Scores

মিরাজের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে বাংলাদেশের সিরিজ জয়

মেহেদী হাসান মিরাজের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগারে ভর করে সফরকারী উইন্ডিজের বিপক্ষে ইনিংস ও ১৮৪ রানের জয় পেয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এ জয়ের ফলে প্রথমবারের মতো দেশের মাটিতে ক্যারিবীয়ানদের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে টেস্ট সিরিজ জয়ের স্বাদ পেল সাকিব আল হাসানরা।

ব্যাটিংয়ের পর বোলিংয়েও নৈপুণ্য যোগাচ্ছে আত্মবিশ্বাস
প্রথম ইনিংসে ৭ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৫উইকেট নেন মিরাজ।

প্রথম ইনিংসের পর ব্যাটিং ব্যর্থতায় দ্বিতীয় ইনিংস ২১৩ রানে শেষ হলে ২০১৮ সালে নিজেদের শেষ টেস্ট ম্যাচে রোমাঞ্চকর এ জয় নিশ্চিত হয় স্বাগতিকদের।

এর আগে দ্বিতীয় দিনের ৫ উইকেটে ৭৫ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা গোড়াপত্তনের পর দিনের শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে সফরকারীরা। উইন্ডিজের প্রথম ইনিংসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক (৩৯) শিমরন হেটমায়ারের ক্যাচ নিজের বলে নিজেই তালুবন্দী করে দিনের প্রথম সাফল্য বাংলাদেশকে এনে দেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

এরপর আরও ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেন তিনি। স্বাগতিক দলের এ অফস্পিনারের বোলিং তোপে এরপর একে একে সাজঘরে ফিরেন দেবেন্দ্র বিশু (১), কেমার রোচ (১), শন ডওরিচ (৩৭)। এর ফলে মিরাজের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং স্পেলে দলীয় ১১০ রানে ৯ উইকেটের পতন ঘটে সফরকারীদের।

Also Read - বাংলাদেশের স্পিনে ফের বিপাকে ফলো-অনে পড়া উইন্ডিজ


মিরাজ তান্ডবের পর শেরমন লুইসকে লেগ-বিফোরের ফাঁদে ফেলে নিজের তৃতীয় উইকেট শিকারের পাশাপাশি উইন্ডিজকে ১১১ রানে অল-আউট করে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষকে সবচেয়ে কম রানে অলআউট করার পর নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সফরকারীদের ফলো-অন করানোর সিদ্ধান্তও নেয় স্বাগতিকরা।

প্রথম ইনিংসে অসহায় আত্মসমর্পণের পর দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটাও প্রত্যাশা অনুযায়ী করতে ব্যর্থ হয় সফরকারীরা। প্রথম ইনিংসের মতো এবারও প্রথম ওভারে সাকিবের শিকারে পরিণত হয়ে মাঠ ছাড়েন ক্যারিবীয় দলনেতা ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট।

সাকিব-মিরাজের বোলিং ঘূর্ণিতে দিশেহারা উইন্ডিজ

তার বিদায়ের পর আবারও স্বাগতিকদের স্পিন অ্যাটাকের সামনে তাসের ঘরের মতো ভেঙ্গে পড়ে সফরকারী দলের টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ২৯ রানের মধ্যেই সাজঘরে ফিরেন দলটির ওপরের সারির চার ব্যাটসম্যান।

এরপর দলের হাল ধরে লড়তে থাকেন হেটমায়ার। পঞ্চম উইকেট জুটিতে শাই হোপকে নিয়ে ৫৬ রান যোগ করেন তিনি। স্বাগতিকদের বিপক্ষে এ উইকেট জুটি যখন মাথা তুলে দাঁড়ানোর পথে তখন হোপকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে ব্রেক থ্রু এনে দেন মিরাজ।

নিজে এক প্রান্ত ধরে ব্যাট করলেও অপর প্রান্তে উইকেট হারাতেই থাকে সফরকারীরা। তাই খোলস ছেড়ে বেরিয়ে এসে কিছুটা আক্রমণাত্বক মেজাজে রান তুলা শুরু করেন হেটমায়ার। অর্ধশতক পূর্ণের পর দলের পুরো হাল নিজের কাঁধে নিয়ে শতকের পথে হাঁটলেও শেষ পর্যন্ত আক্ষেপ নিয়ে শেষ হয় তার ইনিংস।

১২৮ বছরের পুরনো রেকর্ডে নাম লেখাল বাংলাদেশ

মিরাজের বলে মিঠুনের তালুবন্দী হলে শতক পূর্ণ থেকে সাত রান দূরে থেকেই বিদায় ঘন্টা বাজে তার। এরপর ম্যাচে দ্বিতীয়বারের মতো পাঁচ উইকেট প্রাপ্তিতে মাতেন মিরাজ। শেষ উইকেট জুটিতে রোচ ও লুইস রান ৪২ যোগ করলেও তা শুধু পরাজয়ের ব্যবধান কমাতেই সাহায্য করে সফরকারীদের। ৩৭ রান করা রোচকে নিজের তৃতীয় শিকারে তাইজুল পরিণত করলে জয় নিশ্চিত হয় স্বাগতিকদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-

বাংলাদেশ: প্রথম ইনিংসে ৫০৮/১০।
মাহমুদউল্লাহ ১৩৬, সাকিব ৮০, সাদমান ৭৬, লিটন ৫৪; ব্র্যাথওয়েট ৫৭/২।

উইন্ডিজ; প্রথম ইনিংসে ১১১/১০।
হেটমায়ার ৩৯, মিরাজ ৫৮/৭, সাকিব ২৭/৩।

উইন্ডিজ: দ্বিতীয় ইনিংসে ২১৩/১০।
হেটমায়ার ৯৩, রোচ ৩৭; মিরাজ ৫৯/৫, তাইজুল ৪০/৩।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

মোসাদ্দেকের কীর্তি ছুঁলেন তাইজুল

চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশের প্রাপ্তি কী?

মোসাদ্দেকের সাথে তাইজুলের লড়াইয়ে বাংলাদেশের দিন পার

রেকর্ড নিয়ে যা বলছেন তাইজুল

প্রথম দিনশেষে বাংলাদেশকেই এগিয়ে রাখছেন তাইজুল