Scores

ব্যবসা করি নিজের ইচ্ছায়, সমালোচনা কেয়ার করি না : আকরাম

সাম্প্রতিক সময়ে একাধিকবার সমালোচনার মুখে পড়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগ। এই বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান অবশ্য জানালেন, এসব সমালোচনা নিয়ে মাথা ঘামান না তিনি।

ব্যবসা করি নিজের ইচ্ছায়, সমালোচনায় আই ডোন্ট কেয়ার আকরাম

সমালোচনার শুরুটা করেছিলেন সাকিব আল হাসান। ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের চেয়ারম্যান আকরামকে নিয়ে বলেছিলেন, সাকিবের ছুটি চেয়ে পাঠানো চিঠি নাকি তিনি ঠিকমত পড়েননি। এর কয়েকদিন পর গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

Also Read - সবচেয়ে বেশি শূন্যের 'জোড়া রেকর্ড' গড়লেন তামিম

স্বভাবতই সাকিব-সুজনের মত ব্যক্তিদের সমালোচনার প্রেক্ষিতে নানা প্রশ্নের মুখে পড়ে ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগ। তবে তাতে আকরাম বিচলিত নন। একইসাথে জানিয়েছেন, ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই সমালোচনা সহ্য করে অভ্যস্ত তিনি।

বিডিক্রিকটাইমকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আই ডোন্ট কেয়ার। আমি কেয়ার করি না। সিস্টেমটাই এরকম, আমার ক্যারিয়ারও সবসময় থ্যাংকসলেস ছিল। আগে খেলোয়াড় ছিলাম, ভালো খেললে তালি দিত খারাপ খেললে গালি খেতাম। এখন সিকিউরিটি থাকে, খেলোয়াড়দের সামনাসামনি গালি দিতে পারে না। কিন্তু যখন বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে আমরা খেলেছি, সকাল থেকেই ভালো খেললে তালি আর খারাপ খেললে গালি দিত। আমরা অভ্যস্ত। যখন অধিনায়ক হলাম তখন বাংলাদেশের ক্রিকেটের পরিস্থিতি অনেক খারাপ ছিল।’

সুজন দাবি করেছিলেন, আকরাম তার ব্যক্তিগত ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকেন বলেন ক্রিকেটারদের সাথে থাকার সময় পান না। তবে আকরাম ক্রিকেটারদের সুযোগ-সুবিধার ব্যাপারে কতটা সজাগ দৃষ্টি রাখেন, তা জানালেন নিজের মুখেই। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন খেলোয়াড়দের সুযোগ-সুবিধার ব্যাপারে সবসময় সজাগ বলেও জানান আকরাম।

তিনি বলেন, ‘আজ ৮ বছর ধরে আমি উনার (নাজমুল হাসান পাপন) অধীনে আছি, খেলোয়াড়দের সুযোগ-সুবিধার কোনো ব্যাপারে উনি কখনও না করেননি। এটা সবার জানা উচিৎ এবং আমি স্পষ্টভাবে বলে দিতে চাই। এমনও হয়েছে, ঈদের পরের দিন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা ফোন করেছে ওরা ইনডোরে প্র্যাকটিস করবে। তখন মাঠের সবাই ছুটিতে ছিল। ওদের অনুরোধ করে ইনডোর খুলে দিলাম, অ্যাকাডেমি মাঠ খুলে দিলাম। এগুলো তো বলা হয় না। দুই-একটা ক্ষেত্রে একটু ব্যতিক্রম হলে মিডিয়ায় চলে আসে।’

মিডিয়ায় খবর প্রচারে অবশ্য আপত্তি নেই আকরামের। তবে তার আক্ষেপ, ক্রিকেটের সংশ্লিষ্ট মানুষেরাই কেন বোর্ডকে অবহিত না করে মিডিয়ার সামনে সমালোচনা করছেন।

আকরাম বলেন, ‘আপনাদের কাছে চলে আসে এতে অসুবিধা নেই। কিন্তু এটা আপনাদের না বলে বোর্ডকে বললেও তো হত, বোর্ড তো সুযোগ-সুবিধার পক্ষে আছেই। আমি অবাক হই- এটা কে বলে এবং কেন বলবে? গত ৬-৭ বছরে কোনো কোচ এসেছে আবার চলে গেছে এমন কোনো ঝামেলা আপনি দেখেছেন? ফিজিওর কথা আপনারা জানেন? ফিজিও পাসপোর্ট হারিয়ে কী সমস্যায় পড়েছে এটা আপনারা জানেন? জানলে সমাধান করতে পারবেন? পারবেন না। আমি আপনাদের বলিনি, কিন্তু কাজ তো করছি। আমার প্রত্যেক জিনিস তো আপনাকে বলব না। ফিজিও পাসপোর্ট হারানোর পরও ওকে কীভাবে জিম্বাবুয়ে নিয়ে গিয়েছি আপনারা জানেন? আপনাকে বলে আমার কোনো লাভ আছে? আমি আপনার কাছে বড় হতে চাই? আমার তো এগুলো মিডিয়ায় বলে লাভ নেই।’

বর্তমান বোর্ড পরিচালকদের প্রায় প্রত্যেকেই বোর্ডের দায়িত্ব ছাড়াও নানান পেশায় যুক্ত। আকরাম তেমনি যুক্ত ব্যক্তিগত ব্যবসায়। তবে ব্যবসার কারণে কখনও তিনি বিসিবির কাজে গাফলতি করেননি বলে দাবি করলেন বিডিক্রিকটাইমকে।

আকরাম জানান, ‘আমার দায়িত্ব আমি ঠিকভাবে পালনের চেষ্টা করি, পারি-না পারি সেটা অন্য কথা। আমি ব্যবসা করি এটা আমার ইচ্ছা, আমার মন যেটা চায় সেটা। আমি ক্রিকেট খেলেছি এটা আমার ইচ্ছা। আপনি সাংবাদিকতা করেন এটা আপনার ইচ্ছা। কাউকে তো এক মাস মূল্যায়ন করলে হবে না। এগুলো বলতে আমার ভালো লাগে না। আল্লাহর কাছে হাজারো শুকরিয়া তিনি আমাকে ক্রিকেটার হিসেবে বানিয়েছেন তাও এমন একটি দেশে যেখানে ক্রিকেট খুব দরকার ছিল এবং সব পর্যায়েও আমি ছিলাম।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

আগামী সপ্তাহে বাংলাদেশে আসছে অস্ট্রেলিয়া, ‘২’ দিনের কোয়ারেন্টিন

অস্ট্রেলিয়া সিরিজ মাঠে গড়াবে ২ থেকে ৮ আগস্ট

গণমাধ্যমের ‘ভুল’ ভাঙালেন আকরাম

শ্রীলঙ্কা সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল

সুজনের তির্যক মন্তব্য নিয়ে মুখ খুললেন আকরাম