SCORE

রশিদ-বধে ভরসা সাকিব

চলছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ- আইপিএলের এগারতম আসর। তবে এই প্রতিবেদন যখন লেখা হচ্ছে, তার কয়েক ঘণ্টা পরই নামবে আসরের পর্দা। রোববারের ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংসের মুখোমুখি হবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। আর এই হায়দরাবাদে আবার আছেন বাংলাদেশি ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান।

রশিদ-বধে ভরসা সাকিব

শুধু সাকিবই নন, সানরাইজার্স হায়দরাবাদের স্কোয়াডে আছেন আফগান স্পিনার রশিদ খানও- যিনি আসন্ন আফগানিস্তান-বাংলাদেশ টি-২০ সিরিজে টাইগারদের হুমকি হয়ে উঠতে পারেন যেকোনো সময়েই।

Also Read - 'চ্যালেঞ্জিং সিরিজ' নিয়ে রিয়াদের ভাবনা

সেই রশিদ খানকে নিয়ে বিগত কয়েকদিন ধরে চিন্তায় দেশের ক্রিকেট অঙ্গন। বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা এই লেগ স্পিনারকে টি-২০’তে নাজুক বাংলাদেশের ব্যাটিং অর্ডার কীভাবে সামলাবে, সেটি ভেবে কূল পাচ্ছেন না অনেকে।

তবে টাইগার স্কোয়াডে অবশ্য আছে এর সমাধান। কী সেই সমাধান? রোববার সেটি খোলাসা করলেন জাতীয় দলের নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। জানালেন, আইপিএলে সাকিবের রশিদ-দর্শন থেকেই তৈরি করে নেবেন এই বিস্ময় বালককে বধ করার মন্ত্র।

রিয়াদ বলেন,

‘সাকিব নেটে রশিদকে খেলছে, খুব কাছ থেকে রশিদের বলও দেখছে। ওর কাছ থেকে আমরা কার্যকরী পরামর্শ পেতে পারি। ওর সাথে কথা বললে ওর নিজের চিন্তাটা সম্পর্কেও আমরা জানতে পারবো। রশিদের ব্যাপারে সাকিবের কাছ থেকে অবশ্যই ছোটখাটো বিষয়গুলো নেওয়ার চেষ্টা করবো। আমার মনে হয় ওই তথ্যগুলো আমাদের অনেক সাহায্য করবে দল হিসেবে।’

রশিদকে ভালো বোলার হিসেবে মেনে নিতে আন্তরিকতার কোনো কার্পণ্য নেই রিয়াদের কণ্ঠে। তবে এ নিয়ে বেশি উত্তেজিত হতে মানা করলেন তিনি, ‘অবশ্যই রশিদ ভালো বোলার। ভালো ক্রিকেট খেলছে সে। আমাদেরও সেভাবেই প্রস্তুতি নিতে হবে। জিনিসগুলো অনেক বেশি স্বাভাবিক রাখা দরকার। আমরা নিজেরা কি করতে পারি, ওটার দিকে যদি আমরা বেশি ফোকাস রাখতে পারি, তাহলে আমাদের জন্যই ভালো হবে।’

তবে রশিদকে সামলাতে যে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে, সেটি জানেন রিয়াদও। এমনকি অনুশীলনের সময়েও টাইগারদের ভাবনার জায়গা জুড়ে থাকেন রশিদ খান। রিয়াদ বলেন, ‘যখন আমরা অনুশীলন করি কিংবা নেটে ব্যাটিং করে আসি, তখন আমার সঙ্গে মুশফিক কিংবা তামিম-সাব্বির সহ যারাই আছে, আমরা যখন বসে থাকি, তখন বিষয়টা নিয়ে কথা বলি। আলোচনা করি রশিদকে নিয়ে। কারন আমরা সবাই জানি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে রশিদ বিশ্বের সেরা বোলার। অবশ্যই তাকে সমীহ করতে হবে।

তবে প্রত্যেক দলেরই থাকে নিজস্ব শক্তির জায়গা, আর রিয়াদ খুঁজছেন সেটিই, ‘আমার মনে হয় আমাদের শক্তির জায়গাটা বোঝা দরকার, আমরা কে কিভাবে ক্রিকেট খেলি। প্রতিপক্ষের শক্তির জায়গার ব্যাপারেও ধারণা থাকা উচিত। সবকিছু বিবেচনা করে ক্যালকুলেটিভ রিস্ক নিয়ে যার যার শক্তি অনুযায়ী আমাদের ক্রিকেট খেলতে হবে।’

রশিদকে যাতে সতীর্থরা ভয় না পান, সেই বার্তাই রিয়াদ দিলেন সাংবাদিকদের সামনে। ব্যাটসম্যানরা সচেতন থাকলে এবং নিজেদের সেরাটা ঢেলে দিতে পারলেই রিয়াদ দেখছেন সাফল্যের স্তম্ভ। তিনি বলে ‘জিনিসটা যদি এভাবে দেখি রশিদ অনেক ভালো বোলার। তাকে না,খেলাই যাবে না। এটা ভাবা যাবে না। আমরা বল দেখবো, বল যদি আমাদের জোনে থাকে তাহলে অবশ্য স্কোরিং শট খেলব। তারপরও বলবো ওদের বোলিং আক্রমণটা অনেক ভালো। আমাদের ব্যাটসম্যনদের অনেক বেশি সচেতন থাকতে হবে। ব্যাটসম্যানরা যদি নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে পারে, তাহলে ইতিবাচক রেজাল্ট আশা করতে পারি।’

ক্রিকেটের নতুন দলগুলোর মধ্যে সাম্প্রতিক সময়ে সবচেয়ে ভালো করেছে আফগানরাই। সেই আফগানদের বিপক্ষে ভালো করার ইচ্ছে পুষে রিয়াদ বলেন, ‘আপনি যদি নতুন দলগুলোর দিকে তাকান, সেক্ষেত্রে সবার চেয়ে এগিয়ে আফগানিস্তান। তারা খুব ভালো করছে। ক্রিকেটের জন্য নতুন দলের উন্নতি ভালো লক্ষণ। আমাদের জন্য এটা অন্যরকম চ্যালেঞ্জের। আমাদের রেপুটেশন ধরে রাখতে জয়ের বিকল্প নেই। আশা করি ভালো ক্রিকেট খেলে, আমরা সিরিজ জিতে আসতে পারবো। সিরিজ জেতাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য।’

আরও পড়ুনঃ কোহলি নাকি স্মিথ? অ্যান্ডারসনের চোখে কে সেরা?

Related Articles

‘চুলে নয়, বলে তাকাও’

বরখাস্ত হলেন ভেট্টোরি

ভারতছাড়া হচ্ছে আইপিএল!

বিগ ব্যাশকেও বিদায় বললেন জনসন

দুই বছর বিদেশি লিগে খেলবেন না মুস্তাফিজ