Scores

মাঠে ফিরতে ক্রিকেটারদের ‘এন্টিবডি টেস্ট’ বাধ্যতামূলক!

করোনার প্রাদুর্ভাবে থমকে গেছে গোটা দেশ। প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। তবে এমন পরিস্থিতিতে সীমিত পরিসরে আবার খুলতে চলেছে অফিস, মার্কেটগুলো। অবস্থা এমন চলতে থাকলেও হয়তো আর কিছুদিনের মধ্যে আবার শুরু হবে ক্রিকেট। যেখানে ক্রিকেটারদের ‘এন্টিবডি টেস্ট’ বাধ্যতামূলক করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

যে ভাবনা থেকে তামিমদের অনুদানের সিদ্ধান্ত2

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তাদের এক রিপোর্টে জানিয়েছে, নভেল করোনাভাইরাস মূলত মানুষের শরীরের ড্রপলেট (থুতু ও লালা) থেকে ছড়ায়। এছাড়াও আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি-কাশি থেকে এই ভাইরাস অন্যের শরীরে ছড়িয়ে পড়ে বলে নিশ্চিত করেছে সংস্থাটি। ফলে ক্রিকেটারদের এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাটা বেশি বলে ধরা হচ্ছে।

Also Read - '৩০' জন নেট বোলারের সহায়তায় এগিয়ে এলেন মুশফিক






ক্রিকেটের একটা বড় অংশজুড়ে রয়েছে ফিজিওথেরাপি। আবার ক্রিকেট শুরু হলে থেরাপিস্টদের শরণাপন্ন হতে হবে ক্রিকেটারদের। যেখানে ক্রিকেটার ও থেরাপিস্টদের দূরত্ব বজায় রাখা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। আবার, থেরাপি নিতে হলে ৯০ ভাগ ক্ষেত্রে হাতের সংস্পর্শ লাগে।

এমতাবস্থায় ক্রিকেট মাঠে ফেরাতে ভাবতে হচ্ছে বোর্ডকে। তবে যেদিনই খেলা শুরু হোক, তার আগে প্রত্যেক ক্রিকেটার এবং সাপোর্ট স্টাফদের এন্টিবডি ও করোনা টেস্ট বাধ্যতামূলক করতে চাচ্ছে বিসিবি।






এ প্রসঙ্গে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘আমরা ঠিক করেছি ক্রিকেটার ও আমাদের প্রাথমিকভাবে টেস্ট করাতে হবে। এর মধ্যে সবাইকে করা হবে এন্টিবডি টেস্ট। আরেকটা হতে পারে কোভিড-১৯ টেস্ট। এই দুটি অবশ্যই করাতে হবে নয়তো ঝুঁকিমুক্ত ফিজিওথেরাপি করা যাবে না।’

‘ফিজিওথেরাপি বিপজ্জনক ও ঝুঁকিপূর্ণ। যে কারণে আমাদের কোনো থেরাপিস্ট আপাতত এই কাজ করছেন না। শুধু মোবাইলে বা ভিডিও কলে পরামর্শ দিচ্ছেন। এই চিকিৎসায় ক্রিকেটার ও থেরাপিস্টদের ৬ ফিট দূরত্ব রাখা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সম্ভব নয়। কারণ থেরাপি শুধু পরামর্শ দিয়েই হয় না, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে হাতের স্পর্শ লাগে।’ সাথে যোগ করেন তিনি।

কিন্তু আপাতত জাতীয় পর্যায়ের এবং বোর্ডের সাথে চুক্তিতে আছেন এমন ক্রিকেটাররাই বোর্ডের তত্ত্বাবধায়নে টেস্ট করার সুযোগ পাবেন। বেসরকারিভাবে কোভিড-১৯ টেস্ট কিছুটা ব্যয়বহুল হওয়ার কারণে ঢাকা লিগে খেলে এবং বিসিবির চুক্তিবদ্ধ নয়, এমন খেলোয়াড়দের টেস্টের দায়িত্ব ক্লাবগুলোর উপরেই ছেড়ে দিতে চাচ্ছে বোর্ড।

দেবাশীষ জানান, ‘এটি খুবই ব্যয়হুল। ফলে বিসিবির চুক্তিবদ্ধ যারা তাদের টেস্টগুলো করানো হবে। কিন্তু যারা ডিপিএলে খেলে ও বিসিবির চুক্তিবদ্ধ নয় তাদের টেস্টের দায়িত্ব নিতে হবে ক্লাবগুলোকেই। খেলা মাঠে শুরু হলে তার ওপর ভিত্তি করেই পর্যায়ক্রমে টেস্টগুলো করানো হবে। তবে কিছু টেস্ট শুরুতেই করাতে হবে।’

কোভিড-১৯ টেস্ট নিয়ে বিসিবির ফিজিওথেরাপিস্ট বায়জিদুল ইসলাম খান বলেন, ‘সব ক্রিকেটারের সঙ্গে আমাদেরও টেস্ট করানো উচিৎ। এতেও যে পুরোপুরি ঝুঁকি চলে যাবে তা নয়। অনেক সময় টেস্ট করানোর পরও ক্রিকেটার বা আমাদের যে কেউ আক্রান্ত হতে পারে। তাই আমি মনে করি, পুরোপুরিভাবে বিপদমুক্ত হওয়া যাবে টিকা আবিষ্কারের পরই। সেই আশায় আছি।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

বেতন কর্তনে সম্মতি দিলেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা

‘শ্রীলঙ্কা সফরে গেলে বড় বিপর্যয় হতে পারতো’

হঠাৎ কেন ক্রিকেটারদের মাথায় একাধিক ক্যাপ?

ক্রিকেট বিশ্বে প্রথম ‘কোভিড বদলি’ ক্রিকেটার লিস্টার

ক’রোনা আক্রান্ত অনূর্ধ্ব-১৯ দলের তিন ক্রিকেটার