Scores

বোলারদের নৈপুণ্যে প্রথম দিন পাকিস্তানের

লর্ডস টেস্টে প্রথম দিনজুড়ে ছিল সফরকারী পাকিস্তানের আধিপত্য। ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা ছিলেন আসা-যাওয়ার মধ্যে। দৃঢ়তা দেখিয়েছেন শুধু অ্যালিস্টার কুক। মোহাম্মদ আব্বাস আর হাসান আলি- দুই পেসার মিলে যেন গুঁড়িয়ে দিয়েছেন ইংল্যান্ডের ব্যাটিং অর্ডার। এ দুই বোলারের দাপটে লর্ডস টেস্টের প্রথম দিনশেষে চালকের আসনে পাকিস্তান। 

টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ডের অধিনায়ক জো রুট। তবে তার সিদ্ধান্ত সঠিক প্রমাণ করতে পারেননি ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা। শুরু থেকেই পাকিস্তানের বোলারদের সুইং সামলাতে ধকল যাচ্ছিল ইংলিশদের ওপর। উইকেটের সবুজ ভাবকে যেন দারুণভাবে কাজে লাগাচ্ছিলেন পেসার মোহাম্মদ আব্বাস। শুরুতেই ধাক্কা খায় স্বাগতিকরা। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে মোহাম্মদ আব্বাসের বলে বোল্ড হন ওপেনার মার্ক স্টোনম্যান। দলীয় ১২ রানের মাথায় বিদায় নেন স্টোনম্যান। মাত্র চার রান করেন তিনি। ৪ রান করে ফিরে যান জো রুটও। হাসান আলির বলে উইকেটরক্ষক সরফরাজ আহমেদের হাতে ক্যাচ তুলে দেন জো রুট।

বেশিক্ষণ টিকেননি ডেভিড মালানও। মাত্র ৬ রান করে হন হাসান আলির শিকার। ৪৩ রানেই তিন উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। টানা টেস্ট খেলার রেকর্ডে অ্যালান বর্ডারকে স্পর্শ করার ম্যাচে এক প্রান্ত আগলে রেখেছিলেন অ্যালেস্টার কুক। চতুর্থ উইকেটে তিনি হাল ধরেন জনি বেয়ারস্টোকে নিয়ে। গড়ে তোলেন ৫৭ রানের জুটি। তাদের জুটি ভাঙেন ফাহিম আশরাফ। ৫৯ বলে ২৭ রান করে ফাহিম আশরাফের বলে বোল্ড হন বেয়ারস্টো।

Also Read - দুই সপ্তাহের মধ্যেই নাসিরের অস্ত্রোপচার


এক প্রান্তে ব্যাটসম্যানরা পাকিস্তানের বোলারদের সামনে দৃঢ়তার পরিচয় না দিতে পারলেও অ্যালেস্টার কুক করেন স্বভাবসুলভ ব্যাটিং। ইনিংসের সর্বোচ্চ রানও তিনিই করেন। পাকিস্তানের বোলারদের ভালোই সামাল দেন। কিন্তু ভুগেন সঙ্গীর অভাবে। তিনি ছাড়া ইংল্যান্ডের কোনো ব্যাটসম্যান অর্ধশতক পার করতে পারেননি। বেয়ারস্টো আর স্টোকস থিতু হলেও গড়তে পারেননি বড় স্কোর।

এরপর স্টোকসকে সাথে নিয়ে আরো ৪৯ রান যোগ করেন কুক। ১৪ চারের সাহায্যে ১৪৮ বলে ৭০ রান করা কুক বোল্ড হন আমিরের বলে। লোয়ার অর্ডারের কেউ দাঁড়াতে পারেননি। তারাও যেন অনুসরণ করেন টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের পদাঙ্ক।

মাত্র ৩৫ রান তুলতেই পড়ে যায় শেষ ছয় উইকেট। ৩৮ রান করে মোহাম্মদ আব্বাসের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন স্টোকস। পরের ওভারে হাসান আলি ফিরিয়ে দেন জস বাটলারকে। ডমিনিক বেস, মার্ক উড আর স্টুয়ার্ট ব্রডও অসহায় আত্মসমর্পণ করেন হাসান আলি আর মোহাম্মদ আব্বাসের কাছে। মাত্র ১৮৪ রান করেই অলআউট হয়ে যায় ইংল্যান্ড। তাদের ইনিংসে ছিল না কোনো শতরানের জুটি।

পাকিস্তানের বোলারদের মধ্যে হাসান আলি আর মোহাম্মদ আব্বাস মিলে ইংল্যান্ডের আট উইকেট শিকার করেন। চারটি করে উইকেট পান মোহাম্মদ আব্বাস ও হাসান আলি। একটি করে উইকেট শিকার করেন মোহাম্মদ আমির এবং ফাহিম আশরাফ।

১৮৪ রানের জবাবটা দিতে নেমে অবশ্য পাকিস্তানের শুরুটাও ভালো হয়নি। ইংল্যান্ডের মতো তারাও তাদের প্রথম উইকেট হারায় ১২ রানের মাথায়। ১৬ বলে ৪ রান করে স্টুয়ার্ট ব্রডের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ইমাম-উল-হক। অবশ্য দিনের বাকি সময়টা নিরাপদেই কাটিয়ে দেন ওপেনার আজহার আলি এবং হারিস সোহেল। ষষ্ঠ ওভার থেকে ২৩ ওভার পর্যন্ত কোনো উইকেটের পতন ঘটতে দেননি দুজন। দিনশেষে এক উইকেটে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৫০ আজহার আলি ১৮ এবং হারিস সোহেল অপরাজিত আছেন ২৫ রান করে।

দ্বিতীয় দিন ইংলিশ বোলারদের সামনে দুর্দান্ত পারফর্ম করে ইংল্যান্ডকে লড়াইয়ে টিকিয়ে রাখার চ্যালেঞ্জ। অন্যদিকে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানদের কাজটা সহজ করে দিয়েছে বোলাররা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর ঃ ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস ১৮৪/১০
কুক ৭০, স্টোকস ৩৮, বেয়ারস্টো ২৭
আব্বাস ৪/২৩, হাসান আলি ৪/৫১

পাকিস্তান ১ম ইনিংস, ৫০/১, ২৩ ওভার
হারিস ২১*, আজহার ১৮*, ইমাম-উল-হক ৪
ব্রড  ১/১০


আরো পড়ুন ঃ টানা টেস্ট খেলার রেকর্ড ছুঁলেন কুক


 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে একক আধিপত্য ভারতের

ইনিংস ব্যবধানে জিতে প্রোটিয়াদের হোয়াইটওয়াশ করল ভারত

ইডেনে আমন্ত্রিত প্রথম টেস্টের সবাই, বেল বাজাবেন শেখ হাসিনা

তিন সিনিয়রকে বাদ দিয়েই পাকিস্তানের স্কোয়াড ঘোষণা

ভারতের বিরুদ্ধে অব্যবস্থাপনার অভিযোগ এলগারের