Scores

রোমাঞ্চকর ম্যাচ জিতে সিরিজ জিতল ভারত

কিছুক্ষণ পরপরই বাঁক বদল করেছে ম্যাচ। পেন্ডুলামের মতো দুলতে দুলতে শেষ পর্যন্ত স্বাগতিক ভারতের দিকেই গেল ফলাফল। শেষ ওভার পর্যন্ত যাওয়া টান টান উত্তেজনার ম্যাচ জিতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জয়ও নিশ্চিত করেছে কোহলিরা। 

রোমাঞ্চকর ম্যাচ জিতে সিরিজ জিতল ভারত

Photo by Saikat Das / Sportzpics for BCCI

টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে ভারত। উদ্বোধনী জুটিতে দুই ওপেনার রোহিত শর্মা আর শিখর ধাওয়ান দলকে দারুণ সূচনা এনে দেন। দলকে ১০৩ রানের ভিত গড়ে দেন রোহিত ও ধাওয়ান। এরপর লেগ স্পিনার আদিল রশিদ আর অফ স্পিনার মঈন আলির তোপের মুখে পড়ে ভারত। দ্রুত তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে তারা।

আদিল রশিদের প্রথম শিকার ছিলেন রোহিত। দারুণ এক ডেলিভারিতে রোহিতকে বোল্ড করেন আদিল। ৩৭ বলে ৩৭ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন রোহিত। নিজের পরের ওভারে এসে ফিরিয়ে দেন ওপেনার ধাওয়ানকেও। ৫৬ বলে ৬৭ রান করে বিদায় নেওয়া ধাওয়ান আদিলের বলে তার হাতেই ক্যাচ তুলে দেন।

Also Read - করোনা পজিটিভ আশরাফুল


এক ওভার পর মঈন আলি বোল্ড করেন বিরাট কোহলিকে। দারুণ টার্নে কোহলিকে পরাস্ত করেন তিনি। মাত্র ৭ রান আসে কোহলির ব্যাট থেকে। হাল ধরার চেষ্টা করেন লোকেশ রাহুল। রিশাভ পান্টকে সাথে নিয়ে রাহুল যোগ করেন ৩৬ রান। এ জুটি ভাঙেন পার্ট টাইম বোলার লিয়াম লিভিংস্টোন। ১৮ বলে ৭ রান করে আলির হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন রাহুল।

১৫৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে ভারত। সেখান থেকে পালটা আক্রমণ করে দলকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন রিশাভ পান্ট। তাকে সঙ্গ দেন হার্দিক পান্ডিয়া। তাদের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে দ্রুত ঘুরতে থাকে ভারতের রানের চাকা। পান্ট আর হার্দিকের ৯৯ রানের জুটি ভাঙেন স্যাম কারান। ১২৫.৮১ স্ট্রাইক রেটে ৬২ বলে ৭৮ রান করে পান্ট ক্যাচ দেন জস বাটলারের হাতে। তার ইনিংসে ছিল ৫ চার আর ৪ ছক্কা। এরপর হার্দিককে বোল্ড করেন স্টোকস। পান্টের সমান চার-ছয় মারা হার্দিক করেন ৪৪ বলে ৬৪।

ক্রুনাল পান্ডিয়া ও শার্দুল ঠাকুরের জুটিতে তিনশ রান পার করে ভারত। ক্রুনালের বাউন্ডারি ছাড়া ৩৪ বলে ২৫ রানের ইনিংসের ইতি ঘটান উড। অপর প্রান্তে ২১ বলে ৩০ রান করে বিদায় নেন শার্দুল। টপলি আর উড মিলে ভুবনেশ্বর কুমার ও প্রাসিধ কৃষ্ণার উইকেট দ্রুত তুলে নিলে ইনিংসের ১০ বল আগে ৩২৯ রানে অলআউট হয় ভারত।

জবাব দিতে দারুণ সূচনার আভাস দিয়েছিলেন ইংলিশ  ওপেনার জেসন রয়। ভুবনেশ্বরের করা প্রথম ওভারে তিন চার মারলেও শেষ বলে বোল্ড হয়ে যান তিনি। নিজের পরের ওভারে এসে জনি বেয়ারস্টোকেও সাজঘরের পথ দেখান ভুবি। ২৮ রানে ২ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড।

রোমাঞ্চকর ম্যাচ জিতে সিরিজ জিতল ভারত

প্রতিরোধ গড়েন বেন স্টোকস আর ডাভিড মালান। যোগ করেন ৪০ রান। ৩৯ বলে ৩৫ রান করে টি নাটারাজানের বলে ধাওয়ানের হাতে ধরা পড়েন স্টোকস। এরপর জস বাটলার ১৮ বলে ১৫ রান করে শার্দুলের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন। ৯৫ রানে ৪ উইকেট হারানো ইংল্যান্ডকে সঠিক পথে রাখার চেষ্টা চালান লিয়াম লিভিংস্টোন আর ডাভিড মালান। লিভিংস্টোন থিতু হলেও ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেননি। ৩১ বলে ৩৬ রান করে শার্দুলের তৃতীয় শিকার হন তিনি। পরের ওভারে এসে মালানকেও ফেরান শার্দুল। ৫০ রান করেন মালান।

সপ্তম উইকেটে মঈন আলি আর স্যাম কারান যোগ করেন ৩২ রান। দলীয় রান যখন ২০০ তখন মঈন ভুবনেশ্বরের বলে হার্দিকের হাতে ক্যাচ দেন। ২৯ রান করেন তিনি। এরপর আদিল রশিদকে সাথে নিয়ে ৫৭ এবং মার্ক উডকে সাথে নিয়ে ৬০ রানের জুটি গড়ে দলের জয়ের সম্ভাবনা জিইয়ে রাখেন কারান। আদিল ২২ বলে ১৯ আর উড ২১ বলে ১৪ রান করে সাজঘরে ফিরেন।

শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১৪ রান। প্রথম বলে কারান এক রান নেওয়ার পর রান আউট হন উড। স্ট্রাইকিং প্রান্তে এসেই প্রান্ত বদল করেন টপলি। পরের দুই বলে কোনো রান না আসলে সমীকরণ দাঁড়ায় ২ বলে ১২ রানের। পঞ্চম বলে বাউন্ডারি আর ষষ্ঠ বল ডট গেলে সাত রানের জয় পায় ভারত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ভারত ৩২৯/১০, ৪৮.২ ওভার
পান্ট ৭৮, ধাওয়ান ৬৭, হার্দিক ৬৪
উড ৩/৩৪, আদিল ২/৮১

ইংল্যান্ড ৩২২/৯, ৫০ ওভার
কারান ৯৫*, মালান ৫০, লিভিংস্টোন ৩৬
শার্দুল ৪/৬৭, ভুবনেশ্বর ৩/৪২

Related Articles

দলে ফিরতে পিসিবিকে ‘ব্ল্যাকমেইল’ করছেন আমির!

মালিককে নিয়ে বিস্ফোরক দাবি আফ্রিদির

বল টেম্পারিং কাণ্ডে আবারও প্রশ্নের মুখে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটাররা

আমার স্বপ্ন অনেক বড় : তাসকিন

আল জাজিরার প্রতিবেদনে দুর্নীতির প্রমাণ পায়নি আইসিসি