Scores

মুশফিক-মোসাদ্দেকে আবাহনীর বড় সংগ্রহ

বঙ্গবন্ধু ডিপিএল ২০১৯-২০ আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে ২৮৯ রানের পুঁজি পেয়েছে আবাহনী লিমিটেড। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের ১২৭ ও মোসাদ্দেক হোসেনের ৬১ রানের কল্যাণে এ পুঁজি পেয়েছে দলটি।

ডিপিএলের প্রথম ম্যাচেই সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন মুশফিক।

মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় আবাহনী। নাইম শেখকে সাথে নিয়ে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নামেন ফর্মের তুঙ্গে থাকা লিটন দাস। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ব্যাট হাতে দ্যুতি ছড়ানো লিটন আজ সুবিধা করতে পারেননি একদমই। রনি হোসেনের বলে আউট হন রানের খাতা খোলার আগেই।

Also Read - ডিপিএলে মুশফিকের সেঞ্চুরি



৬ বল মোকাবেলায় ০ রানে লিটন আউট হলে প্রথম উইকেট হারায় আবাহনী। এর এক বল পর শূন্য রানে আউট হন নাইমও। যার ফলে দলীয় ৬ রানে দুই ওপেনারের উইকেট হারিয়ে বসে দলটি। দুঃস্বপ্নের মতো এমন শুরুর পর দলের বিপদ বাড়িয়ে সাজঘরে ফিরেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

১৫ রান করে শান্ত ফিরে গেলে দলীয় ২৭ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় দলটি। এরপর চতুর্থ উইকেট জুটিতে মুশফিকের সাথে প্রতিরোধ গড়ার আভাস দেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। তবে শেষ পর্যন্ত তা আর হয়ে উঠেনি। ব্যক্তিগত ১৪ রানে স্টাম্পের বল মারতে গিয়ে বোল্ড হন বিপ্লব। এতে ৫৫ রানে ঘটে আবাহনীর চতুর্থ উইকেটের পতন।

বিপ্লবের বিদায়ের পর ক্রিজে এসে থিতু হতে পারেননি আফিফ হোসেনও। তাসামুল হকের বলে ক্যাচ দিয়ে আউট হন ৩ রান করে। ফলে ৬৭ রানে পঞ্চম উইকেট হারিয়ে বসে আবাহনী। বাড়ে দলের ব্যাটিং বিপর্যয়।

এমন পরিস্থিতিতে মোসাদ্দেককে সাথে নিয়ে দলের হাল ধরেন মুশফিক। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে দু’জনে মিলে গড়ে তোলেন প্রতিরোধ। সাবলীল গতিতে রান তুলতে থাকেন উভয় ব্যাটসম্যান। দলের হাল ধরে খেলতে থাকা মুশফিক সেঞ্চুরির দেখা পান ইনিংসের ৪১তম ওভারে এসে।

মুশফিকের লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের ১২তম সেঞ্চুরি পূর্ণের পর হাফসেঞ্চুরির দেখা পান মোসাদ্দেক। ব্যক্তিগত মাইলফলক স্পর্শের পর আরও আগ্রাসী মেজাজে ব্যাট করতে থাকেন দু’জন। দ্রুত রান তুলতে গিয়ে ইনিংসের ৪৫তম ওভারে আউট হল মুশফিক। জয়নুলের বলে রনির হাতে ক্যাচ দেন তিনি। আউটের আগে করেন ১১ চার ও ৪ ছক্কায় ১২৭ রান।

অধিনায়কের বিদায়ে বিচ্ছিন্ন হয় ১৬০ রানের জুটি। এর কিছুক্ষণ পর সাজঘরে ফিরেন মোসাদ্দেকও। বাতাসে ভাসিয়ে খেলতে গিয়ে তাসামুল হকের বলে হাসানুজ্জামানের হাতে ধরা পড়েন তিনি। আউটের আগে ৭৪ বল মোকাবেলায় করেন ৬১ রান। ৪ চার ও ২ ছক্কায় এ রান করেন তিনি।

দুই সেট ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর শেষ দিকে ছক্কা বৃষ্টিতে মাতেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ৫ ছক্কায় তার খেলা ৩৯ রানের ঝড়ো ইনিংসে ৫০ ওভার শেষে স্কোরবোর্ডে ৭ উইকেটে ২৮৯ রান যোগ করতে সক্ষম হয় আবাহনী। মাত্র ১৫ বল মোকাবেলায় এ রান করেন তিনি।

পারটেক্সের পক্ষে বল হাতে সবচেয়ে বেশি সফল ছিলেন জয়নুল। ১০ ওভার বল করে ৫ মেডেনের বিপরীতে ২৮ রান খরচায় ৫ উইকেট নেন তিনি। তাছাড়া তাসামুল দুটি, রনি ও শাহবাজ একটি করে উইকেট লাভ করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

আবাহনী লিমিটেড: ৫০ ওভারে ২৮৯-৭।
লিটন ০ (৬), নাইম ০ (১), শান্ত ১৫ (৩২), মুশফিকুর রহিম ১২৭ (১২৪), বিপ্লব ১৪ (২৬), আফিফ ৩ (৯), মোসাদ্দেক ৬১ (৭৪), সাইফউদ্দিন ৩৯*/ (১৫), তাইজুল ১৭* (১৪)।

আবাহনী ও পারটেক্সের মধ্যকার ম্যাচটি সরাসরি দেখুন-

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

যে কারণে মোহামেডান ছেড়ে আবাহনীর ভক্ত হলেন মুশফিক

বড় জয়ে টুর্নামেন্ট শুরু মুশফিকের আবাহনীর

ডিপিএলে মুশফিকের সেঞ্চুরি

ব্যাটিং বিপর্যয়ে আবাহনী

দুঃস্বপ্নের মতো ডিপিএল শুরু লিটনের