বুমরাহর কাছে ক্ষমা চাইল জয়পুর ট্রাফিক পুলিশ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুমরাহর কাছে ক্ষমা চাইল জয়পুর ট্রাফিক পুলিশ

 

এক নো বলই যেন গুঁড়িয়ে দিয়েছিল ভারতের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জয়ের আশা। গত রবিবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে পাকিস্তানের ফখর জামানকে শুরুতেই আউট করেছিলেন জসপ্রিত বুমরাহ। কিন্তু টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, বলটি ছিল নো বল।

Also Read - ডারউইনে 'বাংলাদেশী কন্ডিশনে' ক্যাম্প করবে অস্ট্রেলিয়া

৩ রানে জীবন পাওয়া ফখর ১১৪ রানের ইনিংস খেলে পাকিস্তানের রানের পাহাড় গড়েন। সেই রান তাড়া করতে নেমে বড় পরাজয়ের সাক্ষী হতে হয় ভারতকে।

‘অভিপপ্ত’ ওই নো বলেই শেষ ভারতের স্বপ্ন। আর সেটিরই ফায়দা লুটেছে জয়পুর ট্রাফিক পুলিশ। বুমরাহর নো বলকে বিজ্ঞাপন হিসেবে ব্যবহার করে তারা বিলবোর্ডে লিখেছে,‘লাইন অতিক্রম করবেন না। আপনি জানেন এটি ব্যয়বহুল হতে পারে।’ বুমরাহর বল ছোঁড়ার অ্যাকশন বিলবোর্ডের ছবিতে ব্যবহার করা হয়েছে। গোল চিহ্ন করে লাইন অতিক্রম না করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টি নিয়ে বেশ ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েন বুমরাহ। পরপর দুটি টুইট করে বুমরাহ লেখেন,‘খুব ভালো জয়পুর পুলিশ। দেশের হয়ে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে সেরাটা দেওয়ার পর কতটা সম্মান একজন পেতে পারে।’ দ্বিতীয় টুইটে লিখেন,‘চিন্তা করবেন না। কেউ ভুল করলে আমি সেটা নিয়ে কটাক্ষ করি না। কারণ মানুষ মাত্রই ভুল করে।’

বুমরাহর কাছ থেকে এমন কঠিন প্রতিবাদে বোধহয় কিছুটা হলেও সুবুদ্ধি হয়েছে জয়পুর ট্রাফিক পুলিশ কর্তৃপক্ষের। বুমরাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করেছে তারা। পাশাপাশি বুমরাহকে ভারতের ‘তারুণ্যের প্রতীক’ হিসেবেও আখ্যা দিয়েছে তারা।

 

টুইটারে তারা লেখে, ‘প্রিয় বুমরাহ, আমাদের উদ্দেশ্য ছিল না আপনার বা ভারতের লক্ষ লক্ষ ক্রিকেট ভক্তের অনুভূতিতে আঘাত হানা। আমরা শুধু ট্রাফিক আইনের ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে চেয়েছি। আপনি তারুণ্যের প্রতীক এবং আমাদের সকলের অনুপ্রেরণার উৎস।’

তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষমা চাইলেও, বিতর্কিত বিলবোর্ডটি তারা নামিয়ে ফেলেছে, নাকি সেটা এখনও বহাল তবিয়তে রয়েছে, সে ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।

 

– জান্নাতুল নাঈম পিয়াল, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম ডট কম