Scores

ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে অবাক নন মাহমুদউল্লাহ!

ত্রিদেশীয় সিরিজে মিরপুরের উইকেট নিয়ে অনেক সমলোচনা হয়েছে। ফাইনাল ম্যাচে মন মতো উইকেট না পাওয়ায় হতাশার কথা জানিয়েছেন অনেকেই। ত্রিদেশীয় সিরিজ, ওয়ানডে পর্ব শেষে টেস্টে চট্টগ্রামে স্পিনিং উইকেট বানানোর কথা জানানো হয়েছে আগেই। তবে আকস্মিকভাবে পুরো পাঁচ দিনই ছিল ব্যাটিং সহায়ক উইকেট।

মাহমুদউল্লাহর নতুন কীর্তি

তথ্য অনুযায়ী প্রথম আড়াই দিন ব্যাটিং সহায়ক হলেও, তারপর থেকেই বলে স্পিন উইকেটে রূপান্তর হবে। স্পিনে টার্ন থাকবে, তবে সেটি দেখা যায়নি তেমন একটা। বল মাঝেমধ্যে টার্ন করলেও যেমন উইকেট চেয়েছিল তেমনটি দেখা যায়নি চট্টগ্রাম টেস্টে। এই ব্যাটিং বান্ধব উইকেটের সুবিধা পেয়েছে দুই দলই।

Also Read - দ্বিতীয় টেস্টের দলে ফিরলেন সাব্বির, সানজামুল-রুবেল বাদ


এই টেস্টে সর্বমোট রান হয়েছে ১৫৩৩। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৫১৩, শ্রীলঙ্কা ৭১৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের ৩০৭। এর মধ্যে শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংসে ৭১৩ রানের মধ্যে দিয়ে, নিজেদের ৬ষ্ঠ সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়ে। তবে এমন ব্যাটিংবান্ধব উইকেট আশা করেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এমন উইকেটে বিস্মিত তিনি।

“গতানুগতিকভাবে চট্টগ্রামের উইকেট প্রথম কয়েকদিন হয়তো স্পিন হয়, তারপর উইকেটটা ভালো হতে থাকে। কিন্তু আমার মনে হয় যে, প্রথম দিন থেকে পঞ্চম দিন পর্যন্ত উইকেট ভালো ছিল। হয়তোবা এক দুটো বল এদিক ওদিক টার্ন হয়েছে। উইকেট ভালো ছিল। আমি অতটা আশা করিনি।

তিনি আরও যোগ করেন, “ভেবেছিলাম প্রথমদিন স্পিন হয়নি, দ্বিতীয়-তৃতীয় দিন হবে। চতুর্থদিনও হতে পারে। পঞ্চমদিনও হতে পারে। স্পিন হয়েছে, তবে আহামরি সেরকম স্পিন হয়নি। ব্যাটসম্যানদের জন্য মোটামুটি উইকেট ছিল।”

প্রথম টেস্টে ব্যাটসম্যানদের জন্য উপযুক্ত উইকেট হলেও এই পিচে নিস্প্রভ ছিলেন বোলাররা। সেই সাথে প্রথম ইনিংসে মুশফিকের ৯২ ও দ্বিতীয় ইনিংসে লিটনের ৯৪ রানও প্রশংসিত হয় অধিনায়কের কাছে। উভয়ই সেঞ্চুরি ডিজার্ভ করেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

অল্পের জন্য নিজের, মুশফিক ও লিটনের সেঞ্চুরি মিস হলেও এই টেস্ট থেকে অনেক ইতিবাচক দিক খুঁজে পেয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। সেই সাথে প্রথম টেস্টে ব্যাটসম্যানদের জন্য ভালো অনুশীলন হলেও বোলারদের জন্য মোটেও সুখকর ছিল না। বোলারদের আরও ধৈর্য ধরতে বললেন এই বাংলাদেশ অধিনায়ক।

“ব্যাটসম্যানরা মোটামুটি সবাই রান করেছে। দুর্ভাগ্যবশত মুশফিক ও লিটন সেঞ্চুরি মিস করেছে। তাদের সেঞ্চুরি প্রাপ্য ছিল। ‍মুমিনুল তো অবশ্যই ভালো খেলেছে। তামিম দুটো ইনিংসেই ভালো করেছে। শুরুটা ভালো হয়েছে। ভালো ব্যাটিং অনুশীলন হয়েছে। এই টেস্টের পজিটিভ দিকগুলো নেব আমরা। তবে বোলারদের আরেকটু ধৈর্য নিয়ে বল করতে হবে।”

আরও পড়ুনঃ দ্বিতীয় টেস্টের জন্য দল ঘোষণা বিসিবির

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

‘দ্যা হান্ড্রেড’ এ দল পাননি বাংলাদেশের কেউই

‘দ্যা হান্ড্রেড’ এর প্লেয়ার ড্রাফটে অবিক্রিত সাকিব-তামিম

বিপ টেস্ট চান তামিম, চিকিৎসকদের ‘না’

ভারতের বিপক্ষে স্মিথ, লক্ষ্মণের ‘ড্রিম এলেভেনে’ সাকিব-তামিম

সাত দিনের বিশ্রামে তামিম