Scores

মাঠ থেকে অবসর নেওয়ার সংস্কৃতি চান পাইলট-আশরাফুল

এদেশের টেস্ট ক্রিকেটেরই বয়স ২০ বছর। তারকা ক্রিকেটার তো কম দেখেনি দেশের ক্রিকেট। অনেককে আখ্যা দেওয়া হয় কিংবদন্তি হিসেবে। তবে বড় খেলোয়াড়দের মধ্যে খুব কম খেলোয়াড়েরই সৌভাগ্য হয়েছে, মাঠ থেকে অবসর নেওয়ার।

মাঠ থেকে বিদায় নেওয়ার সংস্কৃতি চান তারা

বাংলাদেশের সাবেক দুই অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলট ও মোহাম্মদ আশরাফুল তাই আহ্বান জানালেন, খেলোয়াড়দের যেন মাঠ থেকে বিদায় নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়।

Also Read - ম্যান্ডেলা দিবসে মাঠে গড়াবে প্রোটিয়াদের অদ্ভুত ম্যাচ






অপ্রত্যাশিত দল থেকে বাদ পড়ার পর পাইলট আর দলে ফিরতে পারেননি। জাতীয় দলের হয়ে সর্বশেষ খেলেন ২০০৭ সালের জুনে, টেস্ট ক্রিকেটে। সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছেন আগের বছর। ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেছেন আরও কয়েক বছর। এরপর হুট করেই হারিয়ে যাওয়া, একসময় নীরবেই অবসর; বলা যেতে পারে ঠিক জাতীয় দলের মতই ‘বাধ্য হয়ে’।

তবে এই প্রথার বিলুপ্তি চান পাইলট। একই সুর আশরাফুলের কণ্ঠেও। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটাররা যেন মাঠ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে অবসর নিতে পারেন, সেই সংস্কৃতি শুরুর আহ্বান দুই ক্রিকেট তারকার।






বিডিক্রিকটাইমকে পাইলট বলেন, ‘খেলোয়াড়কে জানানো উচিৎ- তোমার সময় শেষ। তুমি কি অবসর নিবে, নাকি এভাবেই খেলতে থাকবে- খেলোয়াড়ের কাছে জানতে চাওয়া উচিৎ। আমি আসলে জানতাম না। আপনি যে অফিসে চাকরি করেন দীর্ঘদিন ধরে, আপনি আশা করবেন সেখান থেকে যেন বিদায়টা সুন্দর হয়, আনুষ্ঠানিক হয়। সেই সম্মান ক্রিকেটে হয়ে ওঠে না অনেক সময়। তবে এটা খুবই সহজ। খেলোয়াড়কে জানিয়ে রাখলেই হয়- আমরা তোমাকে নিয়ে আর বেশি ভাবছি না। তখন খেলোয়াড় নিজেকে ব্দায়ের জন্য প্রস্তুত করে নিতে পারে।’

পাইলট যখন ব্রাত্য হয়ে পড়লেন, তখন অধিনায়ক ছিলেন আশরাফুল। বড় তারকাদের মাঠ থেকে বিদায় দেওয়ার ব্যবস্থা করার দাবি জানালেন তিনি। একইসাথে আক্ষেপ, অধিনায়ক থাকা সত্ত্বেও পাইলটকে আনুষ্ঠানিক বিদায় দিতে না পারায়।

আশরাফুল বলেন, ‘আমি তখন অধিনায়ক ছিলাম। আমার খুব খারাপ লাগছিল। পাইলট ভাই একবার যদি আমাকে বলতেন, আমি তাকে বিদায়ের ব্যবস্থা করে দিতাম। তখন আমি অধিনায়ক ছিলাম। আমি ভেবেছিলাম উনি খেলা আরও চালিয়ে যাবেন। উনি মাঠ থেকে বিদায় নেওয়ার যোগ্যতা রাখতেন। আমাদের সময়ে এশিয়ার সেরা উইকেটরক্ষক ছিলেন। কিন্তু তিনিও মাঠ থেকে বিদায় নিতে পারেননি। আমাদের দেশে এখনো এই সংস্কৃতি শুরু হয়নি।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

ছোটবেলা থেকে পাইলটকে অনুসরণ করতেন সাব্বির

বাংলাদেশে কোচ হওয়া ‘ঝুঁকিপূর্ণ’, বলছেন পাইলট

‘যেকোনো সময় বিশ্বকাপ জিতবে বাংলাদেশ’

‘আমি চাই খেলা হবে পরিষ্কার’

মুশফিকের কাছে উইকেটকিপিং হারানোয় আক্ষেপ নেই পাইলটের