Scores

মানসিক নাকি প্রায়োগিক সমস্যা— জানেন না মাশরাফি

আরও একবার জয়ের খুব কাছ থেকে খালি হাতে ফিরে আসা। বুধবার (বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী বৃহস্পতিবার) গায়ানায় আরও একবার একরাশ হতাশা সঙ্গী হল বাংলাদেশের। হাতের মুঠোয় থাকা ম্যাচ থেকে টাইগারদের বের হতে হয়েছে তিন রানের হতাশাজনক এক পরাজয় নিয়ে।

মানসিক-নাকি-প্রায়োগিক সমস্যা-জানেন-না-মাশরাফি
বাংলাদেশের হারের কারণ ব্যাখ্যায় মাশরাফিও দ্বিধান্বিত। © গেটি ইমেজ

এই পরাজয় যেন মেনে নিতে পারছেন না দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজা। বিশেষ করে বারবার এমন পরিণতিতে অধিনায়ক বুঝতেই পারছেন না, দৃষ্টিকটু এসব ব্যর্থতার কারণ খেলোয়াড়দের সক্ষমতার ঘাতটি নাকি মানসিক চাপের নেতিবাচক দিক।

ম্যাচ শেষে সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে মাশরাফি বলেন-

Also Read - বাজে ফিল্ডিংকে দুষলেন মাশরাফি


যখন আপনার ১৩ বলে ১৪ রান প্রয়োজন এবং হাতে ৬ উইকেট আছে, এমন ম্যাচ হারা হতাশাজনক। এটা আরও বেশি হতাশার কারণ এটাই প্রথম ম্যাচ ছিল না যেখানে আমরা এমন পরিস্থিতিতে পৌঁছে হেরেছি, আগেও কয়েকবার এমন হয়েছে।’

হারের পর কারণ নিয়ে ঘেঁটেছেন মাশরাফি, তবুও পাননি কাঙ্ক্ষিত ব্যাখ্যা। তাই সরল স্বীকারোক্তি- ‘ব্যাখ্যা করাই কঠিন…’ মাশরাফি বলেন, আমি জানি না সমস্যাটি মানসিক নাকি টেকনিক্যাল, কারণ এটা ব্যাখ্যা করাই কঠিন। যদি আমাদের ১২ বলে ২০ রান প্রয়োজন হত, সেটা ভিন্ন কথা ছিল। কিন্তু যখন ১৩ বলে ১৪ রান প্রয়োজন জয়ের জন্য আর আপনি এটা সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হন, তখন আসলে ভেবে নেওয়া কঠিন হয়ে যায় সমস্যাটা মানসিক নাকি টেকনিক্যাল।’

শেষদিকে চাপ জয় করে দৌড়ে রান নিলেই অল্প রানের ঘাটতি পুষিয়ে যেত বলে মনে করেন মাশরাফি, নির্দ্বিধায় বলছি, আমরা একই ভুল বারবার করছি। আমাদের মাথা ঠাণ্ডা রাখার প্রয়োজন ছিল এবং এক-দুই রান নিয়ে ম্যাচ বের করে নেওয়া উচিত ছিল। মাহমুদউল্লাহর রানআউটটি প্রতিপক্ষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সে ক্রিজে থাকলে আমরা হয়ত আগেই ম্যাচ শেষ করে ফেলতে পারতাম। একইসাথে সাব্বিরের উইকেটও গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

আরও পড়ুন: শেষ ওভারের লড়াইয়ে জিতে সমতা ফেরাল উইন্ডিজ

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

বাবাকে হাসপাতালে রেখেই ক্যারিয়ার বাঁচাতে লড়ছিলেন বাটলার

শেষ দুই টেস্ট খেলবেন না স্টোকস; ছুটতে হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে

নেই ব্রড-রুট ও ওপেনার, বিতর্কিত টেস্ট দল সাজালেন পূজারা

জেদের বশে ধোনির মাথায় বল ছুঁড়েছিলেন শোয়েব

রান না করলে এটাই ছিল আমার শেষ ম্যাচ : বাটলার