ম্যাচ শেষ করে আসা পছন্দ করি: ডি ভিলিয়ার্স

0
2955

এবি ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাটিং শৈলীতে আরও একটি শতক দেখেছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসর। সোমবার (২৮ জানুয়ারি) বিপিএলের ৩৪তম ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ৮ উইকেটে হারায় রংপুর রাইডার্স। ম্যাচে রংপুরের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ৫০ বলে ১০০ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে দলকে এনে দেন জয়।

 

ম্যাচ শেষ করে আসা পছন্দ করি: ডি ভিলিয়ার্স

Advertisment

রংপুর রাইডার্সের হয়ে এখন পর্যন্ত যতগুলো ম্যাচ খেলেছেন, ভালো শুরু করলেও কোনো ম্যাচেই বড় ইনিংস গড়ে শেষ করতে পারেননি ডি ভিলিয়ার্স, পারেননি ম্যাচ জেতাতে। অবশেষে যখন সেটি পারলেন, ভিলিয়ার্সের তো উচ্ছ্বসিত হওয়ারই কথা!

ম্যাচ শেষে আনুষ্ঠানিক আলাপচারিতায় ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় জানান, দলকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়ে আসতে পছন্দ করেন তিনি। এ সময় তিনি জানান, এই ম্যাচে চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের পরিবেশ ও গ্যালারি ছিল দারুণ।

ডি ভিলিয়ার্স বলেন, আমি ম্যাচ শেষ করে আসা পছন্দ করি। গ্যালারির দর্শকদের উপস্থিতি দারুণ ছিল। দারুণ পরিবেশ ছিল।’

অ্যালেক্স হেলসের সাথে টেনিস খেলার অভ্যাস আছে ডি ভিলিয়ার্সের। সেই রসায়নই হয়ত সোমবার অনবদ্য জুটি গড়ে দলের জয় এনে দেওয়ায় মুখ্য ভূমিকা পালন করেছে। ডি ভিলিয়ার্স বলেন, হেলস ও আমি একসাথে টেনিস খেলি। তাকে আমি বেশ ভালো করেই বুঝি।’

ম্যাচ শেষ করে আসা পছন্দ করি: ডি ভিলিয়ার্স

৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে জেতা রংপুর রাইডার্সের শুরুটা অবশ্য এদিন ভালো ছিল না। দলীয় ৫ রানে ক্রিস গেইল ও রাইলি রুশোকে হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। সেখান থেকে চাপ জয়ের পাশাপাশি ম্যাচেও দলকে জয় এনে দেন ডি ভিলিয়ার্স ও হেলস। অবশ্য এখানে প্রধান ভূমিকায় ছিলেন ডি ভিলিয়ার্সই। প্রোটিয়া এই ক্রিকেটার জানান, দলের বিপর্যয়ে হাল ধরার সময় একটু নার্ভাসও ছিলেন তিনি। তবে হারাননি জয়ের বিশ্বাস।

তিনি বলেন, আমি অবশ্য একটু নার্ভাস ছিলাম। এরকম পরিস্থিতিতে (দ্রুত ২ উইকেটের পতন ঘটার পর) ক্রিজে আসা সুখকর কোনো ব্যাপার নয়। ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে অবদান রাখতে পেরেছি বলে খুশি। জয়ের জন্য মরিয়া হয়ে ছিলাম।’