Scores

ভিডিওবার্তায় দেশবাসীর কাছে ভিক্ষা চাইলেন জাভেদ মিঁয়াদাদ

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের কারণে সকল ধরনের খেলাধুলা আপাতত বন্ধ। আইসিসি তাদের বিভিন্ন বাছাইপর্বের খেলা আগামী জুন মাস পর্যন্ত বন্ধ রেখেছে। আইপিএল পিছিয়েছে অনির্দিষ্টকালের জন্য। নেদারল্যান্ডস ক্রিকেট বোর্ডও তাদের এই সিজনের খেলা বাতিল করে দিয়েছে, বাতিল হওয়ার পথে আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেটও এই বছরের জন্য। লম্বা সময় ক্রিকেট ভক্তদের জন্য থাকছেনা কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ । তবে ক্রিকেট না থাকলেও ক্রিকেটাররা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের আলোচিত, বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে গরম করে রাখছেন সোশ্যাল মিডিয়া। তেমনি এক কাজ করলেন সম্প্রতি পাকিস্তানের সাবেক তারকা ক্রিকেটার জাভেদ মিঁয়াদাদ।

ভিডিওবার্তায় দেশবাসীর কাছে ভিক্ষা চাইলেন জাভেদ মিয়াদাদ, কারন ...

করোনার সময় গরীব ও অসহায়দের সহায়তায় এগিয়ে আসছেন অনেক ক্রিকেটার। কেউ ফাউন্ডেশন গড়ে সাহায্য করছেন, কেউ পছন্দের জিনিস নিলামে তুলে, কেউবা আবার বেতনের টাকা দান করে দিয়ে সাহায্য করছেন গরীব অসহায়দের। তবে এবার করোনার জন্য নয়, অন্য এক কারণে অবাক কান্ড করে বসলেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার জাভেদ মিঁয়াদাদ। এবার দেশবাসীর কাছে সাহায্য চাইলেন দেশকে বাঁচাতে।

Also Read - প্রথম সন্তানের বাবা হলেন বিজয়


জাভেদ মিঁয়াদাদ ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন লম্বা সময় আগে। তবে সাম্প্রতিককালে ইউটিউব চ্যানেল শুরু করেছেন মিঁয়াদাদ। যেখানে মূলত ক্রিকেট নিয়েই আলোচনা করে থাকেন। তবে এবার দেশের প্রয়োজনে ক্রিকেট ছেড়ে সবার কাছে ভিক্ষা চাইলেন জাভেদ মিঁয়াদাদ টুইটারে এক ভিডিও বার্তায়। তার কারণ দেশের ঋণ কমানো।

ভিডিওতে জাভেদ মিয়াদাদ বলেন, “আমাদের দেশকে ৭৩ বছরে অনেকেই লুটে তাদের পকেট ভারী করেছেন । আমি আপনাদের কাছে যারা পকেট ভারি করেছেন ও দেশের বাইরে যেই প্রবাসী পাকিস্তানিরা আছেন তাদের কাছে ভিক্ষা চাইছি। এটাকে ভিক্ষা যদি বলতে নাও চান তবে দান বলতে পারেন সমস্যা নেই। আপনারা যারা দেশকে লুটেছেন তাদের কাছে সুযোগ আছে নিজের পাপ মোচন করার। আমি তাই সকলের কাছে ভিক্ষা চাই আমার এই উদ্দেশ্যে সাহায্য করার। আমাদের পাকিস্তানের উপর আইএমএফের বিশাল ঋণের বোঝা রয়েছে।


তাই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি ব্যাংকে একটি একাউন্ট খোলার আমার নামে। আপনারা সকলে আমার সেই একাউন্টে ১ ডলার, ৫ ডলার, ১০০ ডলার যা পারেন পাঠাবেন। আমি একবারে সব চাচ্ছিনা, মাসে মাসে যার যা সামর্থ্য পাঠাবেন। আমাদের দেশকে বাচাতে এই ঋণের বোঝা কমাতে হবে। কারন ঋণের বোঝা বাড়তে থাকলে ভবিষ্যতে বিদেশী দাতারা আমাদের পারমাণবিক শক্তির দিকে নজর দিবে, তখন তারা ঋণ দেওয়ার সময় আমাদের পারমাণবিক শক্তির সাথে জড়িত কোন শর্ত আরোপ করে দিবে। আমাদের অতি মূল্যবান পারমাণবিক শক্তি বাচাতে যেভাবে হোক এই বিদেশী ঋণ শোধ করতে হবে। তাই আপনারা এগিয়ে আসুন। আমি কথা দিচ্ছি এই একাউন্ট আমি নিজে দেখভাল করবো, অন্য কাউকে এই একাউন্টে হাত দিতে দিবোনা।

জাভেদ মিয়াদাদের এই আবেদনে পাকিস্তানের ক্রিকেট ভক্তদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে। এখন দেখার অপেক্ষা মিয়াদাদের কথায় সাড়া দিয়ে দেশকে বাচাতে কতজন পাকিস্তানি ভক্ত তার একাউন্টে এই টাকা পাঠান।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

অনলাইনে ক্লাস করবেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা

শাস্ত্রীকে সুইমিংপুলে ছুঁড়ে ফেলেছিলেন মিয়াঁদাদ!

আসিফ-আমির-বাটদের ফাঁসিতে ঝোলানো উচিৎ!

বাংলাদেশকে ভ্রাতৃত্ববোধের কথা স্মরণ করালেন মিয়াঁদাদ

আইসিসির কাছে ভারতকে বয়কটের দাবি