Scores

মিরাজের আত্মবিশ্বাসের মূলে ছিলেন মুস্তাফিজ

বয়সভিত্তিক দলে একই সাথে খেলেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ ও মুস্তাফিজুর রহমান। মিরাজের জাতীয় দলে অভিষেকের প্রায় দেড় বছর আগেই জাতীয় দলে অভিষেক হয় মুস্তাফিজের। সতীর্থের জাতীয় দলে দুর্দান্ত অভিষেক আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছিল মিরাজকেও। সাদা পোশাকে খেলা নিয়ে স্বপ্ন দেখতে থাকা বাস্তবেও প্রতিফলিত করেছিলেন সেই আত্মবিশ্বাস।

শুরুর ম্যাচে মিরাজ-মুস্তাফিজকে পাচ্ছে না খুলনা
ফাইল ছবি।

২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হয় মিরাজের। তার কয়েক মাস আগেই অনূর্ধ্ব ১৯ দলের অধিনায়ক ছিলেন তিনি। সাকিব-মুশফিকদের খেলা দেখতেন টিভিতে। তাদের সাথেই খেলতে নামাটা মিরাজের কাছে ছিল স্বপ্নের মতো। জাতীয় দলে অভিষেকের খবর আগের দিন রাতে জানার পরেও স্বপ্নের ঘোরে ছিলেন মিরাজ। তার যেন বিশ্বাসই হচ্ছিল না যে তিনি পরের দিন পরতে যাচ্ছেন স্বপ্নের টেস্ট ক্যাপ।

মিরাজের ভাষায়, ‘আমার অভিষেকের আগের দিন রাতে জানতে পেরেছিলাম যে চট্টগ্রামের টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আমার অভিষেক হবে। তখন আমার মনে হচ্ছিল আসলেই কী আমি জাতীয় দলে খেলবো! ওই আগের দিন রাতটা আমি স্বপ্নের ঘোরে ছিলাম।’

Also Read - দর্শক ছাড়া ক্রিকেট তার জাদু হারাবে!


‘আমি চিন্তা করছিলাম যে এতদিন যাদের খেলা টিভিতে দেখেছি  তাদের সাথে কালকে ড্রেসিংরুম শেয়ার করব, ম্যাচ খেলব- এটা একটা অন্যরকম অনুভূতি। ওই অনুভূতিটা যার সাথে নাহয় সে ছাড়া অন্য কেউ বুঝবে না।’

মিরাজ আগে থেকেই ভেবে রেখেছিলেন সুযোগ পেলে স্মরণীয় কিছু করে দেখানোর। আরও যখন ইংল্যান্ডের মতো পরাশক্তির বিপক্ষে অভিষেক হতে যাচ্ছিল তখন তার ভালো করার স্পৃহাটা আরও বেড়ে যায়।

মিরাজ বলেন, ‘সবসময় মনে করছিলাম যে কখন সকাল হবে, কখন মাঠে যাব, টেস্ট ক্যাপটা পরবো, বল করব। রাত গেল, সকাল আসলো, আল্লাহর অশেষ রহমতে ভালোও খেলেছিলাম; ৫ উইকেট পেয়েছিলাম। আগে থেকেই আমার একটা আত্মবিশ্বাস ছিল যে আমি পারব। আগেই ভেবেছিলাম কিছু একটা করে দেখাব যেটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’

ভালো করার এই তাড়না মিরাজ পেয়েছিলেন মুস্তাফিজকে দেখে। ২০১৫ সালের এপ্রিলে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে জাতীয় দলে অভিষেক হওয়ার পরে একই বছরের জুন মাসে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডে অভিষেক হয় মুস্তাফিজের। বাঁহাতি এই পেসার অভিষেকে ৫ উইকেটসহ সিরিজে মোট ১৩ উইকেট পান। মুস্তাফিজের এই পারফরম্যান্স সাহস যুগিয়েছিল বয়সভিত্তিক দলে তার অধিনায়ক মিরাজকেও।

মিরাজের ভাষায়, ‘এই আত্মবিশ্বাস পেয়েছিলাম মুস্তাফিজের থেকে। ভারতকে হারিয়েছিল ওর অভিষেক ম্যাচে। আমি বাসায় বসে ম্যাচটা দেখেছিলাম। আমি, মুস্তাফিজ একসাথেই খেলেছি দলে, ও বাংলাদেশ দলে ভালো করছে দেখে আমার আত্মবিশ্বাস বেড়ে গিয়েছিল।’

Related Articles

ডমিঙ্গোর মন কেড়েছেন তরুণ পারফর্মাররা

ক্রিকেট পিচে ফটোশুটের পরিকল্পনাই ছিল না : সানজিদা

‘হেলদি কম্পিটিশন’ উপভোগ করছেন শান্ত

তামিম-লিটনদের ব্যর্থতা নিয়ে চিন্তিত নন ডমিঙ্গো

সাকিবকে নিয়ে ধৈর্য ধরতে বললেন ডমিঙ্গো