Score

ভারতের গণমাধ্যমে টাইগারদের প্রশংসা

গতকাল এশিয়া কাপ ২০১৮ আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ও ভারত। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর শেষ পর্যন্ত শিরোপা ভারতের দখলে গেলেও বাংলাদেশের লড়াকু মনোভাবের জন্য শুরু থেকেই সমর্থকদের প্রশংসায় ভাসছিল টাইগাররা।

 

ফের ভারতই হাতে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব

Also Read - ওয়ালটন জাতীয় লিগের সূচি প্রকাশ

স্কোরবোর্ডে পর্যাপ্ত রানের পুঁজি না থাকলেও ইনিংসের শেষ বল পর্যণ্ত প্রতিপক্ষকে চাপে রেখে যে লড়াকু মানসিকতার নজির দেখাল বাংলাদেশ তাতে টাইগারদের প্রশংসা না করে পারেননি ভারতের সাবেক ক্রিকেটার বীরেন্দ্র শেহবাগ, ভিভিএস লক্ষ্মণ ও মোহাম্মদ কাইফ। পরে সেই তালিকায় যোগ দিয়েছেন বিরাট কোহলিও।

এছাড়া সবসময় মারমুখী অবস্থানে থাকা পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার রমিজ রাজাও অভিনন্দন জানিয়েছেন টাইগারদের। মাশরাফির অধিনায়কত্বের প্রশংসা করে তাকে এশিয়া কাপের সেরা অধিনায়ক হিসেবেও আখ্যায়িত করেছেন রমিজ।

একে একে যখন বাংলাদেশের প্রশংসার হাড়ি পূর্ণ হতে চলেছে তখন এদেশের বীরত্বের কথা উঠে এসেছে ভারতীয় গণমাধ্যমেও। দেশটির বাংলাভাষীদের জনপ্রিয় গণমাধ্যম ‘আনন্দবাজার পত্রিকা’য় ‘এশিয়া কাপে নতুন বাংলাদেশকে দেখল ক্রিকেটবিশ্ব’ বলে মন্তব্য করা হয়।

আজ বিকেলে প্রকাশিত এক সংবাদে এ মন্তব্য করে পত্রিকাটি।  তারা বলে, ‘এক সময় ১২০-০। সেখান থেকে ২২২ রানে অল আউট! এ যেমন বাংলাদেশের একটা দিক, তেমনই ২২২ রান তুলেও ভারতের সাত উইকেট ফেলে দিয়ে শেষ বল পর্যন্ত জেতার লড়াইয়ে থাকা। এটা বাংলাদেশের আর এক দিক। শুক্রবার দুবাইয়ে এশিয়া কাপে যে বাংলাদেশকে দেখল ক্রিকেটবিশ্ব, তা এক নতুন বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তানের মতো বিশ্বকাপজয়ী দল যখন ক্রমশ ব্যর্থতার অন্ধকারে ঢেকে গিয়েছে,  তখন বাংলাদেশের এই উত্থান এশিয়ার ক্রিকেটের পক্ষে অবশ্যই ভাল খবর। ’

এছাড়া বাংলাদেশ দলের ক্রমাগত উন্নতি’র প্রশংসা করে তারা আরও বলে, ‘সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশ কিন্তু ক্রমশ ভারতের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করে দিয়েছে। কয়েক মাস আগে শ্রীলঙ্কায় নিদাহাস ট্রফির ফাইনালেও এই বাংলাদেশের বিরুদ্ধেই শেষ ওভারে ভারতকে যে ভাবে শেষ বলে উদ্ধার করেছিলেন দীনেশ কার্তিক, শুক্রবার সে ভাবেই শেষ বলে ভারতকে জেতালেন কেদার যাদব। সমানে সমানে টক্কর দেওয়াটা এখন বাংলাদেশের অভ্যাসে পরিণত হয়ে গিয়েছে। শুধু অভিজ্ঞতার অভাবে এই চাপ কাটিয়ে জিততে পারছে না তারা, এই যা। অভিজ্ঞতার অভাবেই হয়তো সেটা হচ্ছে। এই সমস্যাটা কাটিয়ে উঠতে তাঁদের খুব বেশি সময় লাগবে না বোধহয়। ’

ভারতের এই মন্তব্য থেকেই ধারণা করা যায় যে কয়েক বছরের মধ্যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে রাজ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আর এই আশাকেই বুক বেঁধে রেখেছে এদেশের হাজারো ক্রিকেটপ্রেমী।

Related Articles

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি