Scores

মিঠুনের দাওয়াই ‘কন্ডিশনে খাপ খাওয়ানো’

অনেক প্রত্যাশা নিয়ে নিউজিল্যান্ড সফরে গেলেও টাইগাররা প্রত্যাশা অনুযায়ী শুরু করতে পারেনি। প্রস্তুতি ম্যাচে নিউজিল্যান্ড বোর্ড একাদশের কাছে ২ উইকেটের পরাজয়ের পর তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচেও নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরেছে বাংলাদেশ, এবার পরাজয়ের ব্যবধান ৮ উইকেট।

মিঠুনের দাওয়াই ‘কন্ডিশনে খাপ খাওয়ানো’

দলের এমন পারফরম্যান্সে স্বস্তিতে নেই টিম ম্যানেজমেন্ট। যদিও এমন ব্যর্থতায় দলের খেলোয়াড়দের দোষারোপ করার সুযোগও কম। নিউজিল্যান্ডের পরিবেশে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা তো আর অভ্যস্ত নন! আবহাওয়া তো বটেই, অচেনা এখানকার পিচ-উইকেট কিংবা মাঠও।

আর তাই বাংলাদেশ দলের সদস্য মোহাম্মদ মিঠুনের ‘প্রেসক্রিপশন’- নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ভালো করতে হলে আগে খাপ খাওয়াতে হবে কন্ডিশনের সাথে।

Also Read - জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির ব্যাটিং কোচের দায়িত্বে মোহাম্মদ ইউসুফ


মিঠুন বলেন, ‘যেখানেই খেলি, যে কন্ডিশনেই খেলে মানিয়ে নেওয়া হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণকন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে না পারলে ভালো ফল আসার সম্ভাবনা খুবই কম।’

তিনি মনে করেন, দেশের বাইরে যেখানেই খেলা হোক না কেন; সেই জায়গার কন্ডিশনের সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়াই প্রথম দায়িত্ব কিংবা চ্যালেঞ্জ। ভালো খেলার বিষয়টি আসবে এর পরই।

মিঠুনের ভাষ্য, ‘যেখানেই খেলি সেখানে প্রথম চ্যালেঞ্জ হচ্ছে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া এবং ভালো খেলা।’

প্রথম ওয়ানডেতে দলের অন্য ব্যাটসম্যানরা নিষ্প্রভ থাকলেও উজ্জ্বল ছিলেন মিঠুন, চওড়া ছিল তার ব্যাট। মাত্র ৪২ রানেই টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেছেন, এনে দিয়েছেন সম্মানজনক সংগ্রহ। কিউই পেসারদের সামলে সেদিন ৬২ রান করেছিলেন, যদিও তাতেই মোকাবেলা করে ফেলেছিলেন ৯০টি ডেলিভারি।

তবে মিঠুনের দাবি, সেই ম্যাচে ব্যাট করা কখনই সহজ ছিল না। আর তাই এমন ব্যাটিং আক্রমণের বিপক্ষে এমন ধীরগতির ইনিংসও কার্যকরী হয়ে উঠতে পারে।

মিঠুন বলেন, ‘প্রথম ম্যাচে যতক্ষণ ব্যাটিং করেছি কখনোই সহজ মনে হয়নিএমন বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে ব্যাটিং করা সত্যিই কঠিনএখানে রান করতে হলে অবশ্যই কষ্ট করতে হবে।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের উপর বেজায় চটেছেন স্টোকস

যে ম্যাচে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে দুই দলই ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া

কোহলির ব্র্যান্ড ভেল্যু ২০৬ কোটি টাকা!

ছয় মাসের মধ্যেই টি-টোয়েন্টি দলে ভারসাম্য আসবে!

বয়স নিয়ে সমালোচনাকারীদের নিয়ে ভাবেনই না রশিদ!