Scores

বড় জয়ে টুর্নামেন্ট শুরু মুশফিকের আবাহনীর

বিশ্বজুড়ে মহামারি আকার ধারণ করেছে করোনাভাইরাস। যার প্রভাব পড়েছে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনে। বন্ধ হয়ে গেছে প্রায় প্রতিটি টুর্নামেন্ট। তবে এমন আতঙ্ক মাথায় নিয়েই আজ (১৫ মার্চ) থেকে শুরু হয়েছে বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ (ডিপিএল)। টুর্নামেন্টের প্রথম দিনে পারটেক্সকে ৮১ রানে হারিয়েছে আবাহনী লিমিটেড।

দাপুটে জয়ে টুর্নামেন্ট শুরু মুশফিকের আবাহনীর

এদিন মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাট করত নামে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আবাহনী। দলের হয়ে ইনিংস শুরু করতে এসে একেবারেই সুবিধা করতে পারেননি দুই ওপেনার লিটন দাস ও নাইম শেখ। দুজনেই আউট হন রানের খাতা খোলার আগে।

Also Read - কাগজ-কলমের হিসেবে বিশ্বাসী নন রাজ্জাক


সেখান থেকে নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে ইনিংস মেরামতের চেষ্টা করেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, তবে শান্তকে খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে দেননি পারটেক্সের বোলার জয়নুল। ফিরিয়েছেন ১৫ রানের মাথায়। এরপর আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ১৪ ও আফিফ হোসেন ৩ রান করে বিদায় নিলে ৬৭ রান তুলতেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসে আবাহনী।

দলের এমন বিপর্যয়ের সময় মুশফিককে সঙ্গ দিতে ক্রিজে আসেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ষষ্ঠ উইকেটে গড়েন ১৬০ রানের পার্টনারশিপ। এরই এক ফাঁকে লিস্ট-এ ক্রিকেটে নিজের ১২তম সেঞ্চুরি তুলে নেন মুশফিক। সাথে এই ফরম্যাটে দশহাজার রানের কোটা পূর্ণ করেন তিনি।

শেষদিকে অর্ধশতক হাঁকানো মোসাদ্দেকের ৭৪ বলে ৬১ রানের সাথে সাইফউদ্দিনের ১৫ বলে অপরাজি ৩৯ ও তাইজুল ইসলামের ১৪ বলে ১৭ রানের কল্যাণে নির্ধারিত ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৮৯ রানের সংগ্রহ পায় আবাহনী লিমিটেড। পারটেক্সের হয়ে ২৮ রান খচর করে ৩ উইকেট নেন জয়নুল ইসলাম।

২৯০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে একেবারেই সুবিধা করতে পারেনি পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবও। দলীয় ২০ রানে দুই ওপেনার হাসানুরজ্জামান ও আব্বাস মুসাকে হারিয়ে বসে দলটি। এরপর সায়েম আলম ২৪, ও মনির খান ৫ রান করে আউট হলে ৬৭ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে পারটেক্স।

সেখান থেকে ধীমান ঘোষকে নিয়ে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন তাসামুল হক, তবে ব্যক্তিগত ৪৩ রানের মাথায় তিনি আউট হয়ে ফেরেন বিপ্লবের বলে। একই পথের সারথি হন ধীমানও, তাইজুলের বলে আউট হবার আগে তিনি করেন ৩৬ রান।

এরপর নাজমুল হোসেন মিলন ব্যক্তিগত অর্ধশতক তুলে নিলেও তা জয়ের জন্য যথেষ্ঠ ছিল না পারটেক্সের। ২০৮ রানে থামতে হয় দলটিকে। ফলে ৮১ রানে ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়ে আবাহনী লিমিটেড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

আবাহনী: ২৮৯/৭ (৫০ ওভার)
মুশফিক ১২৭, মোসাদ্দেক ৬১, সাইফউদ্দিন ৩৯*; জয়নুল ৩/২৮।

পারটেক্স: ২০৮/১০ (৪৮.৪ ওভার)
মিলন ৫৩, তাসামুল ৪৩, ধীমান ৩৬; রানা ৪/৫৫, তাইজুল ২/৩০।

ফল: আবাহনী ৮১ রানে জয়ী।

Related Articles

যে কারণে মোহামেডান ছেড়ে আবাহনীর ভক্ত হলেন মুশফিক

মুশফিক-মোসাদ্দেকে আবাহনীর বড় সংগ্রহ

ডিপিএলে মুশফিকের সেঞ্চুরি

ব্যাটিং বিপর্যয়ে আবাহনী

দুঃস্বপ্নের মতো ডিপিএল শুরু লিটনের