মুশফিক-মিঠুনে লড়াকু সংগ্রহ বাংলাদেশের

এশিয়া কাপের অলিখিত সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৩৯ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সেঞ্চুরি থেকে মাত্র এক রান দূরে থেকে আউট হন মুশফিক। পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট লাভ করেন জুনায়েদ খান।

এর আগে আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা। তবে বরাবরের মত এবারও টপ অর্ডাররা হতাশ করে টিম ম্যানেজমেন্টকে। শান্তর বদলি এই ম্যাচে নামের সৌম্য সরকার। তবে দীর্ঘ সময় পর ওয়ানডেতে ফিরে নিরাশ করেছেন তিনি। মোহাম্মদ আমিরের বদলি নামা জুনায়েদ খানের বলে কোন রান না করতেই ক্যাচ তুলে দেন সৌম্য।

আঙুলের ইনজুরির কারণে দেশে ফিরছেন সাকিব আল হাসান। তার বদলি হিসেবে নেমে এই ম্যাচেও রান করতে ব্যর্থ মুমিনুক হক। ব্যক্তিগত মাত্র ৫ রান নিয়ে শাহীন আফ্রিদির বলে বোল্ড হন তিনি। এই ম্যাচে ব্যর্থ হন ওপেনার লিটন দাসও। ব্যক্তিগত ৬ রান নিয়ে জুনায়েদের বলে বোল্ড হন লিটন। দলীয় ১২ রানে দ্রুত তিন উইকেট পড়লে ক্রিজে এসে দলের হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম ও মোহাম্মদ মিঠুন।

Also Read - দেশের পথে সাকিব

এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে এই দুইজনের ১২৮ রানের জুটিতে ভর করে লড়াকু সংগ্রহ পেয়েছিলো বাংলাদেশ। এই ম্যাচেও দলের হাল ধরেন এই দুইজনই। দুইজনেই বেশ দায়িত্বশীল ব্যাটিং করতে থাকেন। দুইজনেই শুরুতে কিছুটা ধীরগতির ব্যাটিং করলে পরবর্তীতে দ্রুতই রান তুলেন মুশফিক-মিঠুন।

দ্বিতীয়বারের মত এশিয়া কাপে দুইজন মিলে ১০০ রানের জুটি গড়েন। প্রথম ফিফটির দেখা পান মুশফিক। তারপরেই ফিফটির দেখা পান মিঠুন। দুইজনের গড়া ১৪৪ রানের জুটি ভাঙেন হাসান আলী। দলীয় ১৫৬ রানে হাসানের বলে ক্যাচ তুলে দেন মিঠুন (৬০)। ক্রিজে টিকতে পারেননি ইমরুলও। ৯ রান করেই সাজঘরে ফিরেন তিনি।

মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে মুশফিক দলের সংগ্রহ বড় করতে থাকলে একধাপ এগিয়ে যান নিজের সেঞ্চুরির দিকেও। তবে ব্যক্তিগত ৯৯ রানের মাথায় শাহীন আফ্রিদির বলে সরফরাজের হাতে ক্যাচ তুলে দেন মুশফিক। তার বিদায়ের পর ঘুরে দাঁড়াতে পারেননি বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত ২৩৯ রানেই ইনিংস থামে বাংলাদেশের। মাহমুদউল্লাহ করেন ২৫ রান এবং মেহেদী হাসান করেন ১২ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশ ২৩৯ (ওভার ৪৮.৫)

মুশফিক ৯৯, মিঠুন ৬০: জুনায়েদ ৪-১৯

আরও পড়ুনঃ দেশের পথে সাকিব

Related Articles

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি

‘বিশ্ব ক্রিকেটে সম্মানজনক জায়গা আদায় করেছে বাংলাদেশ’