Score

মুস্তাফিজকে জাদুকর আখ্যা মাশরাফির

আফগানিস্তানের বিপক্ষে এশিয়া কাপের সুপার ফোর পর্বের ম্যাচের শেষ ওভারে ৭ রান প্রতিহত করে বাংলাদেশকে শ্বাসরুদ্ধকর এক জয় এনে দিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। রোমাঞ্চকর এ জয়ের পর মুস্তাফিজ বন্দনায় মেতেছে সবাই। এ তালিকা থেকে বাদ যাননি বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও।

সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি মুর্তজা।

অবিস্মরণীয় জয় নিশ্চিতের পর তরুণ প্রতিভাবান এ পেসারকে প্রশংসার সাগরে ভাসিয়েছেন দলনেতা মাশরাফি। জাদুকর আখ্যা দিয়ে ম্যাচ পরবর্তী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে মুস্তাফিজ প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন,

“ম্যাচ শেষে মুস্তাফিজ একজন জাদুকর। ৮-৯ রান করতে হবে এমন অসংখ্য ম্যাচে আমরা হেরেছি কিন্তু আজ তা রক্ষা করে আমরা জিতেছি।”

Also Read - মাহমুদউল্লাহ-কায়েসকে কৃতিত্ব দিচ্ছেন মাশরাফি

শেষ ওভারে জয়ের জন্য আফগানদের মাত্র ৮ রান প্রয়োজন ছিল। ক্রিজে ছিলেন থিতু হওয়া ব্যাটসম্যানের সাথে আগের ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাট করা রশিদ খান। এমতাবস্থায় হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন কিনা প্রশ্ন করা হয়ে মাশরাফি জানান,

“হাল ছাড়িনি, সাকিব তার শেষ তিন বল অনেক ভালো করেছিল। এরপর আমরা মুস্তাফিজকে বলি উইকেট নিতে কারণ তারা ব্যর্থ হতে পারে।”

 


মুস্তাফিজ বন্দনায় সবাই মাতলেও অধিনায়ক ভুল করেননি ইমরুল কায়েস ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে কৃতিত্ব দিতে। ম্যাচে এক পর্যায়ে যখন ৮৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়েছিল টাইগাররা তখন দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তুলে মাহমুদউল্লাহ-কায়েস জুটি। তাই তাদের কৃতিত্ব দেন তিনি,


“তবে প্রথমত মাহমুদউল্লাহ ও ইমরুল কায়েসকে কৃতিত্ব দিতে হবে।”

 


একইসাথে মুস্তাফিজকে দিয়ে তার কোটা পূর্ণ না করানোর ব্যাখ্যাও এসময় দেন তিনি,


“আমরা চেয়েছিলাম মুস্তাফিজকে তার কোটার ১০ ওভার বল করাতে কিন্তু ক্র্যাম্পের শিকার হওয়ায় তা করতে পারেনি মুস্তাফিজ। কাধেঁও ক্র্যাম্প থাকায় সে ইয়র্কারও করতে পারছিল না।”


“আশা করি আমরা সেমিফাইনালরূপ নেওয়া ম্যাচে (পাকিস্তানের বিপক্ষের ম্যাচ) ভালো পারফর্ম করবো।”, ফাইনাল নিশ্চিতের লক্ষ্যে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাঁচা-মরা ম্যাচ সম্পর্কে নিজের আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।


আরও পড়ুনঃ এশিয়া কাপ ২০১৮: সুপার ফোর পর্বের পয়েন্ট তালিকা

Related Articles

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি