Scores

মুমিনুলের সেঞ্চুরি, মিঠুনের লড়াকু মানসিকতা

প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন কেটেছিল ব্যাটিং ব্যর্থতায়। দ্বিতীয় দিনের শুরুটাও ছিল অনেকটা এরকম। তবে দিন গড়ানোর সাথে সাথে দেখা মিলেছে উল্টো চিত্রের। মুমিনুল হকের সেঞ্চুরি (১১৭) ও মোহাম্মদ মিঠুনের (৬২) রানের ইনিংসে সম্ভব হয়েছে তা। 

সেঞ্চুরির পথে শট খেলছেন মুমিনুল হক
সেঞ্চুরির পথে শট খেলছেন মুমিনুল হক।

দ্বিতীয় দিনের শুরুটা একেবারেই ভালো হয়নি রায়ান কুক একাদশের। ব্যাট করতে নেমে দ্রুত ৩ উইকেট হারিয়ে বসে দলটি। এবাদত হোসেনের বোলিং তোপে শুরুতেই খেই হারায় দুই ওপেনার সাদমান ইসলাম ও ইয়াসির রাব্বি। দুজনকেই সাজঘরের পথ ধরান এবাদত।
কিছুক্ষণ এবাদতের সাথে উইকেট শিকারের মিছিলে যোগ দেন হাসান মাহমুদ। দারুণ এক ডেলিভারিতে মুশফিকের অফ-স্টাম্প উপড়ে ফেলেন হাসান। এর ফলে ১৩ বলে মুশফিকের ইনিংস থামে ৩ রানে।

এরপর দলের হাল ধরেন মুমিনুল ও মোহাম্মদ। চতুর্থ উইকেট জুটিতে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেন তারা। শুধু বিপর্যয় এড়ানোই নয়, দুজনে মিলে গড়ে দেন দলকে লিড নেওয়ার পথ। তাদের জুটিতে আসে ১৫৩ রান।

Also Read - আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে সপরিবারে মারা গেলেন আফগান আম্পায়ার


সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে মুমিনুল-মিঠুন জুটি যখন গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল, তখন রায়ান কুক একাদশে স্বস্তি ফেরান নাঈম হাসান। ব্যক্তিগত ৬২ রানে মিঠুনকে আউট করেন এ অফ-স্পিনার। মিঠুন ভুল করে ফিরে গেলেও থামেননি মুমিনুল। এর কিছুক্ষণ পর বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান পূর্ণ করেন সেঞ্চুরি।

মাইলফলক স্পর্শের পর বাকি ব্যাটসম্যানদের খেলার সুযোগ করে দিতে স্বেচ্ছায় বিশ্রামে যান মুমিনুল। মাঠ ছাড়ার আগে নামের পাশে যোগ করেন ১১৭ রান।

অধিনায়কের ফিরে যাওয়ার পর ব্যক্তিগত ২৯ রানে রিয়াদের বলে আউট হন নুরুল হাসান সোহান। উইকেটরক্ষক এ ব্যাটসম্যানের বিদায়ে জুটি গড়েন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও তাইজুল ইসলাম। শেষ পর্যন্ত অবিচ্ছিন্ন থেকে খেলা শেষ করেন তারা। স্কোরবোর্ডে ৫ উইকেটে ২৪৮ রান যোগ করার পর ড্র ঘোষণা করা হয় ম্যাচটি।

ওটিস গিবসন একাদশের পক্ষে ৩৪ রান এবাদত ২টি উইকেট নেন। তাছাড়া ২১ রানের বিনিময়ে হাসান ১টি উইকেট লাভ করেন হাসান, নাঈম ও রিয়াদ।

এর আগে প্রথম ইনিংসে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ২৩০ রান করতে সক্ষম হয় নাজমুল হোসেন শান্তরা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৪ রান আসে ওপেনার সাইফ হাসানের ব্যাট থেকে। ৯ চার ও ১ ছক্কায় এ রান করেন তিনি। তাছাড়া ৬ নম্বরে ব্যাট করতে নামা সৌম্য সরকার করেন.৫১ রান। যার ৪০ রানই (১০ চার) আসে বাউন্ডারি থেকে।

প্রস্তুতি ম্যাচে উজ্জ্বল তাসকিন আহমেদ
ওটিস গিবসন একাদশের পক্ষে তিন উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ।

রায়ান কুক একাদশের পক্ষে তিনটি উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ ও তাইজুল ইসলাম। এছাড়া দিনের শেষদিকে বল হাতে নিয়ে ঝলক দেখান মিঠুন। মাত্র ১.৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৫ রানের বিনিময়ে দুই উইকেট নেন তিনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-

ওটিস গিবসন একাদশ : ৬৩.৪ ওভারে ২৩০-১০

সাইফ ৬৪, ইমরুল ৭, শান্ত ৪২, মাহমুদউল্লাহ ৩৪, লিটন ৭, সৌম্য ৫১, মোসাদ্দেক ১৩, নাঈম ২, মুস্তাফিজ ০, এবাদত ৪, হাসান ০*; তাসকিন ১৭-৪-৪৫-৩, খালেদ ১৩-৩-৫৯-১, আল আমিন ৮-০-১৯-০, তাইজুল ১৭-১-৭০-৩, সাইফ উদ্দিন ৭-১-৩০-১, মিঠুন ১.৪-০-৫-২।

রায়ান কুক একাদশ : ৭৬ ওভারে ২৪৮-৫

সাদমান ১৩, রাব্বি ২, মুমিনুল ১১৭*, সোহান ২৯, সাইফউদ্দিন ১০*, তাইজুল ৬*; এবাদত ৩৪-২, হাসান ২১/১, রিয়াদ ২১-১ ও নাঈম ৭৬-১।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

ম্যাচের মাঝপথে করোনা পজিটিভ এবাদত

নিজ প্রচেষ্টায় নিজেদের প্রস্তুত রেখেছেন রাহী, এবাদত, খালেদ

দিনের শুরুতেই এবাদতের বাজিমাত

আইসোলেশনে এবাদত-রাহী, চতুর্থ পরীক্ষা শুক্রবার

নামাজ পড়েই ২-৩ কিলোমিটার দৌড়ান এবাদত