও ব্যাটসম্যানদের দমিয়ে রাখার সামর্থ্য আছে এই লঙ্কানের।

শোয়েব মালিক: পাকিস্তানি অলরাউন্ডার মালিকের ক্যারিয়ারের শেষ ব্যাটসম্যান হতে যাচ্ছে এটি। সময়ের হিসেবে তিনিই এই বিশ্বকাপের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। কারণ বিংশ শতাব্দীতে ওয়ানডে হওয়া একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে তিনি এবারের বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন। তাই ভালো কিছু পেতে অভিজ্ঞ মালিকের দিকে থাকবে পাকিস্তান।

জিমি নিশাম: অফ ফর্মের কারণে দল থেকে বাদ পড়ার পর গত বছর অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন নিশাম। তবে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলে আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়া এই কিউই ক্রিকেটার আবার জাতীয় দলে ফেরেন এই বছরের শুরুতে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দারুণ ইনিংস খেলে দলে জায়গা পাকাপোক্ত করেন আবারো। নতুন করে ক্যারিয়ার শুরু করা নিশামের দিকেও তাই নজর রাখবে।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ড্রেসিংরুমের ভেতরের কথা বাইরে না যাওয়াই ভালো: মুশফিক

উইলিয়ামসনের সেই রান আউট হাতছাড়া নিয়ে মুখ খুললেন মুশফিক

সাকিবও বলছেন— মাশরাফির নিষ্প্রভতায় পিছিয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ

নিজের জন্য নয়, দেশের জন্যই খেলি: সাকিব

নিশামকে একমাস তাড়া করেছে ফাইনালের দুঃস্বপ্ন!