বিশ্বকাপ টিম প্রিভিউ : আয়ারল্যান্ড

0
253

নিজেদের ৬ষ্ঠ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ড। দুটো প্রস্তুতি ম্যাচ জিতে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে রয়েছে আয়ারল্যান্ড। তাই এবার আগেরবারের রেকর্ডও ছাপিয়ে যেতে চাইবে তারা।

প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসের অনেক উঁচুতে রয়েছে আইরিশদের। ছবি : এএফপি

ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কঠিন গ্রুপে পড়েছে আয়ারল্যান্ড। গ্রুপ ‘এ’ তে ফেভারিট হিসেবে রয়েছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। এছাড়াও এই গ্রুপে রয়েছে নেদারল্যান্ডসের মতো শক্তিশালী দলও। নিয়ম অনুযায়ী দুই গ্রুপ থেকে সর্বমোট চারটি দল কোয়ালিফাই করবে সুপার টুয়েলভে।

Advertisment

ঐ গ্রুপে শ্রীলঙ্কা ও নেদারল্যান্ডসের পাশাপাশি মুখোমুখি হতে হবে নামিবিয়ারও। যে কারণে এবারের বিশ্বকাপে চ্যালেঞ্জটা অনেক বেশি। তবে বিশ্বকাপের মূল লড়াইয়ের আগে নিজেদের প্রস্তুতি বেশ ভালোভাবে সেরেছে আইরিশরা। পাপুয়া নিউ গিনি ও বাংলাদেশকে হারিয়েছে তারা। যে কারণে কঠিন গ্রুপে পড়লেও একটু আত্মবিশ্বাস পাচ্ছেন দলটির অধিনায়ক অ্যান্ডি বালবির্নি।

“বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে আমাদের ফলাফল ভালো ছিল। যে কারণে দলের আত্মবিশ্বাস অনেক উঁচুতে।”

“আশা করছি পরের সপ্তাহে তিনটি ভালো পারফরম্যান্স দিতে পারব। যদি তা আমরা করি তবেই আমরা সফল হতে পারব অন্যথায় ঘরে ফেরার জন্য সবার আগে বিমান ধরতে হবে আমাদের।”

বড় দায়িত্ব রয়েছে বালবির্নি ও স্টার্লিংয়ের কাঁধে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের সর্বোচ্চ সাফল্য এসেছে ২০০৯ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। সেবার আইরিশদের প্রতিপক্ষ ছিল ভারত ও বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে জিততে না পারলেও বাংলাদেশকে হারিয়ে ‘সুপার ৮-এ’ উঠেছিল আয়ারল্যান্ড। তবে পরবর্তীতে সব ম্যাচই হেরেছে আইরিশরা।

ম্যাচের দিক দিয়ে সবচেয়ে ভালো করেছে ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। ৩ ম্যাচের মধ্যে ২টিতেই জিতেছিল তারা। তবে নেদারল্যান্ডসের চেয়ে নেট রান রেটে পিছিয়ে থাকায় সেবারও পরের রাউন্ডে কোয়ালিফাই করতে পারেনি আয়ারল্যান্ড।

পরের বিশ্বকাপেও গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়তে হয় আয়ারল্যান্ডকে। তিন ম্যাচের, দুটিতেই হেরেছে তারা। যে কারণে এবার আগেরবারের চেয়ে ভালো করার লক্ষ্য নিয়েই বিশ্বকাপ খেলতে গেছে আয়ারল্যান্ড।

দলের শক্তি ও দুর্বলতা – 

দলটির শক্তির জায়গা টপ অর্ডাররা। ব্যাটারদের মধ্যে সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার পল স্টার্লিং। আইরিশদের জার্সি গায়ে ৮৯ ম্যাচ খেলে করেছেন ২৪৯৪ রান। ১৯ ফিফটির পাশাপাশি রয়েছে একটি সেঞ্চুরিও। বিশ্বকাপে ভালো করতে এ ব্যাটারের দিকে তাকিয়ে থাকলে আয়ারল্যান্ড।

বিশ্বকাপে ভালো করতে তার দিকে তাকিয়ে থাকবে আয়ারল্যান্ড। ছবি : এএফপি

দলে রয়েছেন আরও দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার অ্যান্ডি বালবির্নি ও কেভিন ও’ব্রায়েন। ৫৪ ম্যাচ খেলা দলীয় অধিনায়কের রান ১১০৯। অন্যদিকে আইরিশদের এ স্কোয়াডে সবচেয়ে অভিজ্ঞ কেভিন ও’ব্রায়েন। ১০৭ ম্যাচ খেলছেন তিনি। যার মধ্যে রান করেছেন ১৯৩৪, রয়েছে পাঁচটি ফিফটিও। বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের ভালো করতে হলে জ্বলে উঠতে হবে তাঁদের।

দলটির দুর্বলতার জায়গা মিডল অর্ডার। মিডল অর্ডারে স্পিনারদের নিশানা হতে পারেন জর্জ ডকরেল ও হ্যারি টেক্টর। যেদিন টপ অর্ডাররা ব্যর্থ হবেন সেদিন এই জায়গা নিয়ে একটু দুশ্চিন্তা থাকবে আইরিশদের।

আগামী ১৮ অক্টোবর নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করবে আয়ারল্যান্ড। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচটি খেলবে ২০ অক্টোবর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচটি খেলবে ২২ অক্টোবর, নামিবিয়ার বিপক্ষে।

বিশ্বকাপের জন্য আয়ারল্যান্ডের ‘১৫’ সদস্যের দল –

অ্যান্ডি বালবার্নি (অধিনায়ক), মার্ক অ্যাডায়ার, কার্টিস ক্যাম্ফার, গ্যারেথ ডেলানি, জর্জ ডকরেল, জস লিটল, অ্যান্ড্র ম্যাকব্রিন, কেভিন ও’ব্রায়েন, নেইল রক, সিমি সিং, পল স্টার্লিং, হ্যারি টেক্টর, লরকান টাকার, বেন হোয়াইট ও ক্রেইগ ইয়াং।

রিজার্ভ প্লেয়ার – শেন গেটকেট, গ্রাহাম কেনেডি, ব্যারি ম্যাকার্থি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।