ভবিষ্যতেও মাশরাফিকে মাঠে দেখতে চান টেলর

২০০৬ সালের ২ আগস্ট, হারারে। বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষ ওভারে জয়ের জন্য জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ১৭ রান। সেখান থেকে ৩ বলে প্রয়োজন ৯, এরপর শেষ বলে প্রয়োজন ৫ রান। ২ উইকেট হাতে রাখা জিম্বাবুয়ের হয়ে স্ট্রাইকে ব্রেন্ডন টেলর। বল হাতে ছুটলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। মাশরাফির ফুলটসকে টেলর মিড উইকেট দিয়ে ছক্কা বানিয়ে বসলেন!

ভবিষ্যতেও মাশরাফিকে মাঠে দেখতে চান টেলর

Advertisment

জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটে সেই ঐতিহাসিক জয় এখনো জ্বলজ্বলে। টেলর তো সেই স্মৃতি এখনো ভুলেননি। জিম্বাবুয়ের সোনালি সময় উত্তরকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান সম্প্রতি ইএসপিএনক্রিকইনফোর সাথে আলাপচারিতায় সেই ম্যাচের স্মৃতি টেনে এনেছেন। একইসাথে তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন- অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিলেও আরও কিছুদিন খেলে যাবেন মাশরাফি।





টেলর বলেন, ‘মাত্র কদিন আগে আমি বাংলাদেশ থেকে ফিরলাম, যে সিরিজ অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফির শেষ সিরিজ ছিল। কী দারুণ এক নেতা ছিল সে। অধিনায়ক হিসেবে তার বিদায় দেখতে পারাটা দারুণ।’

ভবিষ্যতেও মাশরাফিকে মাঠে দেখার আশা ব্যক্ত করে টেলর বলেন, ‘আমি আশা করব সে আরও কিছু ম্যাচ খেলবে এবং ফর্মের তুঙ্গে থেকেই অবসর নেবে। সে বাংলাদেশের সেরা নেতা, সন্দেহ নেই। একজন সত্যিকারের প্রতিদ্বন্দ্বী। সে আমাকে কয়েকবার আউটও করেছে। চ্যালেঞ্জের জন্য সে মুখিয়ে থাকে।’






টেলরের কণ্ঠে উঠে আসে ২০০৬ সালের সেই শেষ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে বিজয়ের ঘটনাও। তিনি বলেন, ‘১৪ বছর আগের ঘটনা! আমি মাঝেমাঝেই ঐ ম্যাচের ভিডিও ইউটিউবে দেখি। এটা দুর্দান্ত ম্যাচ ছিল। ঐ ম্যাচে একটা হ্যাটট্রিকও হয়েছিল (হ্যাটট্রিক করেছিলেন পেসার শাহাদাত হোসেন)।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।