Scores

মুশফিকের সেঞ্চুরির পরও অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারল বাংলাদেশ

আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪৮ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১০২ রান করেন মুশফিকুর রহিম। বল হাতে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ দুটি করে উইকেট লাভ করেন স্টার্ক, কল্টার-নাইল ও স্টয়নিস।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের দৌড়ে এগিয়ে থাকতে হলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয়টা বড্ড প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। সেই লক্ষ্য নিয়েই নটিংহামে নেমেছিল বাংলাদেশ। ব্যাটিং স্বর্গীয় পিচে টস জিতে যে কেউই ব্যাট করতে চাইবে আগে। অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চও করলেন সেটি। একাদশে দুই পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ।

Also Read - গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি লিগে খেলবেন সাকিব

টস হেরে শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি বাংলাদেশের। শুরুতেই ওয়ার্নারের ক্যাচ মিস করেন সাব্বির। সেটির মাশুল গুনতে হয় পুরো ম্যাচ জুড়েই। ওয়ার্নার-ফিঞ্চ মিলে দলের সংগ্রহটা বড় করতে থাকেন। এ দুইজনের জুটি ভাঙে দলীয় ১২১ রানে। মূল বোলার মাশরাফি, মুস্তাফিজ, সাকিবরা যখন ব্যর্থ ঠিক তখন দলকে ব্রেকথ্রু এনে দেন সৌম্য। ৫৩ করা ফিঞ্চকে আউট করেন সৌম্য।

তারপর যেন আর উইকেটেই পড়েনি অস্ট্রেলিয়ার। খাজা ও ওয়ার্নার মিলে দলের দলীয় সংগ্রহটা আরও বড় করতে থাকেন। মাঝের সময়টায় ওয়ার্নারের রান আউট মিস করেন সাব্বির। সেঞ্চুরি তুলে নেন ওয়ার্নার। শুধু সেঞ্চুরিই নয় তিনি থামেন ১৬৬ রানে! তাকেও আউট করেন সৌম্য। ম্যাক্সওয়েল নেমেই ঝড় তুলেন ব্যাট হাতে। ১০ বলে ৩২ করে আউট হন তিনি। দলীয় ৩৫৩ রানে আউট হন খাজা। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৮১ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হওয়ার আশ্বাস দিলেও দলীয় ২৩ রানে রান আউটের শিকার হন সৌম্য। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে দলকে কিছুটা আশা দেখান তামিম ও সাকিব। তবে দুজনের জুটি থামে দলীয় ১০২ রানে। স্টয়নিসের বলে ৪১ করে আউট হন সাকিব। তার বিদায়ের পর বাংলাদেশকে রেকর্ড গড়ে জয়ের আশা দেখাচ্ছিল তামিম-মুশফিক জুটি। ফিফটি তুলে নেন তামিম।

অবশ্য তারপরে বেশিক্ষণ ক্রিজে টিকেননি তিনি। স্টার্কের করা বলে বোল্ড হন তামিম। লিটনের সঙ্গে মুশফিকের জুটিও বেশি বড় হয়নি। দলীয় ১৭৫ রানে আউট হন লিটন। চার উইকেটের পতনের পরও আশা ছাড়েননি মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ। দুজনে বেশ দায়িত্ব নিয়েই ব্যাটিং করেন। ফিফটি তুলে নেন দুই ব্যাটসম্যানই। দুই ব্যাটসম্যান মিলে গড়েন ১২৭ রানের জুটি। ব্যক্তিগত ৫০ বলে ৬৯ রানের ইনিংস খেলে মাহমুদউল্লাহ আউট। তারপরেই সাব্বির আউট হলে জয়ের আশা ছাড়তে হয় বাংলাদেশকে।

শেষ পর্যন্ত মুশফিক সেঞ্চুরি তুলে নেন। মুশফিকের অপরাজিত ১০২ রানে বাংলাদেশের ইনিংস থামে ৩৩৩ রানে।


Related Articles

আইসিসির ট্রলের শিকার শচীন!

শীর্ষেই রইলেন সাকিব, উইলিয়ামসন-রয়ের উন্নতি

বাটলারের চোখে এটি ‘অবিশ্বাস্য’!

মরগানের হাতের বিশ্বকাপ ট্রফিটি আসল নয়, রেপ্লিকা!

শচীনের বিশ্বকাপ একাদশে পাঁচ ভারতীয়