ব্রাদার্সের বিপক্ষে মুমিনুল-কায়েসদের শ্বাসরুদ্ধকর জয়

0
1380

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) পঞ্চম রাউন্ডের গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ও ব্রাদার্স ইউনিয়নের মধ্যকার টান-টান উত্তেজনাকর ম্যাচে শেষ পর্যন্ত জয়ের হাসি হাসলো ইমরুল কায়েস-মুমিনুল হকরা।

২৭৪ রানের জয়ের লক্ষ্যে দারুণ শুরুর পরও এক মুহূর্তে পরাজয়ের শঙ্কায় পড়েছিল গাজী গ্রুপ। শেষ পর্যন্ত শঙ্কাকে দূর করে গুরকিরাত সিংয়ের অপরাজিত ৭১ বলের হার না মানা ইনিংসে চড়ে ৫ বল বাকি থাকতে ২ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে দলটি। এ জয়ের ফলে ৫ ম্যাচ থেকে ৪ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার সাতে উঠে আসলো গাজী গ্রুপ।

Advertisment

বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে শুরুতে মেহেদি হাসান ব্যক্তিগত ১০ রান করে সাজঘরে ফিরলেও অধিনায়ক ইমরুল কায়েস ও মুমিনুল হক প্রাথমিক বিপর্যয় কাটিয়ে দলকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে এই দুই ব্যাটসম্যান যোগ করেন ৯০ বলে ১১১ রান।

ইমরুল কায়েস লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের ৩২তম অর্ধশতক পূর্ণ করার পর ইনিংসের ১৮তম ওভারে ইফতেখার সাজ্জাদের বলে ইয়াসির আলির হাতে ইমরুল কায়েস ক্যাচ দিলে বিচ্ছিন্ন হয় জুটিটি। আউট হওয়ার আগে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৬৫ রান করেন তিনি।

এরপর অধিনায়কের দেখানো পথে হাঁটেন মুমিনুল হকও। দারুণ খেলতে থাকা মুমিনুল লিস্ত ‘এ’ ক্যারিয়ারের ১৮তম অর্ধশতক পূর্ণ করে থামেন ব্যক্তিগত ৫৭ রানে। তার বিদায়ের পর ছন্দপতন ঘটে গাজী গ্রুপের। ১৪৪ রানের সময় ৮ রান করা নুরুজ্জামানকে নিহাদুজাম্মান ফেরালে বিপর্যয়ে পড়ে দলটি।

এ পর্যায় থেকে জাকির আলিকে সাথে নিয়ে এগোতে থাকেন গুরকিরাত সিং। জাকির ৩৪তম ওভারে পেসার খালেদ আহমেদের বলে আউট হলেও হাল ছাড়েননি গুরকিরাত। অর্ধশতক পূর্ণ করে ভারতীয় এ ক্রিকেটার দলকে নিয়ে যেতে থাকেন জয়ের বন্দরের দিকে। আচমকাই ম্যাচে আবারও ছন্দ পতন ঘটে দলটির। ২৩৪ থেকে ২৩৫ স্কোরবোর্ডে ১ রান যোগ করতেই ৩ উইকেট হারিয়ে পরাজয়ের শঙ্কায় পড়ে যায় গাজী গ্রুপ।

নাদিফ চৌধুরীকে নিহাদুজ্জামান আউট করার পর টানা দুই বলে রবিউল হক ও আবু হায়দারকে প্যাভিলিয়নে ফিরিয়ে দিয়ে ম্যাচে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ফিরিয়ে আনেন মেহেদি হাসান রানা। ম্যাচ মুহূর্তের মধ্যে রুপ নেয় জটিল এক সমীকরণে। জয়ের জন্য গাজী গ্রুপের প্রয়োজন হয় ৪৬ বলে ২ উইকেটে ৩৯ রানের আর ব্রাদার্সের দুই উইকেটের। এমতাবস্থায় মাথা ঠাণ্ডা রেখে নাঈম হাসানকে সাথে নিয়ে ৫ বল বাকি থাকতেই জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন গুরকিরাত সিং। ম্যাচ শেষে ৮৮ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ে ৭১ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। আর তাকে যোগ্য সঙ্গ দেওয়া নাঈম হাসান অপরাজিত থাকেন ১১ রানে।

ব্রাদার্সের বোলারদের মাঝে খালেদ আহমেদ, নিহাদুজ্জামান, মেহেদি হাসান রানা প্রত্যেকেই দুটি করে উইকেট লাভ করেন। তাছাড়া ইফতেখার সাজ্জাদ ও অলক কাপালিও নেন একটি করে উইকেট।

এর আগে টস জিতে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে আগে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় গাজী গ্রুপ। আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে ব্যাট করতে নেমে জুনায়েদ সিদ্দিকীর ৪৩ রানের পর দেবব্রত দাসের হার না মানা ১০৯ বলের অপরাজিত ১১২ রানের ইনিংসের সাথে অলক কাপালির ৪১ ও ইয়াসির আলির ৫৪ রানে চড়ে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৫ উইকেটে স্কোরবোর্ডে ২৭৩ রানের পুঁজি পায় ব্রাদার্স।

প্রতিপক্ষের বোলারদের মধ্যে রুহুল আহমেদ ও নাঈম হাসান দুটি করে ও আবু হায়দার একটি উইকেট পান।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-

ব্রাদার্স ইউনিয়ন ২৭৩/৫ (৫০ ওভার)
দেবব্রত দাস ১১২*, ইয়াসির ৫৪, জুনায়েদ ৪৩, কাপালি ৪১; নাঈম ২৯/২; রুহুল ৫৬/২

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ২৭৪/৮ (১৯.১ ওভার)
গুরকিরাত ৭১*, কায়েস ৬৫, মুমিনুল ৫৭; নিহাদুজ্জামান ৪৩/২

ফলাফলঃ ৫ বল হাতে রেখে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ২ উইকেটে জয়ী।

আরও পড়ুনঃ টাইগারদের বিশেষ ক্যাম্প শুরু হচ্ছে শুক্রবার