SCORE

মুশফিকের এক ইনিংসে যত অর্জন

ইউনিমনি এশিয়া কাপ ২০১৮ আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে ১১ চার ও ৪ ছক্কায় ১৫০ বল মোকাবেলায় ১৪৪ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলেছেন মুশফিকুর রহিম। যা বাংলাদেশকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লড়াকু পুঁজির পাশাপাশি জয় পেতে সাহায্য করেছে। ব্যাট হাতে দ্যুতি ছড়ানোর দিন একাধিক অর্জনের খাতায় নাম লিখিয়েছেন তিনি।

তামিমই উৎসাহ বাড়িয়ে দিয়েছিলেন মুশফিকের
শতক হাঁকানোর পর মুশফিকের উদযাপন।

 

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক মুশফিকের ১৪৪ রানের সুবাদে মাইলফলক স্পর্শের অর্জনগুলো-

১- এশিয়া কাপের ইতিহাসে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এতদিন সর্বাধিক রানের মালিক ছিলেন তামিম ইকবাল। গতকাল তাকে ছাপিয়ে সর্বাধিক রানের তকমাটা নিজের অর্জনে যুক্ত করেছেন মুশফিক। তামিম ইকবালের ৫১৯ রানের বিপরীতে প্রতিযোগিতায় এখন তার রান ৫৪১।

২- শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে শতক হাঁকিয়ে একমাত্র বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে এশিয়া কাপের ইতিহাসে দুটি শতক হাঁকানোর গৌরব অর্জন করেছেন তিনি।

৬- এটি ছিল মুশফিকের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ছয় নম্বর শতক।

৫৫.১৭- তার করা ১৪৪ রানের ইনিংসটি ছিল দলের শতকরা রানের ৫৫.১৭ ভাগ। বাংলাদেশের হয়ে ১১জন ব্যাটসম্যান ব্যাট করেছে এমন ম্যাচে যা সর্বোচ্চ। এশিয়া কাপেও এটি দলের রানের খাতায় অবদান রাখার সর্বোচ্চ রানের শতকরা অনুপাত।

১৪৪- এশিয়া কাপের ইতিহাসে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এটি সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। প্রতিযোগিতার ইতিহাসে কোনো ব্যাটসম্যানের পক্ষে যৌথভাবে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংস। তাছাড়া বাংলাদেশের জন্যও ওয়ানডেতে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের কোনো বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানের পক্ষে এটি সর্বোচ্চ রানের ইনিংস।

১৫০- মুশফিকুর রহিম লঙ্কানদের বিপক্ষে মোকাবেলা করেন ১৫০ বল। যা বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে চতুর্থ সর্বাধিক বল খেলার রেকর্ড। তার আগে শাহরিয়ার নাফীস, সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল এক ইনিংসে ১৫০ বল মোকাবেলা করার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন।


আরও পড়ুনঃ তামিমই উৎসাহ বাড়িয়ে দিয়েছিলেন মুশফিকের

Related Articles

‘ভাই বলেছিল আজকে তুই জেতা’

পাকিস্তানকে গেইলের সঙ্গে তুলনা মুস্তাফিজের

‘রশিদকে খেলা যায় না এমন নয়’

আর কত অবহেলিত হবেন ইমরুল কায়েস?

ম্যাচসেরা রিয়াদ জয়ের কৃতিত্ব দিলেন মুস্তাফিজকে