Scores

‘ভারতের বিপক্ষে জিততে আক্রমণাত্মক খেলার বিকল্প ছিলনা’

করোনাভাইরাসের কারণে থমকে গেছে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। সকল ধরনের ক্রিকেট আপাতত বন্ধ। তবে ক্রিকেট বন্ধ থাকলেও ক্রিকেটাররা ফেসবুক, ইউটিউব ও ইন্সটাগ্রাম সহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভে সময় দিচ্ছেন ভক্তদের জন্য। তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাশরাফি বিন মর্তুজা সহ জাতীয় দলের প্রায় সকলেই লাইভে এসে জবাব দিচ্ছেন ভক্তদের অনেক প্রশ্নের, শেয়ার করছেন নানান জানা অজানা বিভিন্ন ঘটনা। এইসব বিষয়ে পিছিয়ে নেই অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের খেলোয়াড়রাও। তাদেরকেও লাইভে দেখা যাচ্ছে নিয়মিত। সম্প্রতি টিম সাকিবিয়ানের পেইজে লাইভে আসেন অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জয়ী তারকা অভিষেক দাস অরণ্য ও রাজশাহীর হয়ে বিপিএল খেলা মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি।

ভারতের বিপক্ষে জিততে আক্রমনাত্মক খেলার বিকল্প ছিলনা : অভিষেক
অভিষেক দাস অরণ্য

অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে বাংলাদেশ দলের আক্রমনাত্মক খেলার ধরন নিয়ে অভিষেক বলেন, “ ভারতের বিপক্ষে আমরা দুইটি ফাইনাল হেরেছি। একটি ছিল ইংল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ ও একটি অনূর্ধ্ব ১৯ এশিয়া কাপ। সেটা আমাদের মাথায় ছিল। সেই ২ ফাইনাল থেকে আমরা অভিজ্ঞতা পেয়েছি। আমাদের পরিকল্পনা ছিল শুরু থেকে আক্রমনাত্মক ক্রিকেট খেলার ও তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করে খেলার। আমরা পরিকল্পনা মাফিক খেলায় সফলতা পেয়েছি। ২ বছরে যতটুকু শিখতে পেরেছি আমি তা প্রমাণ করার চেষ্টা করেছি ও তাতেই সফল হয়েছি ফাইনালে। ”

Also Read - ইতিহাস গড়ে ইংল্যান্ডে পা রাখল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

বিশ্বকাপ ফাইনালে অভিষেক ৩ উইকেট পান ভারতের বিপক্ষে। সেটি ছিল সেই বিশ্বকাপে অভিষেকের ২য় ম্যাচ। পাকিস্তানের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে খেলার সুযোগ হলেও বৃষ্টির কারনে বোলিংয়ের সুযোগ হয়নি সেই ম্যাচে।

অভিষেক ও আফ্রিদি তাদের পছন্দের সেরা ওয়ানডে একাদশ বাছাই করেন বর্তমান খেলোয়াড়দের নিয়ে। অভিষেক ও আফ্রিদির পছন্দের একাদশ : তামিম ইকবাল, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, বাবর আজম, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, হার্দিক পান্ডেয়া, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, রশিদ খান, মাশরাফি বিন মর্তুজা ( অধিনায়ক)।

বিশ্বকাপের পর ভারতের জি নিউজে সংবাদ প্রচার করা হয় অভিষেক তার কাকার বাড়ি ভারতের মধ্যমগ্রামে ক্রিকেট শিখেছেন ও সেখানেই বড় হয়েছিলেন। সেই সংবাদকে অতিরঞ্জিত ও মিথ্যা দাবি করে অভিষেক জানান, “ আমি সেই রিপোর্টটি দেখেছি তবে সেটি পুরোটাই ভুল। মধ্যমগ্রামে আমার চাচা থাকেন তবে আমি সেখানে বড় হইনি। আমার পরিবারের সাথে বেড়াতে গিয়েছিলাম ১ মাসের জন্য শুধু। সেই সময় সেখানে টুকটাক খেলার সুযোগ হয়।আমার জন্ম ও বেড়ে উঠা বাংলাদেশেই। ”

ভবিষ্যতে সুযোগ পেলে আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়দের মাঝে স্টিভ স্মিথ, দেশি খেলোয়াড়দের মাঝে তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমের উইকেট পাওয়ার আশা করেন অভিষেক। করোনার জন্য বন্ধ হওয়ার আগে ঢাকা প্রিমিয়ার লীগে ম্যাচ সেরার পুরস্কারও জিতেন অভিষেক।

Related Articles

জনপ্রিয়তায় ফুটবলকে ছাড়িয়ে গেল ক্রিকেট!

একটি আলোচিত ঘটনা; তিনটি চরিত্র, তিন পরিণতি

সেই স্কোয়াডের ‘৯ জন’ জায়গা পান জাতীয় দলে

২০১৬ এবং ২০২০ বিশ্বকাপ দলের পার্থক্য জানালেন মিরাজ

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল নিয়ে রোমাঞ্চিত সাইফউদ্দিন