বিসিবি একাদশের বিশাল লিড

ডক্টর (ক্যাপ্টেন) কে. থিম্মাপ্পিয়াহ মেমোরিয়াল টুর্নামেন্টে কর্ণাটক স্টেট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের বিপক্ষে ২৫৫ রানের  বিশাল লিড পেয়েছে বিসিবি একাদশ। প্রতিপক্ষকে ৭৯ রানে অলআউট করে দেওয়ার পর ৩৩৪ রান করেছে বিসিবি একাদশ।

বিসিব একাদশের বিশাল লিড

দলীয় ৬ রানের মাথায় বিদায় নিয়েছিলেন সাইফ হাসান। ভিদওয়াথের বলে বিনয় সাগরকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান সাইফ। ৩ রান করেন তিনি। বড় স্কোর গড়তে পারেননি অধিনায়ক মুমিনুল হকও। ৩৭ বল ১০ রান করে আনন্দ দোদ্দামানির বলে নাগা ভারতের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন মুমিনুল। এরপর জহুরুল ইসলাম এবং ওপেনার সাদমান ইসলাম মিলে যোগ করেন ৫১ রান। ৯৩ বলে ৫৯ রান করা সাদমানকে বোল্ড করে এ জুটি ভাঙেন দেভাইয়াহ। তার ইনিংসে ছিল ৯ চার আর ১ ছক্কা।

Also Read - ‘ভালোর কোন শেষ নেই’


এরপর নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে আরো ৪১ রান তুলেন জহুরুল। তিনিও ফিরেন দেভাইয়ার বলে বোল্ড হয়ে। ২৮ রান আসে তার ব্যাট থকে। ইয়াসির আলি আর নাজমুল হোসেনের ৫১ রানের জুটিটা ভাঙেন প্রবীন ডুবে। ৪৭ বলে ১৬ রান করেন ইয়াসির। ১৮৭ রানের মাথায় পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটে বিসিবি একাদশের।

দলীয় ২০৬ রানের মাথায় ৭২ রান করে শান্ত রান আউট হলে বাংলাদেশের বড় স্কোরের সম্ভাবনা ফিকে হয়ে যায়। এক রান করে প্রবীন ডুবের বলে বিদায় নেন আরিফুল হক। সেখনা থেকে হাল ধরেন কাজী নুরুল হোসেন। সঙ্গী ছিলেন সানজামুল ইসলাম। তাদের ৭৭ রানের জুটিতে ভর করে ৩০০ রানের পথে হাঁটে বিসিবি একাদশ। ৮৭ বলে ৬৮ রানের চমৎকার ইনিংস খেলেন নুরুল হোসেন। সানজামুল করেন ৩৩ রান।


শেষদিকে শহীদুল ইসলামের ২৪ রানে ভর করে ৩৩৪ রানের পুঁজি পায় বিসিবি একাদশ। কর্ণাটক স্টেট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের হয়ে চার উইকেট নেন আনন্দ দোদ্দামানি। দুইটি করে উইকেট পান প্রবীন ডুবে আর দেভাইয়াহ।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ইবাদত হোসেনের বোলিং তোপে পড়েছে কর্ণাটক স্টেট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন।  জোড়া আঘাত হেনেছেন ইবাদত। এ প্রতিবেদন লেখার আগ পর্যন্ত তাদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৫৯। এখনো পিছিয়ে আছে ১৯৬ রানে।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন