Scores

মাশরাফি-সৌম্যর রেকর্ডে ভাগ বসালেন সাইফ

ডিপিএলের ইতিহাসে এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ডে আজ নাম লিখিয়েছেন সাইফ হাসান। যদিও এককভাবে রেকর্ডটি নিজের দখলে নিতে পারেননি তিনি। তবুও তার খুনে মেজাজের ব্যাটিংয়ে দল পেয়েছে দাপুটে জয়। শেখ জামালকে আজ তার দল প্রাইম দোলেশ্বর হারিয়েছে ৬৯ বল হাতে রেখে ৭ উইকেটের ব্যবধানে।

 

ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে সাইফ হাসান
ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে সাইফ হাসান।

 

Also Read - সাইফের ব্যাটে 'ছক্কা বৃষ্টি', পূর্ণ করলেন সেঞ্চুরি


জয়ের জন্য দোলেশ্বরকে ২৪৪ রানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দিয়েছিল শেখ জামাল। বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে আগে ব্যাট ৩ বল বাকি থাকতেই ২৪৩ রানে অল-আউট হয় শেখ জামাল। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান আসা তানভীর হায়দারের ব্যাট থেকে। ৬৩ বলের ৬৯ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তাছাড়া রাকিন আহমেদ ৩৮ ও নুরুল হাসান সোহানের ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রান।
বোলারদের সফলতার পর রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা প্রত্যাশামত হয়নি দোলেশ্বরের। ওপেনার আসলামের ৬ রানে আউট হওয়ার কিছুক্ষণ পর আউট হন ইনফর্ম সৈকত আলিও। খালেদ আহমেদ ও তাইজুল ইসলামের উইকেট প্রাপ্তিতে জয়ের স্বপ্ন হয়তো দেখছিল শেখ জামাল।

তবে তা পূরণ করতে দেননি দোলেশ্বরের দুই ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান ও ফরহাদ হোসেন। প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেওয়ার পর ১৮৮ রানের জুটিতে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন তারা দু’জন। চলমান ডিপিএলে যেকোনো উইকেট জুটিতে চতুর্থ সর্বোচ্চ রান যোগ করার পথে ছক্কা বৃষ্টিতে মাতেন উভয় ব্যাটসম্যান।

ইনিংসের ৩২তম ওভারে ইলিয়াস সানিকে ছক্কা হাঁকিয়ে শতকের মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি। ৮ চার ও ৬ ছক্কায় শতক পূর্ণ করা এ ব্যাটসম্যান এরপর হয়ে ওঠেন আরও বিধ্বংসী। সানির একই ওভারের বাকি চার বলে (২, ৪, ৬, ৬) আদায় করে নেন ১৮ রান।

তার সাথে ফরহাদও মাতেন ছক্কা বৃষ্টিতে।  ইনিংসের ৩৫তম ওভারে তাইজুলের বলে নুরুল হাসানের হাতে স্টাম্পড হলে থামে তার আগ্রাসী ব্যাটিং। য়াউট হওয়ার আগে ৩ ছক্কা ও ৭ চারে ৮০ বল মোকাবেলায় এ রান করেন তিনি।

এরপর ছক্কা বৃষ্টি অব্যাহত রেখে মার্শাল আইয়ুবকে সাথে নিয়ে বাকি কাজটা সম্পন্ন করেন সাইফ। শেষ পর্যন্ত ১১ ছক্কা ও১০ চারে ১৪৮ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। দলের ৭ উইকেটে জয়ের দিন যা তাকে সুযোগ করে দেয় রেকর্ড বুকে নাম লেখানোর।

লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর ডিপিএলের এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড ১১টি। একই অর্জনে এর আগে নাম লিখিয়েছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও সৌম্য সরকারও। ২০১৬ সালে ফতুল্লায় কলাবাগান ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে শেখ জামালের বিপক্ষে মাশরাফি ও ২০১৮ সালে ব্রাদার্স ইউনিয়নের বিপক্ষে বিকেএসপির ৪ নম্বর মাঠে ১১টি ছক্কা হাঁকান সৌম্য সরকার।

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

উপেক্ষিত থাকছেন না ডিপিএলের পারফর্মাররা

সৌম্যকে যেভাবে সাহায্য করেছেন জাফর

ওয়াসিম জাফরের পরামর্শ কাজে লাগানোর প্রত্যাশা

তাণ্ডবের আগে ‘নার্ভাস’ ছিলেন সৌম্য

গর্বিত ‘অধিনায়ক মোসাদ্দেক’, কৃতিত্ব মাশরাফিকে