Scores

মিডিয়া ম্যানেজমেন্টের দোষ বের করার চেষ্টা করে : জালাল ইউনুস

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস মনে করেন, বাংলাদেশের গণমাধ্যমের সক্রিয়তার কারণে বিসিবির মিডিয়া কমিটির কাজ চ্যালেঞ্জিং হয়ে উঠেছে। গণমাধ্যমের নানামুখী প্রশ্নের সামনে পড়ে কখনো কখনো কঠিন সময় পার করতে হয় বিসিবিকে- এমন দাবিও তার।


বাংলাদেশে ক্রিকেট উন্মাদনা অন্যান্য অনেক পরাশক্তি দেশের চেয়েও বেশি। ফলে ক্রিকেটে এদেশের গণমাধ্যমের দৃষ্টিও তীক্ষ্ণ। এতে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয় বিসিবির মিডিয়া কমিটিকে। ক্রিকেটারদের নিষেধাজ্ঞার মত শাস্তির ক্ষেত্রেও বোর্ডের দিকে তোলা হয় অভিযোগের আঙুল।





Also Read - এবি-ডু প্লেসিদের আইপিএলে যোগ দেওয়া অনিশ্চিত


সম্প্রতি বিডিক্রিকটাইম এর লাইভ অনুষ্ঠানে আলাপচারিতায় এসব বিষয় নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করেন বিসিবির প্রভাবশালী বোর্ড পরিচালক ও খ্যাতনামা ক্রিকেট সংগঠক জালাল ইউনুস।

জালাল বলেন, ‘কিছু বিষয় সামলানো খুবই কঠিন। কোনো ভুল ধারণা মিডিয়াতে ছড়িয়ে গেলে তা শুধরানো, তাদের বুঝানো; তথ্য-প্রমাণসহ যখন বলতে হয়- তা বেশ কঠিন। অনেক মিডিয়া এটাকে ইতিবাচকভাবে নেয়ও না। মিডিয়া বিশ্বাস করতে চায় না।’

‘সত্যি বলতে মিডিয়া সবসময় খেলোয়াড়দের পক্ষে থাকে। তারা চেষ্টা করে ম্যানেজমেন্টের দোষ বের করার; ম্যানেজমেন্টের দোষে খেলোয়াড় কোনো শাস্তি পাচ্ছে কি না এসব বের করার।’






‘খেলোয়াড়রা ভুল করতে পারে। তাদের বয়স কম, তরুণ রক্ত, ,অনেক কিছু না জেনে ফাঁদে পা দেয় বলেই এসব সমস্যা হয়। কিন্তু সেই ভুলটা তো তাদের (খেলোয়াড়দের) দিক থেকেই হয়। আমরাও চেষ্টা করি তাদের ভুল থেকে দূরে রাখতে। এসব খবর মিডিয়াতে জানাতে গেলে অনেক প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। তখন মিডিয়া আমাদের কোনো দোষ আছে কি না তা খুঁজে বের করতে প্রশ্ন করতে থাকে। ঐ প্রশ্নগুলোর উত্তর দিতে অনেক সময় হিমশিম খেতে হয়। এমন সমস্যা অনেকবারই হয়েছে। সাকিবের বেলায়, আশরাফুলের বেলায়।’

ফিক্সিং করার অভিযোগে মোহাম্মদ আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞা, কিংবা জুয়াড়ির প্রস্তাব লুকানোর অভিযোগে সাকিব আল হাসানের নিষেধাজ্ঞা নাড়িয়ে দিয়েছিল দেশের ক্রিকেটকে। সেইসব কঠিন সময়ে বিসিবিকেও গণমাধ্যমের নানা ধরনের প্রশ্নবাণে জর্জরিত হতে হয়েছে। তারকা ক্রিকেটারদের এসব অপ্রত্যাশিত বিষয়ে গণমাধ্যম বা ক্রিকেট সমর্থকদের হাহুতাশ করাই স্বাভাবিক। কিন্তু কখনো কখনো কোনো কারণ ব্যতিরেকেই বোর্ডকে দোষারোপ করা হয় বলে দাবি জালালের।

তিনি বলেন, ‘কখনো মিডিয়াতে ভুল সংবাদ যায়। এরকম একটা ঘটনা উল্লেখ করি। ২০১৪ সালে খুব বাজে একটা খবর যাচ্ছিল, যখন আইসিসি সভায় যাবেন মাননীয় বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তার আগে গুজব ছড়াল- টেস্টে দুই স্তর হয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ দ্বিতীয় স্তরে নেমে যাবে, আমরা (বিসিবি) এটা মেনে নিব। অথচ কখনোই বোর্ডে এমন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। অনেক মিডিয়ায় গুজব ছড়িয়েছিল- আমরা নাকি বোর্ড মিটিংয়ে টু টায়ারে রাজি হয়ে গিয়েছি, দ্বিতীয় স্তরে বাংলাদেশকে নামিয়ে দিলে আমরা নাকি মেনে নেব। এটা সত্যি ছিল না। এটা অনেক বুঝিয়েও আমরা বুঝাতে পারিনি।’

বাংলাদেশের ক্রিকেটের সম্মান রক্ষা করতে বর্তমান বোর্ড সভাপতি কতটা বিচক্ষণ দায়িত্ব পালন করেছিলেন, তা জানিয়ে জালাল বলেন, ‘সভা শুরুর পর নাজমুল হাসান পাপন সাহেব নিজে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন- বাংলাদেশকে দ্বিতীয় স্তরে মানি না। এখানে ক্রিকেট প্যাশন অনেক, ষোলো কোটি লোক ক্রিকেট ভালোবাসে। আমাদের দ্বিতীয় স্তরে নামানোর যুক্তি নেই। এবং তারা কিন্তু বাংলাদেশকে দ্বিতীয় স্তরে নামায়নি, এমনকি আইসিসি সভায় একবারও আর এই প্রসঙ্গ উঠেনি।’

শুধু তা-ই নয়। ২০১৪ সালে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং তার আগমুহূর্তে এশিয়া কাপ ও শ্রীলঙ্কার বাংলাদেশ সফর আয়োজনে কতটা কাঠখড় পোড়াতে হয়েছিল তাও উল্লেখ করেন জালাল ইউনুস।

তিনি বলেন, ‘২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে দেশে রাজনৈতিক অস্থিরতা ছিল। তখন শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে আসা, আইসিসির সাথে কথা বলা, বিশ্বকাপ বাংলাদেশে নিয়ে আসা এগুলো অনেক বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। প্রধানমন্ত্রীও অনেক সমর্থন দিয়েছিলেন। পাপন সাহেব আইসিসি ও প্রতিটি দলের সাথে কথা বলেছিলেন, এরপর প্রতিটি দলই এসে বিশ্বকাপ খেলে গিয়েছিল। মিডিয়াতে কিন্তু গুজব ছিল- বিশ্বকাপ এখানে হবে না, আমরা বিশ্বকাপ আয়োজন করতে পারছি না এসব।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

ক্রিকেটার ফারুককে হারিয়ে শোক-স্মৃতিতে কাতর সাবেকরা

শ্রীলঙ্কা থেকে ‘উত্তর’ পেতে অপেক্ষায় বিসিবি

ঝুঁকিমুক্ত দেশে সিরিজ খেলতে চায় বিসিবি

ডিসেম্বর-জানুয়ারিতে বিপিএল আয়োজনের চেষ্টা করবে বিসিবি

এশিয়া কাপ না হওয়ায় বিসিবির চোখে দুই ক্ষতি