আইসিসি থেকে বহিস্কার হলেন ভারতীয় সিইও সোহনি

গত মার্চে আচরণগত সমস্যার অভিযোগে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠানোর পর এবার প্রধান নির্বাহী মানু সোহনির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। আইসিসির জরুরী বোর্ড সভায় বহিস্কার হওয়ায় ভারতীয় এই ক্রিকেট ব্যক্তিত্ব আর আইসিসির সাথে যুক্ত নন।

ভারতীয় সিইও সোহনির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করল আইসিসি

Advertisment

বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) আইসিসি সভাপতি গ্রেগ বার্কলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সোহনির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মেয়াদ শেষ হওয়ার অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে আইসিসির প্রধান নির্বাহীর পদে তার অস্তিত্ব।

সোহনির আচরণে খুশি ছিলেন না আইসিসির অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। কড়া, সহানুভূতিহীন ও কর্তৃত্বমূলক আচরণের অভিযোগ উঠেছিল তার বিরুদ্ধে। দুবাইয়ে অবস্থিত আইসিসির প্রধান কার্যালয়ের ৯০ শতাংশ কর্মীই সোহনির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান। অভিযোগের সত্যতা উঠে আসে নিরীক্ষার জন্য বিশ্বজুড়ে স্বনামধন্য আন্তর্জাতিক সংস্থা প্রাইসহাউজ ওয়াটার কুপার্সের তদন্তে।

সোহনিকে অপসারণের ক্ষেত্রে আইসিসিকে বোর্ড অব ডিরেক্টরসের অনুমতির প্রয়োজন হয়নি। তাকে অপসারণের সিদ্ধান্তে কেউই আপত্তি জানাননি।

২০১৯ সালের জানুয়ারিতে প্রধান নির্বাহী নির্বাচিত হওয়ার পর দায়িত্ব গ্রহণ করেন ১ এপ্রিল। তিনি স্থলাভিষিক্ত হন জনপ্রিয় সংগঠক ডেভ রিচার্ডসনের। ভারতীয় বংশোদ্ভূত মানু সোহনি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন পেশাদার সাংবাদিক হিসেবে। জনপ্রিয় ক্রিকেট বিষয়ক সংবাদমাধ্যম ইএসপিএনক্রিকইনফোর ম্যানেজিং ডিরেক্টর (এমডি) পদে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন তিনি।

এছাড়া সিঙ্গাপুর স্পোর্টস হাবের প্রধান নির্বাহী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। আইসিসির প্রধান নির্বাহীর পদে যুক্ত হওয়ার আগেই প্রত্যক্ষভাবে যুক্ত ছিলেন ‘ভদ্রলোকের খেলা’ খ্যাত ক্রিকেটের সাথে। তবে বিশ্ব ক্রিকেটের গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে সম্মান নিয়ে বিদায় নিতে পারলেন না তিনি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।