মাঠ এবং উইকেট নিয়ে বোর্ডের সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা

মাঠ এবং উইকেট আধুনিকায়নে সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা করছে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ক’দিন আগে বাংলাদেশ সফর করে যাওয়া আইসিসির পিচ বিশেষজ্ঞ অ্যান্ডি অ্যাটকিনসনের পরামর্শে এই বিষয়ে মনোযোগ দিয়েছে বোর্ড।

পূর্বাচলের স্টেডিয়াম হবে বিশ্বের অন্যতম সেরা!

বাংলাদেশ সফরকালে বোর্ডকে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে মাঠ ও উইকেটের পরিচর্যার দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন অ্যাটকিনসন। একটু একটু করে সব যন্ত্রপাতি ক্রয় করে সেই পরামর্শ মানার পরিকল্পনা এখন বিসিবির।

তবে এ নিয়ে কোনো তাড়াহুড়া নেই দেশের ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থার। আগামী তিন বছরের মধ্যে মাঠ ও উইকেটের জন্য ব্যবহার্য আধুনিক যন্ত্রপাতি জোগাড় করার প্রত্যয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান মাহবুব আনামের। তিনি বলেন, ‘এ বছর আমরা কিছু যন্ত্রপাতি কিনলাম, আগামী বছর আরও কিছু কিনলাম… আমরা আশা করছি আগামী ৩ বছরে যেন আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারি।’

Also Read - এশিয়া কাপের জন্য বাংলাদেশের জার্সি উন্মোচন

মাঠ পরিচর্যা প্রসঙ্গে উঠে আসে কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সংস্কারকাজের বিষয়টিও। সেই সাথে বিসিবির স্বপ্নের পূর্বাচল স্টেডিয়াম আধুনিকায়ন প্রসঙ্গেও কথা বলেন মাহবুব আনাম, ‘কক্সবাজারে ড্রেনেজ বসিয়ে এরপর মাটি ফেলতে হবেএই কারণেই আমরা এখন সেটা ভরাট করছি নাভরাট করলেই আমাদের খরচ দ্বিগুণ হয়ে যাবেযখন মাঠের কাজে হাত দেয়া হবে তখনই এই কাজগুলো করা হবেআর পুর্বাচলের মাঠের যে পরিকল্পনা রয়েছে, তাতে আধুনিক সিস্টেমের ড্রেনেজ সিস্টেম ও অন্যান্ন কাজ প্রজেক্টের মধ্যেই থাকবে।’

২০২৩ সালে ভারতের বসবে বিশ্বকাপের আসর। ঐ বিশ্বকাপের কিছু ম্যাচ বাংলাদেশে আয়োজনের চেষ্টা চলছে। সেক্ষেত্রে পূর্বাচল স্টেডিয়ামই হতে পারে প্রথম পছন্দ, যার কাজ শেষ হবে ২০২১ সালের মধ্যেই। মাহবুব আনাম বলেন, ‘এ বছরের মধ্যে মাঠের জায়গা পেলে আমরা মনে করি ২০২১ সালে এটি (পূর্বাচল স্টেডিয়াম) ব্যবহারযোগ্য হতে পারবে। অবশ্যই আমাদের মনোযোগ থাকবে বিশ্বকাপের কিছু ম্যাচ বাংলাদেশে আয়োজন করা যায় কি না সেদিকে।’

আরও পড়ুন: হেলমেট ব্যবহারে সচেতনতা বৃদ্ধি ক্যাম্পেইনে মাশরাফি

Related Articles

পূর্বাচলে স্টেডিয়ামের জমি নিয়ে নাটক

আইসিসির অনুমতি পেল পার্থ স্টেডিয়াম