মোহামেডানের এই চমকই ডিপিএলের ‘মজা’, বলছে সিসিডিএম

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের পরবর্তী আসর মাঠে গড়াবে আগামী বছরের মার্চ-এপ্রিলে, অথচ মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ইতোমধ্যে দল গঠন প্রায় সম্পন্ন করে ফেলেছে। এ নিয়ে নানা আলোচনা-সমালোচনা ও প্রশ্নের সৃষ্টি হলেও ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস বলছে, এটাই ডিপিএলের সৌন্দর্য।

সাকিবের পর মোহামেডানে মুশফিক-রিয়াদ-সৌম্য

Advertisment

ডিপিএলে প্লেয়ার্স ড্রাফট পদ্ধতি উঠে গেছে ব্যাপক সমালোচনার পর। দলগুলো এখন আগের মতই স্বাধীনভাবে চুক্তি করতে পারছে খেলোয়াড়দের সাথে। দলবদলের জন্য অবশ্য বাঁধা আছে আলাদা সময়।

মোহামেডান সেই সময়ের ধার ধারেনি। সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, সৌম্য সরকার, তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান মিরাজের মত ক্রিকেটারকে দলে ভিড়িয়ে চমক সৃষ্টি করেছে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। তবে তা ডিপিএলের নিয়ম মেনেই- এমনটিই জানালেন সিসিডিএমের চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘গত বছর আমাদের বোর্ড প্রেসিডেন্ট যেটা নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন যে খেলোয়াড়রা সরাসরি চুক্তি স্বাক্ষর করতে পারবে দলের সঙ্গে। যেহেতু গত বছর এটা ছিল, তাই সামনের বছরও এই নিয়মই থাকবে। আর এটাকেই আমি বলবো আমাদের প্রিমিয়ার ডিভিশনের একটা চমক এবং মজা।’

কাজী ইনাম আরও বলেন, ‘একেক লিগ বছরের একেক সময় হয়। কবে লিগ হবে এটা জানার আগেই উৎসবের আমেজ তৈরি হয়ে যায়। অন্যান্য দলও খেলোয়াড় দলে ভেড়াচ্ছে। মোহামেডানের যেই বিষয়টা, তারা এখনও অনানুষ্ঠানিকভাবে চুক্তি করেছে। দলবদলের সময় আমরা যখন ঘোষণা করবো, তখন তারা আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়গুলো চূড়ান্ত করবে। এখন তারা যেভাবে করেছে তাতে কোনো সমস্যা নেই।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।