Scores

ব্রুম-নিশামের জুটিতে বাংলাদেশের পরাজয়


নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের পর ব্যাটিংয়ে নিল ব্রুম আর জিমি নিশামের দুর্দান্ত জুটিতে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টে টানা দুই জয় পেয়েছে নিউ জিল্যান্ড। ২৫৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে নিশাম-লাথামের জোড়া অর্ধশতক ও ব্রুমের ৪৮ রানের ইনিংসে ভর করে জিতে যায় ব্লাকক্যাপসরা।

শুরুতেই দুই ওপেনার লুক রঞ্চি ও টম লাথাম বেশ সাবলীল ব্যাটিং করতে থাকেন। দুই ওপেনার দলকে ৩৯ রানের ভিত গড়ে দেন। তাদের ব্যাটে শুরুটা ভালোই হয় কিউইদের।

সপ্তম ওভারে লুক রঞ্চিকে ফেরান বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। রঞ্চির বিদায়ের পর লাথামকে নিয়ে হাল ধরেন জর্জ ওয়ার্কার। এ জুটিতে স্কোরবোর্ডে রান যোগ হয় ৪১। দুই ব্যাটসম্যান দলকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যান। ওয়ার্কার থিতু হলেও গড়তে পারেননি বড় স্কোর। ১৭ রান করে দ্রুত সিঙ্গেল নিতে গিয়ে সাব্বির রহমানের থ্রোতে রান আউট হন তিনি। যদিও ওয়ার্কারকে এক রানের মাথায় ফেরাতে পারতেন মিরাজ। নিজের বলে ক্যাচের সুযোগ হাতছাড়া করেন তিনি

Also Read - শীঘ্রই কুমিল্লায় হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের স্টেডিয়াম


এরপর আঘাত হানেন রুবেল হোসেন। অর্ধশতক পূর্ণ করার পর রুবেলের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরত যান লাথাম (৫৪)। রস টেলরকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন মুস্তাফিজুর। ভয়ঙ্কর হয়ে উঠার আগেই ফিরেন তিনি। ৪০ বলে ২৫ রানের ইনিংস খেলে মুস্তাফিজের বলে লেগ বিফোরের শিকার হন রস টেলর।

লড়াইটা চলছিল সমানে সমানে। কিন্তু ওভার যত গড়াতে থাকে, চমৎকার ব্যাটিং করে খেলা নিজেদের অনুকূলে নিয়ে আসে কিউইরা। রুবেল হোসেন মুস্তাফিজুর রহমান ছাড়া কোনো বোলারই প্রভাব ফেলতে পারেননি নিউ জিল্যান্ডের ব্যাটিংয়ে। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ছিলেন ছন্দহীন, ছিলেন খরুচে। উইকেট শূন্য ছিলেন সাকিব আল হাসান ও মেহেদি হাসান মিরাজ।

টেলরের বিদায়ের পর ব্রুম ও নিশাম ৮০ রানের জুটি গড়েন। এ জুটি ম্যাচ থেকে পুরোপুরি ছিটকে দেয় বাংলাদেশকে। ৪ চারে ৪৮ রান করে রুবেল হোসেনের বলে এলবিডব্লিউ হন ব্রুম। তখন কিউইদের সংগ্রহ ২২৭। দুই ওভার পরে মাশরাফির বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে সীমানার কাছে মোসাদ্দেকের হাতে ধরা পড়েন নিশাম। তবে ততক্ষণে ম্যাচ নিউ জিল্যান্ডের হাতের নালাগে। জয় সময়ের ব্যাপার মাত্র। কলিন মুনরো এবং মিশেল স্যান্টনার মিলে আর কোনো বিপদ হতে দেননি। চার উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে কিউইরা।

এর আগে টস জিতে বাট করতে নেমে ২৫৭ রান করেছিল বাংলাদেশ। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল সৌম্য সরকার ৭২ রানের দারুণ জুটি গড়েন। নিশামের বলে মুনরোর হাতে ক্যাচ দিয়ে তামিম (২৩) ফিরে গেলে এ জুটি ভাঙে। পরের ওভারে সাব্বির রহমানকে বোল্ড করেন স্যান্টনার। দুই ওভারে দুই উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে বাংলাদেশকে উদ্ধার করার চেষ্টা চালায় সৌম্য ও মুশফিক।

দুজন মিলে ৩৮ রানের জুটি গড়েন। অর্ধশতক পূর্ণ করেন সৌম্য সরকার। ৬৭ বলে ৬১ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন তিনি। থিতু হতে পারেননি সাকিব আল হাসান। মুশফিক-সাকিবের জুটিটা ছিল মাত্র ১২ রানের। ৬ রান করে সোধির শিকার হন সাকিব। রিয়াদকে নিয়ে ৪৯ রান যোগ করেন মুশফিক। ৪ চার ও ১ ছয়ে ৫৫ রান করে নিশামের বলে আউট হন মুশফিক।

বাংলাদেশের রানের চাকা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তারা ৬১ রানের জুটি গড়েন। তবে রানের গতি নিয়ন্ত্রণেই ছিল নিউ জিল্যান্ডের। ৫১ রানের ইনিংস খেলে আউট হন রিয়াদ। সৈকতের ব্যাট থেকে আসে ৪১ রান। লোয়ার অর্ডারে কেউ অবদান রাখতে পারেনি। ২৫৭ রান করে থেমেছিল বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ বাংলাদেশ ২৫৭/৯, ৫০ ওভার
সৌম্য ৬১, মুশফিক ৫৫, রিয়াদ ৫১, সৈকত ৪১
বেননেট ৩/৩১, নিশাম ২/৬৮, সোধি ২/৪০

নিউ জিল্যান্ড ২৫৮/৬, ৪৭.৩ ওভার
লাথাম ৫৪, নিশাম ৫২, ব্রুম ৪৮, রঞ্চি ২৭
মুস্তাফিজুর ২/৩৩, রুবেল ২/৫৩, মাশরাফি ১/৫৮

-আজমল তানজীম সাকির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম ডট কম 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

আয়ারল্যান্ড-বাংলাদেশ সিরিজ স্থগিত

মানসিক দৃঢ়তায় মনোযোগ মিঠুনের

বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ যখন ‘কন্ডিশন’

যেসব চ্যানেলে সম্প্রচারিত হবে ত্রিদেশীয় সিরিজ

ত্রিদেশীয় সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন