Scores

মাশরাফির নামে ড্রেসিংরুমেও মিথ্যাচার হয়েছিল

গত বছর অক্টোবরে হঠাৎ করে আন্দোলনের ডাক দিয়েছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা কিন্তু একমাত্র ক্রিকেটার হিসাবে পরিকল্পনায় ছিলেন না মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার না থাকা নিয়ে তখন অনেক কথা হয়েছে। মাশরাফি আগেও জানিয়েছিলেন, এই ঘটনা তাকে অবগত করা হয়নি।

 মাশরাফির নামে ড্রেসিংরুমে মিথ্যাচার হয়েছিল

সাকিব-তামিমরা যখন ১১ দফা (পরবর্তীতে আরও ২ দফা যুক্ত হয়) দাবি নিয়ে মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সামনে জড়ো হলেন, তখন আশেপাশের চোখগুলো খুঁজছিল মাশরাফিকে। কিন্তু ওয়ানডে দলের তৎকালীন অধিনায়কের দেখা মেলেনি। কমবেশি সবাই হয়তো ভেবেছিলেন মাশরাফি আসেননি কিন্তু ঘটনা ছিল ভিন্ন।

Also Read - মাঠ থেকে অবসর নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা দেখছি না : মাশরাফি


মাশরাফি নিজেই তার ফেসবুক পেইজে জানিয়েছিলেন, তাকে এই আন্দোলন সম্পর্কে আগে অবগত করা হয়নি তবে এইসব দাবির সাথে তিনি একমত। তবুও মাশরাফিকে বিভিন্ন প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছিল। যেহেতু তাকে ডাকা হয়নি, তাই সেটাও ওই দাবির মধ্যে স্পষ্ট করে বলে দেয়া উচিত ছিল বলে মনে করেন তিনি।

অনালাইনে সরাসরি আলাপচারিতা নট আউট  নোমান অনুষ্ঠানে মাশরাফি বলেন, ‘এটা আমার অত্যন্ত কষ্টকর ঘটনা ছিল। যেদিন ১১ দফা দাবি করে, ওখানে ১২ দফা হওয়া উচিত ছিল। ১২তম লাইনটা হওয়া উচিত ছিল, আমরা এর ভেতরে মাশরাফিকে ডাকিনি। আমি তখনো অবসরে যাইনি, আমি অধিনায়কও ছিলাম। স্বাভাবিকভাবেই মানুষ প্রশ্ন করবে এখানে মাশরাফি কই।’

সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে ক্রিকেটাররা পর্যন্ত প্রশ্ন করেছিল এখানে মাশরাফি কোথায়। এই অনুষ্ঠানে তিনি জানালেন, তখন ড্রেসিংরুমে সেসব জুনিয়র ক্রিকেটারদের কাছেও তার অবস্থান পরিষ্কার করা হয়নি। গোঁজামিল দিয়ে উত্তর দিয়ে তাকে আরও বিভ্রান্তিকর অবস্থায় ফেলা হয়েছিল।

মাশরাফি বলেন, ‘তামিমকে (ইকবাল) আমি পরের দিন বলেছিলাম, এই কথা (১২ দফা)। কারণ তোরা আমাকে একটা বিভ্রান্তিকর অবস্থায় ফেলেছিলি। তোদের মনে হয়নি, আমাকে ডাকিসনি- ঠিক আছে। কিন্তু মানুষ যে আমাকে এতো কথা শুনালো। তাছাড়া ড্রেসিংরুমেও মিথ্যাচার হয়েছে। জুনিয়রদেরকে বলা হয়েছে, মাশরাফি এমপি, সরকারি দলে তাই আসবে না। এটা তো সরকার বিরোধী আন্দোলন ছিল না। আবার বলেছে উনি নড়াইলে তাই আসবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘এগুলো কেন করলো? সরাসরি বলে দিলেই হতো, আমরা মাশরাফিকে ডাকিনি। বাংলাদেশ ক্রিকেটের কোনো প্রয়োজনে কি আমাকে পাওয়া যায়নি বা খুঁজে নেওয়া হয়নি? জঙ্গলে থাকলেও আমাকে খুঁজে বের করা হয়েছে। আমাকে কোনো কারণে ওরা এড়িয়ে যেতে চেয়েছিল। আমি এটা নিয়ে কিছু বলব না। কখনো বলিওনি যে আমি অধিনায়ক আমাকে কেন বললি না।’

মাশরাফিকে সব কিছুতে আগে জানানো কিংবা আগে তার মতামত নিয়ে নেয়ার মতো কোনো চাওয়া ছিল না সাবেক অধিনায়কের। জানিয়ে দিয়েছেন, ক্রিকেটাররা না ডাকলে ড্রেসিংরুমেও (অবসরের পর!) একবারের জন্যও যাবেন না তিনি।

মাশরাফি অবস্থান পরিষ্কার করে বলেন, ‘ড্রেসিংরুমেও ওরা কখনো না ডাকলে আমি যাব না। কিন্তু সমস্ত মানুষের সামনে বেখাপ্পা অবস্থায় কিন্তু সেদিন আমিই পড়েছিলাম। কারণ দাবিটা যৌক্তিক আর সেখানে আমি নেই আমি অযৌক্তিক! কিন্তু ওরা যদি পরিষ্কার করে বলতো আমরা মাশরাফিকে ডাকিনি তাহলে আমি এ অবস্থায় পড়তাম না।’

এসব কথা মনের ক্ষোভ থেকে বলেননি মাশরাফি। মনের কষ্ট থেকেই সবকিছু জানিয়েছেন। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিয়েছেন তিনি কিন্তু এতো বড় একটা ঘটনায় ক্রিকেট ভিন্ন অন্য কারণে অবগত না করায় কষ্ট পেয়েছিলেন তিনি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

তামিমকে তাঁদেরও স্যালুট

“তামিমের জন্য ধারাভাষ্য কক্ষ আদর্শ জায়গা”

বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগজনক : উইলিয়ামসন

তামিম-মুশফিকের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা উপভোগ করেন সাকিব

জাহানারার কণ্ঠে তামিমের সুর